কামাল সিদ্দিকী: পাবনা সদরের হেমায়েতপুর ইউনিয়নের নাজিরপুর হাটপাড়া এলাকায় মঙ্গলবার সন্ধ্যারাতে নির্বাচনোত্তর পরবর্তী হামলায় আওয়ামীলীগের পরাজিত প্রার্থীর সমর্থক শামীম (৪০)কে গুলি করে হত্যা করেছে প্রতিপক্ষরা।

নিহত স্থানীয় আওয়ামীলীগ কর্মি শামীম হোসেন (৪০) নাজিরপুর হাটপাড়ার নুর আলী প্রামানিকের ছেলে।
পাবনা সদর সার্কেলের এএসপি এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মাগরিবের নামাজের পর নাজিরপুর হাটপাড়া বাজারে একটি চায়ের দোকানে আওয়ামীলীগের নৌকা প্রতীকের পরাজিত প্রার্থী মঞ্জুরুল ইসলাম ওরফে মধু তার কর্মি -সমর্থকদের সাথে নিয়ে বসে চা খাচ্ছিলেন। এ সময় সতন্ত্র প্রার্থী তরিকুল ইসলাম নিলু খা ও তার ছেলে ইমরান বেশকিছু লোকজন নিয়ে এসে অতর্কিত এলোপাথারী গুলি ছোড়ে। এ সময় গুলিতে শামীম হোসেন ঘটনাস্থলেই মারা যায়।

আওয়ামীলীগের নৌকা প্রতীকের পরাজিত প্রার্থী মঞ্জুরুল ইসলাম ওরফে মধু জানান, আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী তারিকুল ইসলাম খান ও তার ছেলে ইমরান হোসেনসহ কতিপয় সন্ত্রাসী আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যে গুলি ছোড়ে। এ সময় আমার সামনে থাকা কর্মি শামীম গুলিবিদ্ধ হয়ে মাটিতে লুটে পড়ে। এলোপাথাড়ি গুলিতে আমিও মাটিতে শুয়ে পড়ে প্রাণে রক্ষা পাই।

স্থানীয়রা জানান, ২৬ ডিসেম্বর হেমায়েতপুর ইউনিয়নের নির্বাচন চলাকালে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ও জামায়াত সমর্থিত প্রার্থীর সমর্থকরা বেশ কয়েকটি কেন্দ্রে হামলা চালিয়ে বিশৃংখলা সৃষ্টি করে। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনলেও ক্ষোভ থেকে যায়। এই জের ধরেই হামলা চালায় তারা।

এ ঘটনার পর তারিকুল ইসলাম ও নিলু ও তার ছেলের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করলেও তারা দু’জনেই ফোন রিসিভ করেননি।

পাবনা সদর সার্কেলের এএসপি জানান, স্থানীয়দের কাছে খবর পেয়ে ওসি ঘটনাস্থল ও হাসপাতাল পরিদর্শক করেছে। গুলিবিদ্ধ শামীমকে হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে ওই এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

Previous articleটাঙ্গাইলে ১০ হাজার পাঠ্যবই গায়েবের ঘটনায় শিক্ষা কর্মকর্তাকে শোকজ
Next articleটাঙ্গাইলে বৃদ্ধের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।