আব্দুল লতিফ তালুকদার:  চলে গেলেন মহান মুক্তিযুদ্ধের গবেষক, লেখক, সাংস্কৃকিক ব্যক্তিত্ব, ও সংগঠক অধ্যাপক শফিউদ্দিন তালুকদার। আজ ৪ আগষ্ট বুধবার সকাল ৬ টায় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে তিনি টাঙ্গাইল সদর হাসপাতালে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন।

তিনি ১৯৬৭ সালে টাঙ্গাইল জেলার ভূঞাপুর উপজেলার যমুনার প্রত্যন্ত অঞ্চল জুঙ্গিপুর গ্রামে জন্মগ্রহন করেন। নদীর সাথে পাল্লা দিয়ে বেড়ে ওঠা বিচিত্র অভিজ্ঞতায় সংগ্রামমুখর তাঁর জীবন। বর্তমানে ভূঞাপুর সদরে বসবাস করছেন তাঁর পরিবার। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিষয়ে মাস্টার্স করেন। পরে উপজেলার নিকরাইলে শমসের ফকির ডিগ্রি কলেজে শিক্ষকতা শুরু করেন। তিনি বাংলা একাডেমি, বাংলাদেশ ইতিহাস পরিষদ, এশিয়াটিক সোসাইটি অব বাংলাদেশ, ইতিহাস একাডেমির সদস্য। কবিতা দিয়ে সাহিত্যের জগতে অগ্রযাত্রা। শফিউদ্দিন তালুকদার স্থানীয় ইতিহাস, মুক্তিযুদ্ধ, ফোকলো ও আদিবাসী গবেষক হিসেবে ইতোমধ্যে দেশে-বিদেশে বেশ সুনাম কুড়িয়েছন। তাঁর গবেষণার মধ্যে অন্যতম মুক্তিযুদ্ধের বয়ান (পাঁচ খন্ড), একাত্তরের গণহত্যা- যমুনার পূর্বপশ্চিম ও মুক্তিযুদ্ধে ভূঞাপুরসহ বেশ কিছু বই পরবর্তী প্রজন্মের জন্য রেখে গেছেন। শত বাঁধা বিপত্তির মাঝেও তাঁর জীবন ছিল বণার্ঢ্য। এছাড়াও তিনি ছিলেন একজন গুনি সংগঠক। সামাজিক ও সাংস্কৃতিক অঙ্গনে ছিলো তাঁর সমান পদচারণা। ছিলেন দৃঢ় ও সাহসী। তার প্রমান রেখে গেছেন তার প্রতিটি লেখা ও কর্মে। যে সময় বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে প্রকাশ্যে কথা বলাই ছিলো অপরাধ; সেই সময়ে তিনি তাঁর লেখায় একের পর এক তুলে ধরেছেন পাক বাহিনী ও তার দোসর রাজাকারদের নৃশংসতা। তুলে ধরেছেন একের পর এক নির্মম গণহত্যার কথা। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী ও এক ছেলে রেখে যান। তাঁর মৃত্যুতে ভূঞাপুরে বিশিষ্টজনরা শোক জানিয়েছেন। বাদ আসর জানাযা শেষে ছাব্বিসা কবরস্থানে তাঁকে দাফন করা হয়।

Previous articleশাহজাদপুরে ৫৬ দিন পর কবর থেকে যুবকের লাশ উত্তোলন
Next articleচাঁপাইনবাবগঞ্জে নৌকা পারাপারের সময় বজ্রপাতে ২০ জনের মৃত্যু
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।