স্বপন কুমার কুন্ডু: জাতীয় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর বীর মুক্তিযোদ্ধা নূরুজ্জামান বিশ্বাস ভিভিআইপি মর্যাদা পেয়েছেন। কিন্তু ভিভিআইপি মর্যাদা পেয়েও এই বীর এখনও সাধারণের ভীড়েই মিশে থাকেন।
জনগনের ভালবাসায সিক্ত বীর মুক্তিযোদ্ধা নূরুজ্জামান বিশ্বাস এমপি নির্বাচিত হওযার আগে বার বার উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। উজেলা চেয়ারম্যন থাকাকালীন সময়েও তিনি পরিষদের কাজকর্ম সেরে এবং অবসর পেলেই ঈশ্বরদী বাজারে সতির্থদের দোকানে বসে গল্পগুজব ও আড্ডা দিতেন। পরে নিজ হাতে বাজার-সদাই করে বাড়ি ফিরতেন। বাজারের গোপাল মার্কেটের মাষ্টার টেলার্সেই তিনি বেশী বসেন।
পাবনা-৪ আসনের উপ-নির্বাচনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওযার পর জনাব বিশ্বাস ভিভিআইপি মর্যাদা অর্জন করেন। এসময় ঈশ্বরদীবাসী মনে করেছিলেন তাঁকে হয়ত আর হাটবাজারে গল্পগুজব করতে বা বাড়ির বাজার করতে দেখা যাবে না। কিন্তু মানুষের এই ধারণাকে ভ্রান্ত করে দিয়ে তিনি আগের মতোই একজন সাধারণ মানুষের মতো সাধারণের ভীড়ে মিশে থাকেন। নেই কোন আত্ম অহংকার। জনতার এই নেতা মর্যাদাহানির তোয়াক্কা করেন না। বৃহস্পতিবার তাঁকে আবারো দেখা গেল, আগের মতোই বাজারে তরি-তরকারি কিনতে । অর্থাৎ জনগণের ভোটে নির্বাচিত এই নেতা সবসময় জনতার মাঝেই অবস্থান করতে পছন্দ করেন।
ছাত্রজীবন থেকেই তাঁর মাছধরার সখ। উপজেলা চেয়ারম্যান হয়েও ফুসরত পেলেই তিনি যেমনি ছিপ নিয়ে মাছ ধরতে বসে যেতেন। এমপি হওযার পরও সময় পেলেই মাছধরার সখ পূরণ করতে বেরিয়ে পড়েন।

Previous articleসাঁথিয়ায় পাউবো’র জায়গা দখল ও ফসলীজমি নষ্ট করে পুকুর খননের অভিযোগ
Next articleরংপুরে মেরিন একাডেমি সরকারের রূপকল্প অনুযায়ি অর্থনৈতিক উন্নয়নে ভূমিকা রাখবে: প্রধানমন্ত্রী
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।