জয়নাল আবেদীন: বিভাগীয় নগরি রংপুরে ডায়াবেটিস রোগির সংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। বর্তমানে রংপুর ডায়াবেটিক সমিতির মাধ্যমে রোগিরা যে সেবা পাচ্ছে তা মানসম্পন্ন হলেও দীর্ঘ দিনেও এখানে তৈরি হয়নি হাসপাতাল ভবন। অথচ পার্শ্ববর্তী জেলাগুলোতে ডায়াবেটিক রোগিরা পূর্ণাঙ্গরুপে সেবা পেয়ে আসছে। রংপুর ডায়াবেটিক সমিতির আজীবন সদস্যদের নানা আক্ষেপের মধ্য দিয়ে শনিবার অনুষ্ঠিত হলো বার্ষিক সাধারণ সভা২০২০। সমিতির সভাপতি বিশিষ্ট্য শিক্ষাবিদ প্রফেসব ড. মুহম্মদ রেজাউল হকের সভাপতিত্বে সভায় সমিতির গত বছরের প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা আজাদ চৌধুরী বাবু। আয় ব্যয়ের প্রতিবেদন তুলে ধরেন, সমিতির কোষাধক্ষ আবুল কাসেম। সমিতির সার্বিক কর্মকান্ড নিয়ে বক্তব্য প্রদান করেন আজীবন সদস্য ও সাবেক দর্শনা ইউপি চেয়ারম্যান ফতেহ আলী খোকন। মুক্তিযোদ্ধা সাবেক জেলা কমান্ডার ও আজীবন সদস্য মোছাদ্দেক হোসেন বাবলু, রোটারিয়ান সমিতির আজীবন সদস্য পার্থবোস, গঙ্গাচড়া সদর ইউপি চেয়ারম্যান মতিয়ার রহমান। বক্তারা বলেন, ১৯৭৮ সালে রংপুর ডায়াবেটিক সমিতি প্রতিষ্ঠা হলেও এ সমিতির কোন বাহ্যিক উন্নতি সাধিত হয়নি। এই সমিতির মাধ্যমে প্রতিবছর হাজার হাজর ডায়াবেটিস রোগিরা চিকিৎসা নিয়ে আসছেন কিন্তু হাসপাতাল প্রতিষ্ঠা না হওয়ায় ব্যয় বহুল এই চিকিৎসাটি অনেক গরিব রোগিরা চিকিৎসা নিতে পারছেন না। অনুষ্ঠান শুরুর আগে প্রত্যেক আজীবন সদস্যদের মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও বার্ষিক প্রতিবেদন বইটি তুলে দেয়া হয়। অনুষ্ঠান শেষে ৫জন আজীবন সদস্যকে সদস্য সনদ প্রদান করা হয় । বাকিদের পর্যায় ক্রমে দেয়া হবে বলে জানানো হয় । অনুষ্টান উপস্থাপন করেন নির্বাহী ৫পরিষদের সদস্য শাহ মোহাম্মদ সেলিম ।

Previous articleকলাপাড়া পৌর নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থীর সাংবাদিক সম্মেলন
Next articleঈশ্বরদীতে বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতির শতবর্ষ উদযাপন
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।