জি.এম.মিন্টু: যশোরের কেশবপুর উপজেলায় আগামী ৫ জানুয়ারী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন। এ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে পোস্টারে পোস্টারে ছেয়ে গেছে পাড়া মহল্লা। তবে চলছে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থীদের পোস্টার ছেড়া, অফিস ভাংচুর, হুমকি, ধামকি। তবে ব্যতিক্রম হলো কেশবপুর ৬ নং ইউনিয়ন পরিষদের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী অধ্যাপক আলাউদ্দিন এর ক্ষেত্রে।

ইতিমধ্যে হঠাৎ করে গত ২৩ ডিসেম্বর রাতে তার ৪ জন কর্মীকে ডিবি পুলিশ আটক করে পরে পাশ্ববর্তী মনিরামপুর থানায় একটি মামলা করা হয়েছে। যার মামলা নম্বর ১১/২৩২। তারিখ ২৪।১২।২০২১। ১৫(৩)/২৫–উ ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলাটি করেছেন মনিরামপুর থানায় রাজগঞ্জ পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এস আই মোঃ লিটন মিয়া। এরপর থেকে থেকে প্রতিদিন রাতে ৬ নম্বর ইউনিয়ন পরিষদ এলাকায় আসামি আটকের অভিযান চালানো হচ্ছে। এরপর ডিবি পুলিশ অভিযান চালিয়ে রামচন্দ্রপুর গ্রামের শিক্ষক আব্দুল খালেক ও রজতের পুত্র নিরীহ কৃষক লুৎফর রহমান, ইকবালকে আটক করে ঐ মামলার আসামি করে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। এ ছাড়া ৬ নম্বর ইউনিয়নের দোরমুটিয়া গ্রামের কৃষক শাহাজান, লুৎফর, নতুন মূলগ্রামের মিন্টুসহ অনেকের বাড়িতে ডিবি পুলিশ অভিযান চালায় এবং নৌকায় ভোট দিতে নির্দেশ প্রদান করে। এ ব্যাপারে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী আলাউদ্দিন আলা বলেন, তার কর্মীদের এলাকা ছাড়া করতে পরিকল্পিত ভাবে এ মামলা করা হয়েছে। তার পোস্টার ছেড়া, প্রচার মাইক ভাংচুর, প্রচার কাজে বিঘœ সৃষ্টির বিষয়ে অভিযোগ করেও কোন প্রতিকার মেলেনি। এ ব্যাপারে থানার অফিসার ইনচার্জ বোরহান উদ্দিন বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠু করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

Previous articleউখিয়ায় ৩ সন্ত্রাসীকে কারাগারে প্রেরণ
Next articleখালেদা জিয়া রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার: নজরুল ইসলাম খান
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।