বাংলাদেশ প্রতিবেদক: মুলাদীতে সালিশ বৈঠকে কলেজছাত্র ইউসুফ সরদারকে কুপিয়ে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল শুক্রবার বেলা ১২টার দিকে উপজেলার সফিপুর ইউনিয়নের চরপদ্মা গ্রামের স্কুলের হাট এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

আহত ইউসুফ সরদার গোসাইরহাট সরকারি শামসুর রহমান কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থী এবং চরপদ্মা গ্রামের এসকান্দার সরদারের ছেলে। তালই (ভাইয়ের শ্বশুর) জলিল খানকে রক্ষা করতে গেলে চরপদ্মা গ্রামের শাওন ও সাইফুলসহ ৩/৪জন তাকে কুপিয়ে হত্যাচেষ্টা করা হয় বলে দাবি করেন ইউসুফ সরদার। ইউসুফ সরদার জানান, শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে চরপদ্মা স্কুলের হাট এলাকার জনৈক ঝন্টু ও আয়নালের সাথে কথার কাটাকাটি ও হাতাহাতি হয়। ওই ঘটনার জেরধরে স্থানীয় সালিশ মহসিন সিকদার, চয়ন সিকদার, সায়েম সিকদার মিমাংসার আয়োজন করেন। শুক্রবার বেলা ১২টার দিকে সালিশ বৈঠকে বসেন তারা।

সালিশ বৈঠকে চরপদ্মা গ্রামের দেলোয়ার হোসেন দিলু শরীফের ছেলে শাওন ও সাইফুল শরীফ অহেতুক আয়নালকে গালিগালাজ করেন। এসময় আয়নালের বেয়াই জলিল খান প্রতিবাদ করলে শাওন ও সাইফুল তাকে মারধর শুরু করেন। এসময় কলেজ ছাত্র ইউসুফ সরদার তার তালইকে রক্ষা করতে গেলে হামলাকারীরা তাকে কুপিয়ে হত্যাচেষ্টা করেন। এক পর্যায়ে ইউসুফ সরদার মাটিতে লুটিয়ে পড়লে হামলাকারীরা চলে যান। পরে স্থানীয়রা ইউসুফকে উদ্ধার করে শুক্রবার সন্ধ্যায় মুলাদী হাসপাতালে ভর্তি করেন। এঘটনায় হামলাকারী শাওন ও সাইফুলের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করে তাদের পাওয়া যায়নি। এব্যাপারে মুলাদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এস এম মাকসুদুর রহমান জানান, লিখিত অভিযোগ পেলে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Previous articleনোয়াখালীতে দুই শিক্ষককে পরীক্ষার দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি
Next articleনিশিরাতের সরকার চোখে দেখে না, কানেও শোনে না: মির্জা আব্বাস
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।