ফজলুর রহমান: রংপুরের পীরগাছায় এসএসসি(ভোকেশনাল) পরীক্ষার্থীরা কেন্দ্রের মাঠেই বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করার চেষ্ঠা করলে পুলিশ শিক্ষার্থীদের উপর লাঠিচার্জ করেন। আজ রোববার(১৪নভেম্বর) সারাদেশের ন্যায় উপজেলার পীরগাছা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে এসএসসি(ভোকেশনাল) পরীক্ষা শেষে কর্তৃপক্ষের দায়িত্বে অবহেলার কারনে শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ করলে পুলিশ তাদের উপর লাঠিচার্জ করেন।

পীরগাছা থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ আজিজুল ইসলাম লাঠিচার্জের বিষয়টি স্বীকার করেন। জানা যায়, পীরগাছা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের কেন্দ্রে গতকাল রোববার এসএসসি(ভোকেশনাল) পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। ওই কেন্দ্রে উপজেলার ৮ টি প্রতিষ্ঠানের ৪শ ৭৬ জন শিক্ষার্থী অংশ গ্রহনের কথা থাকলেও উপস্থিত ছিলেন ৪শ ৬৪ জন। পরীক্ষার বিষয় ছিল পদার্থ বিজ্ঞান। প্রশ্নপত্রে পরীক্ষার সময় নির্ধারন ছিল ২ ঘন্টা ও পূর্ণমান ৩০ নম্বর। পরীক্ষা চলাকালীন ১ঘন্টা শেষে পরীক্ষার্থীদের নিকট থেকে খাতা নেয়া হয় এবং পরীক্ষার সময় শেষ বলে তাদেরকে জানিয়ে দেয়া। এরপর পরীক্ষার্থীরা বাহিরে বেরিয়ে আসে এবং কেন্দ্রের মাঠে শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ করেন। পরীক্ষার হলে দায়িত্বপ্রাপ্ত একাধিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকগণ তাদের বুঝিয়ে শান্ত করার চেষ্ঠা করে ব্যর্থ হন। পরে সেখানে পীরগাছা থানা পুলিশ এসে বিশৃঙ্খলাকারী শিক্ষার্থীদের উপর লাঠিচার্জ করেন। তাৎক্ষণিকভাবে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ শামসুল আরেফীন ঘটনাস্থলে এসে শিক্ষকদের সহায়তায় শিক্ষার্থীদের শান্ত করেন।

নাম না প্রকাশের শর্তে শিক্ষার্থীদের একাধিক অভিভাবক ক্ষোভ প্রকাশ করে জানান, কর্তৃপক্ষের অবহেলার ও অদক্ষতার কারণে পরীক্ষা কেন্দ্রে বিশৃঙ্খলার সৃষ্ঠি হয়েছে। অনেক শিক্ষার্থী পুরো মার্কের উত্তর দিতে পারেনি। শিক্ষার্থীদের পরীক্ষার পূর্ব মুহুর্তে বিষয়টি জানিয়ে দিলে এধরনের অপ্রীতিকর ঘটনার সৃষ্টি হত না। পরীক্ষার হলে দায়িত্বপাপ্ত পীরগাছা জেএন মডেল সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক অলক চন্দ্র সরকার বলেন, কর্তৃপক্ষের অবহেলার কারনে শিক্ষার্থীরা পরীক্ষা শেষে উত্তেজিত হয়েছিল পরে প্রশাসনের সহায়তায় বিষয়টি সমাধান হয়েছে। তিনি আরো জানান, পরীক্ষার প্রশ্নপত্রে ২ ঘন্টা ও পূর্নমান-৩০ নম্বর হলেও বোর্ডের পরবর্তী নির্দেশনায় বলা হয়েছে প্রশ্নে প্রদত্ত পরীক্ষার ৫০% অথ্যাৎ পরীক্ষার্থীরা অর্ধেক সময়ের মধ্যে প্রশ্নের যে কোন বিভাগ হতে পূর্ণমানের ৫০% উত্তর প্রদান করবে। যা কর্তৃপক্ষের উচিত ছিল পরীক্ষার পূর্বমুহুর্তে শিক্ষার্থীদের জানানো। কৈকুড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক দেলোয়ার হোসেন এর সাথে মোবাইলে কথা হলে তিনি জানান, এ্যাডভোকেট বেগম রোকেয়া ভোকেশনাল ইন্সটিউিট এর শিক্ষার্থীরা বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি করলে পুলিশ ও ইউএনও মহোদয় এসে তাদের শান্ত করেন। পীরগাছা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও কেন্দ্র সচিব আব্দুর হামিদ সরদার এর সাথে কথা হলে তিনি জানান, শিক্ষার্থীদের সাথে ভুল বোঝাবুঝির কারনে এসব হয়েছে। শিক্ষার্থীদের উপর পুলিশের লাঠিচার্জের বিষয়টি অস্বীকার করে তিনি বলেন পুলিশ একজন শিক্ষার্থীকে ধরে নিয়ে এসেছিল আমি ওসি ও ইউএনও মহোদয়কে বলে তাকে ছেড়ে দিয়েছি। পীরগাছা থানা পুলিশের ইনচার্জ(ওসি) আজিজুল ইসলাম এর সাথে মোবাইলে কথা হলে তিনি জানান, শিক্ষার্থীদের উশৃঙ্খলার কারণে লাঠিচার্জ করে ছত্রভঙ্গ করা হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ শামসুল আরেফীন এর সাথে মোবাইলে একাধিকবার চেষ্টা করে কথা বলা সম্ভব হয়নি।

Previous articleমুন্সীগঞ্জে নৌকা ও বিদ্রোহী প্রার্থীদের মধ্যে সংঘর্ষ, ককটেল বিস্ফোরণে আহত ২০
Next articleসোনারগাঁওয়ে ৮টি ইউপির মধ্যে ৪ ইউপিতেই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।