আব্দুদ দাইন: পাবনার সাঁথিয়ায় ফাতেমা খাতুন মীম (২০) নামে এক গৃহবধূকে হত্যা করে লাশ ওড়না দিয়ে ঝুলিয়ে রাখার অভিযোগ পাওয়া গেছে স্বামী নাজমুল ও তার পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের বিরুদ্ধে।

এ ঘটনায় মঙ্গলবার সকালে ওই গৃহবধুর শাশুড়ী রেহেনা বেগম ও ননদ শাপলা খাতুনকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করেছে পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার গৌরিগ্রাম ইউনিয়নের চকপাটা গ্রামে। এ ঘটনায় সোমবার রাতে মীমের বাবা আব্দুস সামাদ বাদী হয়ে ৪জনকে আসামী করে সাঁথিয়া থানায় মামলা দায়ের করেন। অভিযোগে জানা যায়, ৯ মাস পূর্বে উপজেলার ক্ষেতুপাড়া ইউনিয়নের দোপমাঝগ্রাম গ্রামের আব্দুস সামাদের মেয়ে ফাতেমা খাতুন মীমের সাথে একই উপজেলার গৌরিগ্রাম ইউনিয়নের চকপাটা গ্রামের মৃত আব্দুল হাইয়ের ছেলে নাজমুল হোসেন লিখনের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই যৌতুকের ৩ লক্ষ টাকার জন্য মীমকে বেদম মারপিট করতো স্বামী নাজমুল হোসেন লিখন।

এরই ধারাবাহীকতায় গত (২৬ সেপ্টম্বর) রোববার সন্ধ্যায় নাজমুল টাকা নিয়ে আসার জন্য ফাতেমাকে আবারও মারপিট করে হত্যা করে লাশ ঘরের আড়ার সাথে ওড়না দিয়ে ঝুলিয়ে রেখে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে বাবা আব্দুস সামাদ ওই বাড়িতে গিয়ে ঝুলন্ত অবস্থায় মেয়েকে দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে।

সাঁথিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) আসিফ মোহাম্মদ সিদ্দিকুল ইসলাম জানান, এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। ওই গৃহবধুর ননদ ও শাশুড়ীকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। বাকীদের আটকের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মঙ্গলবার পাবনা মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

Previous articleরংপুরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্মদিন পালিত
Next articleরবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকের অপসারনের দাবিতে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।