আতিউর রাব্বী তিয়াস: জয়পুরহাটের আক্কেলপুর উপজেলা ৫০ শয্যা হাসপাতাল চত্বরের মধ্যে দীর্ঘদিন থেকে গড়ে ওঠেছে অবৈধ ব্যাটারি চালিত ইজিবাইক স্ট্যান্ড। হাসপাতাল চত্বরে যত্রতত্র ব্যাটারি চালিত ইজিবাইক রাখা ও চলাচলের কারণে দূর্ঘটনার আশঙ্কা রয়েছে বলে এলাকাবাসী মনে করেন। এ বিষয়ে সম্প্রতি মাসিক আইন শৃঙ্খলা সভায় বিষয়টি আলোচিত হলেও হাসপাতাল চত্বরের ভিতরে অবৈধ ইজিবাইক স্ট্যান্ড উচ্ছেদের উদ্যাগ গ্রহন করছে না সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। সরজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, উপজেলা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ আক্কেলপুর উপজেলা ৫০ শয্যা হাসপাতালটির অভ্যন্তরে বহুদিন থেকে ব্যাটারী চালিত অবৈধ ইজিবাইক চালকরা বিশেষ করে প্রভাবশালীদের ছত্রছায়ায় বেপরোয়া ও দাপটের সাথে হাসপাতালের জরুরী বিভাগ ও বহিঃবিভাগের সন্মুখের খোলা জায়গায় যত্রতত্র তাদের যানবাহন রেখে বিভিন্ন রুটে যাতায়াত করে থাকেন। অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় কিছু কতিপয় প্রভাবশালী ব্যক্তির ব্যাটারি চালিত ইজিবাইক অবৈধ স্ট্যান্ড তৈরি করার নেপথ্যে রয়েছে। হাসপাতাল কে যানবাহন স্ট্যান্ড হিসেবে ব্যবহৃত করার ফলে মূমুর্ষ্য রোগীদের যাতায়াতে বিপর্যয়সহ নানা মুখী সমস্যার সৃষ্টি হলেও বিষয়টি নিয়ে কারো কোন কার্যকরী পদক্ষেপ না থাকায় ওই সমস্ত চালকরা অনেক সময় কম বয়সী বিশেষ করে নারী রোগী ও রোগীর সাথে আসা লোকজন কে কটুক্তি করতে দেখা যায়। ওই সমস্ত চালকরা সব সময় হাপাতালের প্রধান ফটকে দাঁড়িয়ে থাকেন যা সাধারণ রোগীদের কাছে অসহনীয় ও বিব্রতকর। অবৈধ ব্যাটারী চালিত ইজিবাইক স্ট্যান্ড থাকার কারণে সব সময় মাকদসেবীর আড্ডা বসে হাসপাতাল চত¦রে। মাদকসেবিরা চালকদের সাথে ইজিবাইকের ভিতরে বসে মাদক সেবন করে থাকে।

গোপনসুত্রে জানা গেছে, ইজিবাইক স্ট্যান্ড কে ঘিরেই স্থানীয় প্রভাবশালী ব্যাক্তিরা চালক ও মালিকদের কাছ থেকে মোটা অঙ্কের টাকা পেয়ে থাকেন। তারা প্রতিদিন প্রতিটি ব্যাটারি চালিত ইজিবাইক স্ট্যান্ড থেকে টাকা উত্তোলন করে। যে কারণে এদের বিরুদ্ধে কেউ কথা বলার সাহস পায়না। আর এই কারণে ইচ্ছে থাকা সত্ত্বেও হাসপাতালের কর্মকর্তারা কিছু করতে পারে না। হাসপাতালে আসা রোগী দেলোয়ার হোসেন বলেন, পুরো হাসপাতাল চত্বরে অবৈধ ইজিবাইক স্ট্যান্ড। হাসপাতাল চত্বর থেকে অবৈধ ইজিবাইক স্ট্যান্ড জরুরী ভিত্তিতে অপসারণ কল্পে সংশ্লিষ্ট মহল কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহন করবেন এমনটাই প্রত্যাশা আমাদের। হাসপাতালে কোয়ার্টারে বসবাসরত পরিবারের লোকজনরা জানান, আমাদের কোয়ার্টারের সামনে অবৈধ ব্যাটারি চালিত ইজিবাইক স্ট্যান্ড করা হয়েছে। মাদকসেবিরা চালকদের সাথে ইজিবাইকের ভিতরে বসে মাদক সেবন করে থাকে ভয়ে তাদের কে কিছু বলতে পারিনা। আমরা চরম নিরাপত্তাহিনতায় থাকি সব সময়। আমরা এর দ্রুত প্রতিকার চাই। এব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিসার ডাঃ রাধেশ্যাম আগরওয়ালার বলেন, ইজিবাইক স্ট্যান্ড অপসারণের জন্য জেলা সিভিল সার্জন, উপজেলা মাসিক আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় বিষয়টি একাধিক বার উত্থাপন করলেও আজ পর্যন্ত কোন স্থায়ী পদক্ষেপ গ্রহন করা হয়নি। মাঝে মধ্যে পুলিশের ক্ষণস্থায়ী অভিযানে অল্প সময় বিরত থাকলেও পুনরায় শুরু হয়ে যায়।

Previous articleখালেদা জিয়ার করোনা পরীক্ষার নমুনা নেওয়া হয়নি
Next articleস্বাধীনতার ৫০ বছরেরও ঈশ্বরদীর রেলওয়ে ‘নাজিম উদ্দীন’ উচ্চ বিদ্যালয়ের নাম বদলায়নি
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।