বাংলাদেশ প্রতিবেদক: বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে ইউপি নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের বিরোধিতা করায় স্কুলশিক্ষক সাইফুল ইসলাম খান (৩৬) ও তার স্ত্রী খাদিজা বেগমকে (২৮) মারধরের অভিযোগ উঠেছে।

গতকাল শনিবার রাত ৮টার দিকে উপজেলার বদনীভাঙ্গা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

পরে গুরুতর আহত অবস্থায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক সাইফুল ও তার স্ত্রীকে মোরেলগঞ্জ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখান থেকে ওইদিন রাত ১১টার দিকে তাদের খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

খাদিজা বেগম বলেন, রাতে স্বামীকে সাথে নিয়ে বাবার বাড়ি যাচ্ছিলেন। এসময় নির্বাচনে বিরোধিতার জের ধরে তাদের ওপর অতর্কিত হামলা করে স্থানীয় কয়েকজন যুবক।

পরাজিত বিদ্রোহী প্রার্থী ও বহিষ্কৃত যুবলীগ আহ্বায়ক শামীম আহসান পলাশ দাবি করেন, গত ২০ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের বিরুদ্ধে দলটির বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে কাজ করায় এ হামলার ঘটনা ঘটেছে।

অপরদিকে, নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচিত চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আকরামুজ্জামান বলেন, মারধরের ঘটনা ঘটেছে। তবে এটা নির্বাচনের জেরে নয়, পূর্ব শত্রুতার কারণে।

মোরেলগঞ্জে থানার ওসি মো. ইকবাল বাহার চৌধুরী বলেন, থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Previous articleমুনিয়া ধর্ষণ ও হত্যা মামলায় মডেল পিয়াসা ২ দিনের রিমান্ডে
Next articleদেশে করোনায় মৃত্যু আরও কমল
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।