তাবারক হোসেন আজাদ: লক্ষ্মীপুরের রায়পুর পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থীর বাসভবনের সামনে শুক্রবার (২৬ ফেব্রুয়ারী) সকালে ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এছাড়াও প্রার্থীসহ দলের নেতাকর্মীদের তিনঘন্টা অবরুদ্ধ করে রাখা হয়েছে।-এ ঘটনায় প্রার্থী এবিএম জিলানী জেলা রিটার্নিং ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কাছে অভিযোগ করেছেন।

পরে দায়িত্বপ্রাপ্ত নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও রায়পুর সহকারি কমিশনার ভূমি আক্তার জাহান সাথী ও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল জলিল ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করেন।

আগামী রোববার (২৮ ফেব্রুয়ারী) রায়পুর পৌরসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা।

এ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী সাবেক ছাত্র নেতা গিয়াস উদ্দিন রুবেল ভাট নৌকা এবং বিএনপির মেয়র প্রার্থী এবিএম জিলানী ধানের শীষ প্রতীকসহ ৬ জন প্রার্থী মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

এবিএম জিলানী অভিযোগে জানান, পৌর এলাকার ৩ নম্বর ওয়ার্ডের দেনায়েতপুর এলাকায় ও সহকারি কমিশনারের (এসিল্যান্ড) কার্যালয়ের সামনে বিএনপির প্রার্থী এবিএম জিলানী বাসা ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান।

শুক্রবার সকালে ১০টার দিকে এই বাসার সামনে রাস্তায় প্রতিপক্ষের সন্ত্রাসী বাহিনী পাঁচ-ছয়টি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায়। এ সময় তারা অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। নির্বাচনের দিন তিনিসহ (বিএনপির প্রার্থী) দলীয় নেতা-কর্মীদের ভোটকেন্দ্রে উপস্থিত না থাকতে হুমকি দিয়ে মোটরসাইকেলে করে সন্ত্রাসীরা চলে যায়। বিষয়টি তাৎক্ষণিক তিনি রায়পুর নির্বাচন কার্যালয়, পুলিশ ও ম্যাজিষ্ট্রেটকে ফোনে জানান। এরপর এসিল্যান্ড ও ওসির নেতৃত্বে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে বিস্ফোরকের ঘোসা সংগ্রহ করে নিয়ে যান। পরে আ’লীগ নেতা কাজি জামশেদ কবির বাকি বিল্লাহকে শান্তনা দিয়ে বিদায় করেন।

এ ব্যাপারে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট আক্তার জাহান সাথী ও ওসি আবদুল জলিল জানিয়েছেন, খবর পেয়ে তারা ঘটনাস্থলে যান। সেখানে পটকা ফোটানো হয়েছে। পটকার খোসাও উদ্ধার করা হয়। পরিস্থিতি শান্ত করে উভয়পক্ষের লোকদের ঘটনাস্থল থেকে বিদায় করা হয়েছে।

বিএনপির প্রার্থী এবিএম জিলানী বলেন, নির্বাচনী প্রচারণার শুরু থেকেই তাকে ও তার কর্মী-সমর্থকদের বাধা দিয়ে আসছেন আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী গিয়াস উদ্দিন রুবেল ভাট ও তার লোকজন। প্রতিপক্ষ সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে তাকে হুমকিধমকি দেওয়া হচ্ছে। এসময় তার সঙ্গে ছিলেন, উপজেলা বিএনপির সভাপতি এডভোকেট মনিরুল ইসলাম হাওয়াদার, সাধারন সম্পাদক নাজমুল ইসলাম মিঠু, বিএনপি নেতা হোসেন আহাম্মদ বাহাদুর, সাবেক ভিপি নজরুল ইসলাম লিটন, আরমান হোসেন, আনিসুর রহমানসহ ছাত্রদল, যুবদল ও স্বেচ্ছাসেবকদলের নেতা-কর্মীরা।

অভিযোগের বিষয়ে আওয়ামী লীগের প্রার্থী গিয়াস উদ্দিন রুবেল ভাট মুঠোফোনে জানান, তাকে হেয় করার জন্য প্রতিপক্ষ এ ধরনের অপপ্রচার চালাচ্ছে। এঘটনায় তিনি কিছুই জানেন না।

জেলা রিটার্নিং ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মুহাম্মদ নাজিম উদ্দিন বলেন, বাসার সামনে ককটেল বিষ্পোরন ও তাকেসহ দলের নেতা কর্মীদের অবরুদ্ধ করে রাখার বিষয়ে বিএনপির প্রার্থী মুঠোফোনে অভিযোগের বিষয়টি জানিয়েছেন। লিখিত অভিযোগও পাওয়ার পর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Previous articleপীরগাছায় তিস্তার ফুটন্ত বালুতে মিষ্টি আলুর চাষ, ভাল ফলনের সম্ভাবনা
Next articleরায়পুরে কোস্টগার্ডের অভিযান, অস্রসহ ৭ জলদস্যু আটক
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।