জয়নাল আবেদীন: রংপুর বিভাগে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে । এ সময় নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ১শ৫৯ জন। এ নিয়ে বিভাগে করোনা শনাক্ত রোগী ৪৭ হাজার ৬শ৭৮ জনে পৌঁছেছে।

নতুন ১০ জন নিয়ে মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ১৪ জনে। শনিবার দুপুরে রংপুর বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. মো. মোতাহারুল ইসলাম এ তথ্য সাংবাদিকদের জানিয়েছেন।তিনি জানান, শুক্রবার সকাল ৮টা থেকে শনিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত করোনায় মারা যাওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে রংপুরের ২জন, দিনাজপুরের ২জন, ঠাকুরগাঁওয়ের ২জন, নীলফামারীর ১জন ও গাইবান্ধার ১জন রয়েছেন। এ নিয়ে আগস্টের সাত দিনে বিভাগে ৯৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবারের তুলনায় মৃত্যু বাড়লেও শনাক্ত কমেছে। এ সময়ে বিভাগে ৮শ৪৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এতে দিনাজপুরের ৬৪ জন, রংপুরের ৪০ জন, গাইবান্ধার ১৮ জন, কুড়িগ্রামের ১৩ জন, নীলফামারীর ১১ জন, লালমনিরহাটের ১০ জন, পঞ্চগড়ের ২ জন ও ঠাকুরগাঁওয়ের ১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। আক্রান্তের হার ১৮ দশমিক ৮৪ শতাংশ। নতুন করে মারা যাওয়া ‌১০ জনসহ বিভাগে করোনায় মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ‌‌১৪ জনে। এর মধ্যে দিনাজপুরের ২শ৮৮ জন, রংপুরের ২শ৩০ জন, ঠাকুরগাঁওয়ের ১শ৯৬ জন, নীলফামারীর ৭২ জন, পঞ্চগড়ের ৬৩ জন, লালমনিরহাটের ৫৭ জন, কুড়িগ্রামের ৫৬ জন ও গাইবান্ধার ৫২ জন রয়েছেন। ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৩শ৮৩ জন।বিভাগের আট জেলায় এখন পর্যন্ত ৪৭ হাজার ৬শ৭৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে দিনাজপুরে ১৩ হাজার ২শ৫৪ জন, রংপুরে ১০ হাজার ৬শ৬৯ জন, ঠাকুরগাঁওয়ে ৬ হাজার ৪শ৪১ জন, গাইবান্ধায় ৪ হাজার ৯৩ জন, নীলফামারীর ৩ হাজার ৮শ৮৯ জন, কুড়িগ্রামের ৩ হাজার ৯শ৩৩ জন, লালমনিরহাটের ২ হাজার ৩শ৭৭ জন এবং পঞ্চগড়ের ৩ হাজার ২২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। করোনাভাইরাস শনাক্তের শুরু থেকে এ পর্যন্ত রংপুর বিভাগে ২ লাখ ২৬ হাজার ৯শ১৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। বিভাগের আট জেলার মধ্যে সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত ও মৃত্যু হয়েছে দিনাজপুর, রংপুর ও ঠাকুরগাঁও জেলায়। এছাড়া সীমান্তঘেঁষা জেলাগুলোয় বেড়েছে শনাক্ত ও মৃত্যু।এদিকে করোনা পরিস্থিতি দিন দিন ভয়াবহ হওয়ায় রংপুর বিভাগের হাসপাতালগুলোতে রোগী ভর্তির চাপ বেড়েছে।সংকটাপন্ন রোগীদের জন্য মিলছে না আইসিইউ শয্যা। হাসপাতালগুলোর অক্সিজেন চাহিদাও বেড়েছে। প্রতি দিন করোনার উপসর্গ নিয়ে অন্তত ১০ থেকে ১৫ জনের মৃত্যু হচ্ছে।তবে উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া ব্যক্তিদের হিসাবে ধরছে না স্বাস্থ্য বিভাগ। এদিকে ঠিক যেন নির্বাচনী ভোট উৎসবের আমেজ নিয়ে লাইনে দাঁড়িয়ে রংপুর সিটি কপোরেশন এলাকার ৩৩টি ওয়ার্ডের ৯৯টি টিকা কেন্দ্রে মানুষ টিকা গ্রহন করেছে । জানা গেছে প্রতিটি টিকা কেন্দ্রে ৩শ জন নারী পুরুষ টিকা দিয়েছেন । এদিকে প্রথম ডোজ টিকা গ্রহনকারীদের দাবি যে কেন্দ্র থেকে তাঁরা টিকা গ্রহন করলেন সেই কেন্দ্র থেকেই যেন তাঁরা দ্বিতীয় ডোজ টিকা গ্রহন করতে পারেন ।

Previous articleনোয়াখালীতে ধর্ষণ মামলার পলাতক আসামি গ্রেফতার
Next articleপরীমনি ও হেলেনাসহ ৬ বাসায় একযোগে তল্লাশি অভিযান চালাচ্ছে সিআইডি
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।