বাংলাদেশ প্রতিবেদক: প্রেমের প্রস্তাবে সাড়া না দেয়ায় স্কুলে যাওয়ার পথে সপ্তম শ্রেণীর এক ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির চেষ্টা করায় স্থানীরা ওই যুবককে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে।

ওই যুবকের নাম শহিদুল ইসলাম (২২)। তিনি উপজেলার তালম ইউনিয়নের গোন্তা গ্রামের নবির উদ্দিনের ছেলে।

শনিবার সকাল তালম ইউনিয়নের গোলাপুর নামক এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

বিষয়টি তাড়াশ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: ফজলে আশিক নিশ্চিত করেছেন।

এ ব্যাপারে গুল্টাবাজার আদিবাসী বালিকা দ্বি-মুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুস সাত্তার জানান, গোন্তা গ্রামের নবির উদ্দিনের ছেলে শহিদুল ইসলাম প্রায়ই তার বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রীকে (১৩) বিদ্যালয়ে আসা যাওয়ার পথে প্রেম নিবেদন করে আসছিলেন। এ সময় শহিদুল মোটরসাইকেল নিয়ে ওই ছাত্রীকে অশালীন কথাবার্তা বলে রাস্তা আটকিয়ে উত্যক্ত করছিলেন। একপর্যায়ে গোলাপুর এলাকায় এসে মোটরসাইকেল থেকে নেমে ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির চেষ্টা করেন। বিষয়টি রাস্তায় চলাচলকারী লোকজন টের পেয়ে শহিদুর ইসলামকে ধরে গণধোলাই দিয়ে গুল্টাবাজার আদিবাসী বালিকা দ্বি-মুখী উচ্চ বিদ্যালয় কক্ষে আটকিয়ে রাখে।

পরবর্তীতে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বিষয়টি তাড়াশ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: মেজবাউল করিমকে জানালে তিনি ঘটনাস্থলে সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোছা: লায়লা জান্নাতুল ফেরদৌসকে পাঠান।

এ ব্যাপারে সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোছা: লায়লা জান্নাতুল ফেরদৌস জানান, সবকিছু শুনে ছাত্রীর অভিভাবকদের ওই যুবকের বিরুদ্ধে থানায় নিয়মিত মামলা করার পরামর্শ দিয়েছি। পরে তাকে পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে।

Previous articleশেখ হাসিনা সরকার সবসময়ই জনস্বার্থের বিষয়টি গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করে: কাদের
Next articleপাইকগাছায় ডোবা থেকে যুবকের বিবস্ত্র লাশ উদ্ধার
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।