প্রদীপ অধিকারী: পাঁচবিবিতে পৃথক দুটি ঘটনায় মাদ্রাসা শিক্ষিকা সহ ২ জন আহত হয়েছে। গত ২৪ শে এপ্রিল রোজ বৃহস্পতিবার পাঁচবিবি উপজেলার ধরঞ্জী ইউনিয়নের উচনা গ্রামে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলায় মুনঞ্জুরুল ইসলাম (৩২) নামের এক যুবক আহত হয়েছে এবং জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে মার্জিয়া খাতুন নামক এক মাদ্রাসা শিক্ষিকা প্রতিপক্ষের হামলায় গুরুতর আহত হয়েছে। আহত মুনঞ্জুরুল ইসলাম ঐ গ্রামের বাবুল হোসেনের ছেলে। এলাকাবাসীসূত্রে জানা যায়, শুক্রবার বিকেলে মুনঞ্জুরুল ইসলাম বাড়ী থেকে খাঙ্গইর বাজারে আসার পথে উচনা মধ্যপাড়া নামক স্থানে পৌছালে, রাতের বেলায় টর্চ লাইটের আলো জ্বালানোকে কেন্দ্র করে, জনৈক রাসেল মিয়া তাকে বেদড়ক মারতে শুরু করে। পড়ে এলাকার লোকজন উপস্থিত হয়ে তাদের সড়িয়ে দেন। এসময় মুনঞ্জুরুল ইসলাম রাসেল লাঠির আঘাতে আহত হলে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে পাঁচবিবি মহীপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। এবিষয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য ও প্যানেল চেয়ারম্যান আঃ গনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন “এঘটনায় থানায় মামলার প্রস্তুুতি চলছে বলে জানা গেছে।” এদিকে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার মোহাম্মদপুর ইউপির মোলান এলাকায় মাদ্রাসা শিক্ষিকাসহ চার জনকে কুপিয়ে গুরত্বর জখমের অভিযোগ পাওয়া গেছে প্রতিবেশীদের বিরুদ্ধে। ঘটনার পরে তাদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কম্পেলেক্সে ভর্তি করানো হয়। গত ২৩ শে এপ্রিল শুক্রবার উপজেলার মোলান গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। এঘটনায় ভুক্তভোগী মিনাজ্জল হোসেন বাদি হয়ে থনায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন।জখমিরা হলেন, দেওগাঁগ্রাম রহমানিয়া ফাজিল মাদ্রাসার এবতেদ্বায়ী প্রধান শিক্ষিকা মার্জিয়া খাতুন, রাজশাহী কলেজের এইচএসসি প্রথম বর্ষের ছাত্রী ইসরাত জাহান সুমাইয়া, ঢাকা ডেফডিল ইউনিভার্সিটির ছাত্র ইসতিয়াক হাসান তামিম ও সেকেন্দার আলী। থানায় অভিযোগ সূত্রে জানাগেছে, জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে মোলান গ্রামের মিনাজ্জল হোসেনের সঙ্গে প্রতিবেশী বকুল হোসেনের দ্বন্দ্ব ছিল। এরই জের ধরে গতকাল শুক্রবার দুপুরে প্রতিবেশী বকুলের নেতৃত্বে বাবুল হোসেন (৪৪), রায়হান হোসেন ও আলম হোসেনসহ আরো ৫/৬ জন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে মিনাজ্জলের পরিবারের উপরে হামলা চালায় এবং প্রাণনাশের হুমকি দেয়। এতে ঘটনাস্থলে মাদ্রাসা শিক্ষিকাসহ চার জন গুরত্বর আহত হয়। ঘটনার পর থেকে ভুক্তভোগীর পরিবার আবারও হামলার আশংকায় নিরাপত্তাহীণতায় ভুগছে। বিষয়টি তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহনের জোর দাবি জানায় তার পরিবার। এবিষয়ে বিবাদী বকুল হোসেন বলেন, আমাদের নামে যে অভিযোগ করেছে তা সঠিক নয়। তবে আমাদের জায়গা উদ্ধার করতে করতে গেলে উভয় পক্ষের মধ্যে মারামারি হয়। পাঁচবিবি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) পলাশ চন্দ্র দেব জানান, এঘটনায় থানায় একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Previous articleশার্শার বাগআঁচড়ায় প্রাইভেটকারে আগুন
Next articleচৌহালীতে কবরস্থানের নিরাপত্তা প্রাচির নির্মান কাজের উদ্বোধন
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।