ফেরদৌস সিহানুক শান্ত: চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুর উপজেলার রহনপুর পৌর এলাকার খোদেজা খাতুন বনি তার আদম্য পরিশ্রমের পর অবশেষে কলেজ শিক্ষাকতায় যোগ দিলেন। পরিবারের অসচ্ছলতার জন্য বনিকে তার বাবার সাথে চায়ের দোকানে কাজ করতে হতো। পড়া লিখায় তার মন ছিল প্রবল,ছোট থেকে বনি মেধাবী ছাত্রী ছিলো।

জানা যায়, রহনপুর পৌর এলাকার ইসলামনগর মহল্লার দুরুল হোদার মেয়ে খোদেজা খাতুন বনি। পারিবারিক অসচ্ছলতার জন্য তাদের অনেক কষ্টর দিন পার করতে হয়। বনিরা ৭ভাই-বোন, বাবা মা মিলে মোট ৯ জন সদস্যের সংসার।
দুরুল হোদা সহ বনির ২দুই ভাই তাদের চায়ের দোকানে কাজ করে। সংসারের অসুবিধার জন্য বনিও দোকানে কাজে সাহায্য করতো। তবে বনির আদম্য বিশ্বাস ছিল সে একদিন বড় অফিসার হবে। সে জন্য বনি ছোট থেকে পড়ালিখাতে ছিলো মনযোগী ও মেধাবী ছাত্রী।
বনি নবম ও দশম শ্রেণিতে পরের সময়ও অন্যের বাসায় কাজ করেছে। তার পরিশ্রমের ফলে ২০১০ সালে ssc পরিক্ষায় জিপিএ-৫ নিয়ে মানবিক বিভাগ থেকে কৃতিত্বের সাথে পাস করে।
তার পড়ালিখাতে মনযোগী ও আদম্য প্রচেষ্টার জন্য ইন্টার পড়ার সময় তাকে কলেজ কতৃপক্ষ অনেক সাহায্য করে এবং কলেজের ছাত্রীনিবাসে থাকার ব্যবস্তা করে দেন। এবং আবারো কৃতিত্বের সাথে রহনপুর মহিলা কলেজ থেকে ২০১২ সালে জিপিএ-৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হয়।
বনির লেখাপড়ার প্রতি আগ্রহ থাকার জন্য তার বাবা-মা তাকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে পাঠান। তার পরিবার পোষা হাঁস-মুরগি ইত্যাদি বিক্রি করে তাকে কিছুটা সাহায্য করতো। কিন্তু বনি তার লেখাপড়া থামিয়ে রেখেনি,এখান ওখান টিউশনি করিয়ে লেখাপড়া চালাতো। এবং বনি দর্শন বিভাগে অনার্স ও মাস্টার্স পরীক্ষায় প্রথম শ্রেণি পেয়ে উত্তীর্ণ হয়।
এরই মধ্যে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ) কর্তৃক নড়াইল সদর উপজেলায় অবস্থিত ‘গোবরা মহিলা কলেজ’ এর যুক্তিবিদ্যা বিষয়ে প্রভাষক পদে নিয়োগ পেয়েছেন। যদিও উক্ত কলেজটি এমপিও ভুক্ত নয় তবুও বনি সেখানে যোগদান করবেন বলে জানান।
খোদেজা খাতুন বনি বলেন; আমি অনেক সংগ্রাম, পরিশ্রম, ধোর্য ও মেধা শক্তির বলে আজ এতো দুর আসতে পেরেছি,তবুও আমার লক্ষ বহুদুর। উক্ত নিয়োগপ্রাপ্ত কলেজে যোগদান করে আমি আগামীর লক্ষ্য অর্জনের জন্য বিসিএসের মাধ্যমে প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় টিকে বড় অফিসার হবই হবো। মহান আল্লাহতালা আমার মনের আশা পূর্ণ করবেন বলে সে আশা প্রকাশ করে।
পাশ্ববর্তী প্রতিবেশীরা বলেন; ছোট থেকে বনি অনেক কষ্ট করে মানুষ হয়েছে। কখন কখন খেয়ে না খেয়ে দিন কেটেছে বনির পরিবারের। ছোট থেকেই বনির লিখাপড়ার প্রতি মনোবল ছিল প্রচুর। তার স্বপ্ন একদিন সে অনেক বড় অফিসার হবে,আল্লাহর অশেষ রহমতে বনির সেই ইচ্ছা গুলো পূরণের লক্ষে ছুটছে। আমরা এলাকাবাসী সবাই তার জন্য মহান রাব্বুল আলামিনের কাছে প্রার্থনা করি যেন বনির স্বপ্ন পূরণ হয়।

Previous articleপাবনায় করোনাভাইরাস ও উপসর্গে আরও ৭ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ২১
Next articleদেশে করোনায় একদিনে আরও ২৬১ জনের মৃত্যু
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।