বাংলাদেশ ডেস্ক: তালাকের তথ্য গোপন করে সাবেক স্ত্রীর সাথে আড়াই বছর ধরে শারীরিক সম্পর্ক অব্যাহত রেখে ধর্ষণের অভিযোগে শাহ আলী নামের এক ব্যক্তিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে শেরপুরের একটি আদালত।

মঙ্গলবার শেরপুরের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আসামির অনুপস্থিতিতে ওই দণ্ড ঘোষণা করেন। সেইসাথে তাকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরো ছয় মাসের কারাদণ্ডের রায় দেয়া হয়েছে।

ট্রাইব্যুনালের সরকারি কৌঁসুলি অ্যাডভোকেট গোলাম কিবরিয়া জানিয়েছেন, কয়েক বছর আগে শেরপুর সদর উপজেলার মধ্য বয়ড়া গ্রামের এক নারীকে বিয়ে করেন অভিযুক্ত শাহ আলী।

পরবর্তীতে স্বামী শাহ আলীর বিরুদ্ধে যৌতুক চাওয়ার অভিযোগে মামলা করেন করেন তার স্ত্রী। কিন্তু সেই মামলায় ২০১৪ সালের ৪ ডিসেম্বর ট্রাইব্যুনালে হাজির হয়ে স্বামী শাহ আলী দাবি করেন, ২০১২ সালের ১৩ মে তিনি স্ত্রীকে তালাক দিয়েছেন। সেই তালাকের কাগজপত্রও তিনি আদালতে জমা দেন।

এরপর ২০১৫ সালের ২৫ জানুয়ারি শাহ আলীর বিরুদ্ধে তালাকের তথ্য গোপন রেখে আড়াই বছর ধরে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করায় ধর্ষণের অভিযোগে মামলা করেন তার স্ত্রী।

সেই মামলায় অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় মঙ্গলবার শাহ আলীকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত।

সেই মামলায় শাহ আলী ছাড়া তার মা-বাবাকেও আসামি করা হয়। তবে রায়ে অপর তিনজনকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে।

সূত্র : বিবিসি

Previous articleগুলিবিদ্ধ সোহেলসহ চারজনকে ভেতরে রেখে বাইরে থেকে তালা দেয়া হয়
Next articleখালেদা জিয়াকে নিয়ে সরকারের উদ্দেশ্য রহস্যজনক: রিজভী
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।