বিমল কুন্ডু: সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৪ শিক্ষার্থীর মাথার চুল কেটে দেয়ার প্রতিবাদে এবং অভিযুক্ত শিক্ষকের অপসারনের দাবিতে পরীক্ষা বর্জন করে আন্দোলনে নেমেছে শিক্ষার্থীরা।

এ ঘটনায় গতকাল মঙ্গলবার দিনভর বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে এবং একাডেমিক ভবনে তালা ঝুঁলিয়ে দিয়েছে। এক পর্যায়ে শিক্ষার্থীরা ৪ দফা দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত উপাচার্য অধ্যাপক আব্দুল লতিফ বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছে। জানা গেছে, গত রোববার দুপুরে সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য ও বাংলাদেশ অধ্যায়ন বিভাগের ১ম বর্ষের রাষ্ট্র বিজ্ঞান পরিচিতি বিষয়ের ফাইনাল পরীক্ষায় অংশ নিতে শিক্ষার্থীরা হলে প্রবেশ করার সময় ওই বিভাগের চেয়ারম্যান সহকারি প্রক্টর ফারহানা ইয়াসমিন বাতেন কাঁচি দিয়ে ১৪ শিক্ষার্থীর মাথার চুল কেটে দেয়। এ সময় ঘটনাস্থলে একই বিভাগের সহকারি প্রক্টর রাজীব অধিকারী ও জান্নাতুল ফেরদৌস মুনি ঘটনাটি প্রত্যক্ষ করলেও তারা কোন প্রতিবাদ করেনি বলে ভূক্তভোগী শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করেছেন।

এ ঘটনার প্রতিবাদে গতকাল সোমবার ইতিহাস বিভাগের শিক্ষার্থীরা পরীক্ষা বর্জন করে বিক্ষোভ মিছিল করতে গেলে তাদেরকে ভয়ভীতি দেখিয়ে পরীক্ষা হলে প্রবেশ করতে বাধ্য করানো হয়। ওই ঘটনার জের ধরে আজ মঙ্গলবার পৌর এলাকার বিসিক বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন শাহজাদপুর মহিলা ডিগ্রি কলেজে স্থাপিত রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের অস্থায়ী ক্যাম্পাসে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা পরীক্ষা বর্জন করে দিনভর বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করে। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, শিক্ষার্থী শামীম হোসেন, আমিনুল ইসলাম, নোমান, তামান্না রহমান, অনন্যা রহমান, জাহিদুল ইসলাম, হাবিবুর রহমান হাবিব প্রমুখ। বক্তারা অবিলম্বে অভিযুক্ত শিক্ষক ফারহানা ইয়াসমিন বাতেনের অপসারনের দাবি জানায়। অন্যথায় তারা লাগাতার আন্দোলন কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়ে একাডেমিক ভবনে তালা ঝুঁলিয়ে দেয়। বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা জানান, শিক্ষক কর্তৃক চুল কেটে দেয়ার ঘটনায় অপমানিত হয়ে নাজমুল হাসান তুহিন নামে এক শিক্ষার্থী আত্মহত্যার চেষ্টা করে। আশংকাজনক অবস্থায় ওই শিক্ষার্থী বর্তমানে এনায়েতপুর খাজা ইউনুস আলী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। আন্দোলন চলাকালে রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের অতিরিক্ত দায়িত্বপ্রাপ্ত উপাচার্য ও ট্রেজারার অধ্যাপক আব্দুল লতিফ ঘটনাস্থলে এসে শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলে সুষ্ঠু বিচারের আশ্বাস দেন এবং বিষয়টি লিখিত আকারে অভিযোগ করার আহবান জানান। এর প্রেক্ষিতে শিক্ষার্থীরা অভিযুক্ত শিক্ষকের অপসারনের দাবিসহ ৪ দফা দাবিতে দায়িত্বপ্রাপ্ত উপাচার্য বরাবর একটি স্মারকলিপি পেশ করে। শিক্ষার্থীদের চুল কেটে দেয়ার বিষয়ে অভিযুক্ত শিক্ষক সহকারি প্রক্টর ফারহানা ইয়াসমিন বাতেনের সাথে বারবার চেষ্টা করেও যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

এ ব্যাপারে আজ মঙ্গলবার রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত উপাচার্য অধ্যাপক আব্দুল লতিফের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘এটি একটি অনাকাঙ্খিত ঘটনা। আমি আন্দোলনরত শিক্ষার্থী ও সংশ্লিষ্ট শিক্ষকদের সাথে কথা বলেছি এবং উভয়পক্ষের বক্তব্য শুনেছি। খুব শীঘ্রই উদ্ভুত পরিস্থিতি নিরসন হবে বলে আমি আশাবাদী।’ আজ এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত উদ্ভুত পরিস্থিতি নিরসনের লক্ষ্যে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের মধ্যে দফায় দফায় বৈঠক চলছিল বলে জানা গেছে।

Previous articleসাঁথিয়ায় গৃহবধূকে হত্যা করে ঝুলিয়ে রাখার অভিযোগ, শাশুড়ি ও ননদ আটক
Next articleতাহিরপুরে আওয়ামীলীগের উদ্যোগে প্রধানমন্ত্রী’র ৭৫তম জন্মদিন পালিত
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।