জয়নাল আবেদীন: রংপুর বিভাগে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ২৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৩ দশমিক ৬৬ শতাংশে। যাকিনা এ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ। তবে কোনো রোগী মারা যায়নি।

রংপুর অঞ্চলে করোনার সংক্রমণ দিন দিন বাড়ছে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ। আগের দিন বৃহস্পতিবার বিভাগের আট জেলায় ১৮ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছিল। ওই দিন শনাক্তের হার ছিল ১০ দশমিক ৮৪ শতাংশ।

শুক্রবার দুপুরে রংপুর বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. আবু মো. জাকিরুল ইসলাম লেলিন সাংবাদিকদের কাছে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ২০২০ সালের মার্চে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শুরুর পর থেকে এখন পর্যন্ত বিভাগে মোট শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫৫ হাজার ৯শ০৩ জন। একই সময়ে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১ হাজার ২শ৫২ জন। সুস্থ হয়েছেন ৫৪ হাজার ২শ৭৮ জন। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় বিভাগের আট জেলার ২০৫ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এর মধ্যে গাইবান্ধার ২, লালমনিরহাটের ৩, রংপুরের ৮ ও দিনাজপুরের ১৫ জনের করোনা পজিটিভ এসেছে। ২৪ ঘণ্টায় বিভাগে ২৩ জন সুস্থ হয়েছেন।রংপুর বিভাগের মধ্যে করোনায় সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত ‍ও মৃত্যু হয়েছে দিনাজপুরে। এ জেলায় সর্বোচ্চ আক্রান্ত হয়েছেন ১৪ হাজার ৯শ৫৪ এবং ৩শ৩২ জন মারা গেছেন। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২শ৯৩ জনের মৃত্যু হয়েছে বিভাগীয় জেলা রংপুরে। এ জেলায় আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১২ হাজার ৬শ২০ জনে।এছাড়া জেলা হিসেবে সবচেয়ে কম ৬৩ জন মারা গেছে গাইবান্ধায়। এ জেলায় করোনা শনাক্ত হয়েছে ৪ হাজার ৮শ৭৮ জনের। ঠাকুরগাঁওয়ে মৃত্যু ২শ৫৬ ও শনাক্ত ৭ হাজার ৭শ০৮ জন, নীলফামারীতে মৃত্যু ৮৯ ও শনাক্ত ৪ হাজার ৪শ৫৯ জন, পঞ্চগড়ে মৃত্যু ৮১ ও শনাক্ত ৩ হাজার ৮শ৩৮ জন, কুড়িগ্রামে মৃত্যু ৬৯ ও শনাক্ত ৪ হাজার ৬শ৫৩ জন এবং লালমনিরহাটে মৃত্যু ৬৯ ও আক্রান্ত ২ হাজার ৭শ৭৪ জন।এখন পর্যন্ত বিভাগে মোট ৩ লাখ ৯ হাজার ৪শ৮৭ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এর মধ্যে ৫৫ হাজার ৯শ০৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

এখন পর্যন্ত বিভাগে সুস্থ হয়েছেন ৫৪ হাজার ২শ৭৮ জন।রংপুর বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালক ডা. আবু মো. জাকিরুল ইসলাম লেলিন বলেন বিভিন্ন বয়সী মানুষকে টিকার আওতায় আনার ফলে সংক্রমণ ও মৃত্যুর হার আগের চেয়ে কমে আসছে। তবে বর্তমানে নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন এবং করোনার ঊর্ধ্বমুখী পরিস্থিতিতে যেভাবে স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষিত হচ্ছে তা উদ্বেগজনক। এদিকে রংপুর সিটি কর্পোরেশন স্বাস্থ্য বিভাগে করোনার টিকা নেয়ার জন্য বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থিরা সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত ভিড় করছে । অল্প সংখ্যক স্বাস্থ্য কর্মি দিয়ে হিমশিম খাচ্ছে সিটি স্বাস্থ্য বিভাগ । অপরদিকে করোনা প্রতিরোধে জনগণকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে মাস্ক ব্যবহার করার তাগিদ নিয়ে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বৃহস্পতিবার থেকে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালিত হচ্ছে ।জেলা প্রশাসক আসিব আহসান জানিয়েছেন প্রথমে শুধুই সতর্ক এবং মাস্ক বিতরণ করা হচ্ছে । জনগন সারা দিলে ভালো নইলে ভ্রাম্যমান আদালতে অর্থ দন্ড দেয়া হবে ।

Previous articleদেশে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৪ হাজার ৩৭৮ জনের করোনা শনাক্ত
Next articleচান্দিনায় ইউপি নির্বাচনে নৌকার পরাজয়ে ব্যতিক্রমধর্মী মিলাদ মাহফিল
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।