জয়নাল আবেদীন: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমদোন না নিয়ে রংপুর নর্দান মেডিক্যাল কলেজ কর্তৃপক্ষ ৩২ নেপালী শিক্ষার্থীকে ভর্তি করিয়েছে । কলেজের পাশেই একটি বাসা ভাড়া নিয়ে হোস্টেল বানিয়ে সেখানে তাদের রাখা হয়েছে। এর মধ্যে ২০১৪-১৫ শিক্ষা বর্ষের শিক্ষার্থী রয়েছে। তাদের এমবিবিএস পাশ করার এক বছর অতিবাহিত হবার পরেও তারা ইন্টার্ণশীপ করতে পারছেন না। এই দাবীতে একমাস আগে ইন্টার্ণশীপের দাবিতে ক্যাম্পাসে আন্দোলন করছিলো ওই নেপালী শিক্ষার্থীরা। তাদের আন্দোলনের সাথে যোগ দিয়েছে বাংলাদেশী শিক্ষার্থীরা। নেপালি শিক্ষার্থী রামেজ জেটাল জানান, রোববার মধ্য রাতে আমাদের ৩২ জন নেপালী শিক্ষার্থীকে হোস্টেল থেকে বের করে দেয় বাড়ির মালিক। কেন আমাদের এই ভাবে বের করে দিলো তা আমরা জানি না। আমরা তো এই দেশের না, এভাবে বের করে দিলে কোথায় যাবো। আমরা যেন বাধ্য হয়ে দেশে ফিরে যাই সেজন্য কলেজ কর্তৃপক্ষ কৌশলে এই কাজ করছে। নেপালী শিক্ষার্থী সঙ্গিত সাহা ও পূজা জানান, আমরা যকন ভর্তি হই, তখন হোটেল খরচ ও কলেজের সব টাকা একবারেই দিয়েছে, তো হোস্টেল থেকে বের করে দিবে কেন আমাদের। তারা জানান এক মাস আগে আমরা যখন আন্দোলন করেছি তখন তারা বলেছে আমাদের এক মাসের সময় দাও। আমরা দিয়েছি কিন্তু কই ইন্টার্ণশীপ তো করতে পারছি না। আমাতের ভিসার মেয়াদ শেষ হচ্ছে, সঙ্গে টাকাও নেই। এম্বাসিতে গিয়েছি তারাও কিছু করছে না। তাই,আমরা আমাদের নিরাপত্তার জন্য রাতেই রংপুর মেট্রোপলিটন কোতয়ালি থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছি। বাংলাদেশি শিক্ষার্থী রওনক জানান, আমরা নেপালী মেডিক্যাল শিক্ষার্থীদের পাশে দাঁড়িয়েছি। এ বিষয়ে কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও কোনো সারা মিলছে না। নর্দান মেডিক্যাল কলেজের পরিচালক আফজাল হোসেন জানান, নেপালী শিক্ষার্থীদের আবাসিক হোস্টেল হিসেবে নগরীর পাকার মাথা এলাকায় নুরুল ইসলামের চারতলা ভবনের দ্বিতীয়, তৃতীয় ও চতুর্থ তলার ফ্লাট ভাড়া নেওয়া হয়। গত ১১ মাসের ভাড়া বাকি থাকলেও কিছু টাকা পরিশোধ করে কলেজ কর্তৃপক্ষ। কিন্তু তাদের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করতে একটি অসাধু মহল পরিকল্পিতভাবে এই ঘটনা সাজিয়েছে। হোস্টেল মালিক নুরুল ইসলাম জানান, এই তিনটি ফ্লাটের মাসিক ভাড়া ৬৫ হাজার টাকা হিসেবে গত আট মাসের ভাড়া বকেয়া আছে। এ নিয়ে আমি অনেকবার কলেজ কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। তারা কোন উদ্যোগ নেয়নি। আমার ব্যাংক লোন আছে, তারা চাপ দিচ্ছে। ভাড়া না দিলে ব্যাংকের কিস্ত শোধ করবো কীভাবে। রবিবার রাতে শিক্ষার্থীরা বাইরে গেলে ভবনের মূল গেটে তালা লাগিয়ে দেই ।রংপুর মেট্রোপলিটন কোতয়ালি থানার ওসি আব্দুর রশিদ জানান, অভিযোগ পাবার পর আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে রাতেই তাদের হোস্টেরে উঠিয়ে দিয়েছি। কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক খলিলুর রহমান জানান, স¤প্রতি বিএমডির প্রতিনিধের সঙ্গে কথা এবং বৈঠক হয়েছে। আমরা কাগজপত্র নিয়ে মন্ত্রণালয়- অধিদপ্তরে যাচ্ছি সমাধানের জন্য। এর দ্রুত সমাধান হবে।এই দাবীতে সোমবার দুপুরে স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ের শিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব এ এইচ এম এনায়েত হোসেন রংপুর মেডিকেল কলেজে মেডিকেল কলেজে শিক্ষার গুনগত মান উন্নয়ন শীর্ষক সেমিনারে যোগদান করে চলে যাবার সময় নেপালী শিক্ষার্থী শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ করে এবং তাদের মাইগ্রেশন করে অন্য মেডিকেল কলেজে লেখাপড়া করার সুযোগ দানের জন্য দাবি জানাতে থাকে। এ সময় স্বাস্থ্য সচিব বিষয়টি দেখবেন বলে তাদের আশ্বাস দেন। শিক্ষার্থীরা বলেছে তাদের দাবী পুরন না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে।

Previous articleনীলফামারীতে ৬ দিনে করোনার টিকা নিলেন ১১ হাজার ২৭০ জন
Next articleরায়পুরে পৌরসভা নির্বাচন: বিএনপি ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর পোষ্টার-ব্যানার রাতের আধারে ছিড়ে উধাও
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।