জয়নাল আবেদীন: “উদ্ভাবনে অংশিদারিত্বে অভিযোজনে উন্নয়নের পথে এক সাথে” এই প্রতিপাদ্য নিয়ে গতকাল মঙ্গলবার রংপুরে স্বল্প আয়োজনে ঘরোয়াভাবে পূর্ণ স্বাস্থ্যবিধি মেনে কেক কেটে শান্তির প্রতীক পায়রা উড়িয়ে ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানের মাধ্যমে উত্তরাঞ্চলের প্রাচীনতম বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা আরডিআরএস বাংলাদেশ ৫০ বছর পূর্তি উদযাপন করেছে ।

সকালে সংস্থার নির্বাহী পরিচালক তপন কুমার কর্মকার বেলুন ও শান্তির পায়রা উড়িয়ে শুভ সুচনা করে বেগম রোকেয়া মিলনায়তনে কেক কাটা হয় । এরপর ঢাকা থেকে ভার্চুয়ালী আলোচনা অনুষ্ঠান যোগদেন অতিথিগণ । সভায় সভাপতিত্ব করেন আরডিআরএস ট্রাষ্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান এস এন কৈরী । স্মৃতিচারণ আলোচনা অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন মহান স্বাধীনতার পর স্বাধীন বাংলাদেশে ১৯৭২ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি মুক্তিযুদ্ধ বিধ্বস্ত বৃহত্তর রংপুর-দিনাজপুর অঞ্চলে ত্রাণ সহায়তা দান ও ভেঙে পড়া অবকাঠামো, রাস্তাঘাট-স্কুল-কলেজ-মাদ্রাসা-হাটবাজার ইত্যাদি পুনর্নির্মাণের কাজের মাধ্যমে আরডিআরএস (রংপুর- দিনাজপুর রিহ্যাবিলিটেশন সার্ভিসেস) নামে সংস্থাটি প্রতিষ্ঠা লাভ করে ।

বর্তমানে রংপুর দিনাজপুর অঞ্চল অতিক্রম করে এ সংস্থার কার্যক্রম দেশের ৩২টি জেলায় সস্প্রসারিত হয়েছে। আন্তর্জাতিক দাতাসংস্থা লুথেরান ওয়ার্ল্ড ফেডারেশনের কান্ট্রি প্রোগ্রাম হিসেবে ড.ওলাভ হুডনি প্রতিষ্ঠিত এই সংস্থাটি ১৯৯৭ সালের জুন মাসে ট্রাস্ট অ্যাক্টে নিবন্ধিত হয়ে বাংলাদেশী বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা হিসেবে কার্যক্রম চালিয়ে আসছে । বক্তারা আরো বলেন বিভিন্ন সময়ে এনজিওদের নামে নানা কথা উচ্চারিত হলেও আরডিআরএস বাংলাদেশ নিয়ে কোন বিতর্ক হয়নি। এই সংস্থায় পূর্ণ স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা ও সুশাসনের মাধ্যমে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর উন্নয়নে পরিচালিত এই সংস্থার বহুমুখী উল্লেখযোগ্য কার্যক্রমের মধ্যে নারীর ক্ষমতায়ন, সচেতনতা সৃষ্টি, কৃষি-স্বাস্থ্য-শিক্ষা, প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলা, বৃক্ষরোপণ, গণমানুষের সংগঠন, নারী-শিশু ও আদিবাসীদের অধিকার প্রতিষ্ঠা, ক্ষুদ্রঋণ সহায়তা এবং কমিউনিটি রেডিও কার্যক্রম অন্যতম। ঢাকা থেকে যুক্ত হয়ে বক্তব্য প্রদান করেন এনজিও বিষয়ক ব্যুরোর মহা পরিচালক কে এম,তারিকুল ইসলাম, পিকেএস এফএর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. নমিতা হালদার, মাইক্রোকেডিট রেগুলেটরি অথরিটি নির্বাহী ভাইস চেয়াম্যান মো: ফসিউল্লাহ। রংপুর প্রান্ত থেকে স্মৃতিচারণ করেন সাবেক পরিচালক ডা: নুরুল আলম, মঞ্জুশ্রী সাহা, মতিয়ার রহমান বর্তমানে কর্মরত সিনিয়র ডিরেক্টর ফয়জার রহমান ডিরেক্টর আব্দুর রহমান ।

এসময় উপস্থিত ছিলেন হেড অব এডমিনিষ্ট্রেশন নজরুল গণি হেড অব মাইক্রোফিনেন্স রবীন চন্দ্র মন্ডল, হেড অব ডেভেলপমেন্ট আব্দুস সামাদ সহ নবীন প্রবীন কর্মকর্তা।আরডিআরএস মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ধারণ, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শকে লালন সহ বাঙালি সংস্কৃতি ধারণ করে গত ৫০ বছর ধরে কাজ করে যাচ্ছে । মুজিব জন্মশতবার্ষিকীতে মুজিব কর্ণার স্থাপন করা হয়েছে ।

বর্তমান সহ আরডিআরএস‘র আগামি কর্মি প্রজন্ম যাতে জাতির পিতার কর্মময় জীবন, রাজনীতি ,অর্থনীতি সমাজনীতি,দূরদর্শীতা ত্যাগ স্বীকার সহ তাঁর সম্পর্কে জানতে পারেন। আরডিআরএস বাংলাদেশ নির্বাহী পরিচালক তপন কুমার কর্মকার বলেন অতিমারি করোনাকালে সরকারের পাশাপাশি আরডিআরএস তাঁর কর্মএলাকা ছাড়াও বিভিন্ন স্থানে সাধ্যমত সহযোগিতার হাত বাড়িয়েছে । বিভিন্ন দূর্যোগকালীন সময়ে চাল ডাল তেল সাবান নগদ অর্থ কম্বল চাদরসহ লাখ লাখ মাস্ক বিতরণ করা হয়েছে । শুধু তাই নয় করোনাকালীন সময়ে গত এক বছরে ১শ ১০কোটি টাকা সঞ্চয় আমানত ফেরত দেয়া হয়েছে । এছাড়াও যথাযথ সম্মাণের সাথে জাতীয় দিবসগুলো পালন করা হয়। গত ৫০ বছরে এই সংস্থা সফলভাবে সার্বিক কার্যক্রম পরিচালনার জন্য জাতীয় ও আন্তর্জাতিক অনেক পুরস্কার ও স্বীকৃতি অর্জন করেছে।

Previous articleতাহিরপুরে টাকার মালায় সিক্ত হলেন নবনির্বাচিত ইউপি সদস্য
Next articleমাদারীপুরে সমন্বিত অফিস ভবনের গ্লাস ভেঙ্গে পড়ার ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।