স্বপন কুমার কুন্ডু: চার বছরেও ঈশ্বরদীর পাকশী ইউনিয়ন যুবলীগের ৬ নম্বর ওয়ার্ড শাখর সহ-সভাপতি শাজাহান আলী মন্ডলকে (৪৫) কুপিয়ে হত্যা মামলার কোনো কূলকিনারা হয়নি। পিবিআই মামলাটি এখনও তদন্ত করছে। গত ২৪ মার্চ ছিল এই হত্যাকান্ডের চার বছর পূর্তি।
জানা গেছে,এই হত্যাকান্ডের প্রত্যক্ষদর্শী ২ সাক্ষি আশরাফুল বিশ্বাস ও আবুল হোসেন আদালতে স্যা দেওয়ায় তারাও এখন আসামিদের হুমকিতে ভীত-সন্ত্রস্থ হয়ে পড়েছেন। নাম প্রকাশ না করার শর্তে পিবিআই-এর সূত্র জানান, এই মামলার ৭ আসামিই এখন জামিনে মুক্ত। অন্য চার আসামি শাহীন, রিংকু, নয়ন ও চাঁদকে এই মামলা থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।
নিহত শাজাহানের ছোট ভাই জালাল উদ্দিন অত্যন্ত দুঃখ প্রকাশ করে জানান, মামলার সব আসামি ইতোপূর্বে গ্রেপ্তার হলেও জামিনে ছাড়া পেয়ে তারা এলাকায় ঘুরে বেড়ায় এবং দম্ভ করে কথা বলে।
২০১৭ সালের ২৪ মার্চ রাতে নতুন রূপপুর ফুটবল মাঠ-সংলগ্ন চায়ের দোকানের সামনের রাস্তায় শাজাহান আলীকে উপর্যুপরি কুপিয়ে ও ইট দিয়ে মুখমন্ডল থেঁতলে নির্দয়ভাবে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা। এই ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতি আশরাফুল বিশ্বাস ও আবুল হোসেনকেও কুপিয়ে গুরুতর আহত করে তারা। অথচ চার বছরে এসব সন্ত্রাসীর শাস্তি হয়নি। এখন সবাই জামিনে মুক্ত। মামলা তুলে নিতে প্রতিনিয়ত শাজাহানের পরিবারকে হুমকি এবং দুই প্রত্যক্ষদর্শী সাক্ষিকে বক্তব্য প্রত্যাহারের জন্য চাপ সৃষ্টি করছে বলে অভিযোগ করেছেন নিহত শাজাহানের পরিবার ও সাক্ষিদ্বয়।
প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা করার এ ঘটনার ৪ বছরেও বিচার না হওয়ায় পাকশী ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, বছরের পর বছর অপোর পরও বিচার না পেয়ে আমরা নিজেরাও হতাশ হয়ে পড়েছি। আমরা এই হত্যার দ্রুত বিচার চাই।

Previous articleতাহিরপুরে আগুনে পুড়ে গেছে তিনটি দোকান, প্রায় ১০লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতি
Next articleএমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষায় ৮০ তম স্থানে রাজাপুরের সায়মা জাহান
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।