বাংলাদেশ প্রতিবেদক: ফলের গাছ কর্তন করার প্রতিবাদ করায় এক নারীকে মারধরের ঘটনায় মুলাদী থানায় অভিযোগ দেওয়া হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে ভুক্তভোগী নারী খোদেজা বেগম এই অভিযোগ দেন।

গত ১৮ ডিসেম্বর বেলা ২টার দিকে তাঁর বাড়ির ফলদ ও বনজ গাছ কর্তন এবং তাকে মারধর করা হয়েছে বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়। খোদেজা বেগম পৌরসভার চরডিক্রী গ্রামের মৃত ছিটু হাওলাদারে মেয়ে। তিনি ঢাকায় গৃহকর্মী হিসেবে কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করেন। খোদেজা বেগম জানান, ছোট মেয়ে রেখে ঢাকায় গৃহকর্মী হিসেবে কাজ করি। আমার মা দেশের বাড়িতে অন্যের জমিতে বাস করতো। চলতি বছর কিছু টাকা জোগার করে চরডিক্রী গ্রামের আঃ মন্নান চৌকিদারের কাছ থেকে জমি ক্রয় করি। ওই জমিতে ঘর নির্মাণ করতে গেলে একই এলাকার জয়নাল চৌকিদারের ছেলে হাবিব চৌকিদার বাঁধা দেন। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় ক্রয়কৃত জমির সীমানা পিলার নির্ধারণ করা হয়। পরে সেখানে ঘর নির্মাণ করে চারদিকে ফলদ ও বনজ গাছ রোপন করেছি। কিছুদিন আগে হাবিব চৌকিদার ওই জমির সীমানা পিলার তুলে ফেলে এবং খোদেজা বেগমের কাছে দলিল ফেরৎ চায়। কিন্তু তিনি দলিল ফেরৎ দিতে অস্বীকৃতি জানালে হাবিব চৌকিদার ক্ষিপ্ত হন এবং তাকে দেখে নেওয়ার হুমকি দেন।

গত ১৮ ডিসেম্বর বেলা ২টার দিকে হাবিব চৌকিদার ওই জমির ফলদ গাছ কেটে ফেলেন। ওই সময় খোদেজা বেগম বাঁধা দিতে গেলে তাকে গালিগালাজ ও কিলঘুষি মেরে আহত করেন হাবিব চৌকিদার। পরে স্থানীয়রা এতে তাকে উদ্ধার করেন। এ ঘটনায় খোদেজা বেগম বাদী হয়ে মঙ্গলবার দুপুরে মুলাদী থানায় অভিযোগ দেন। মুলাদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এস.এম মাকসুদুর রহমান জানান, অভিযোগের তদন্ত চলছে। তদন্ত শেষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Previous articleইউরোপের কথা বলে ভারতে নিয়ে টর্চার সেলে নির্যাতন ও মুক্তিপণ আদায় করতো: র‌্যাব
Next articleরবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের নবনিযুক্ত ভাইস চ্যান্সেলর ড. মোঃ শাহ আজম এর সংবাদ সম্মেলন
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।