স্বপন কুমার কুন্ডু: পদ্মা নদীর তীরবর্তী ঈশ্বরদীর লক্ষীকুন্ডা ইউনিয়নে পদ্মার শাখা নদীর বুক চিরে রাস্তা তৈরী করেছে প্রভাবশালী চক্র। আর এই রাস্তা দিয়ে চরের ফসলি জমির মাটি কেটে পদ্মার বুক চিরে গড়ে তোলা রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন শতশত ট্রাক মাটি বহন করে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে অবৈধ ইটভাটায়। চরাঞ্চলের ফসলী জমির মাটি কাটা এবং অবৈধ ইটভাটা নিয়ে লেখালেখি হলেও কারও কোন মাথাব্যাথা নেই।

এস্কেভেটর দিয়ে অবৈধভাবে চরের ফসলি জমির মাটি কাটা হচ্ছে। লেখালেখি হলে প্রশাসনের অভিযান পরিচালিত হয়। দূর থেকে প্রশাসন এবং আইন-শৃংখলা বাহিনীর গাড়ি দেখলেই সটকে পড়ে মাটি খেকোরা। ধরা পড়ে দিনমজুর। প্রভাবশালীরা ধরা-ছোয়ার বাইরে থেকে যায়। প্রতিদিন সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত ফসলী জমির মাটি লক্ষীকুন্ডা গ্রামের অবৈধ ইটভাটাসহ আশেপাশের বিভিন্ন স্থানে চলে যাচ্ছে।

সরেজমিনে দেখা যায়, রূপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পের পাশ দিয়ে পদ্মার শাখা নদীটি পাবনা সদর উপজেলার দিকে চলে গেছে। বর্ষায় পানিতে টইটুম্বুর থাকলেও শীতের সময় নদীতে পানি কম থাকে। পানি কম থাকায় মাটির ট্রাক যাতায়াতের জন্য বিলকেদার গ্রামে পদ্মার বুক চিরে রাস্তা বানিয়েছে মাটিকাটার সিন্ডিকেট। শহর থেকে প্রায় ২০ কিলোমিটার দূরে পদ্মা নদীর চরাঞ্চল নির্জন হওয়ায় প্রভাবশালী চক্রটি এস্কেভেটর দিয়ে মাটি কেটে অবাধে ও নির্বিঘ্নে মাটি কেটে যাচ্ছে। প্রতিদিনই শতশত ট্রাক ও ট্রাক্টর চরের মাটি কেটে ইটভাটায় নিয়ে যায়।

লক্ষীকুন্ডা ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার, জিয়াউল হক জিয়া জানান, লক্ষীকুন্ডায় অবৈধভাবে যারা ইটভাটা তৈরী করেছে, তারা প্রভাবশালী। এস্কেভেটর দিয়ে রাতের অন্ধকারে মাটি কেটে ইটভাটায় নেয়া হচ্ছে। রাজনৈতিক দ্বন্দ্ব ও মামলা-মোকদ্দমার ভয়ে কেউ মুখ খোলার সাহস পায় না। তবে পদ্মার চরে বালি তোলার জন্য কয়েকবার চেষ্টা করলেও এলাকাবসী বন্ধ করে দিয়েছিল। পরিবেশ অধিদপ্তরের বিষয়গুলো আমলে নেয়া দরকার বলে জানান তিনি।

লক্ষীকুন্ডা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আনিস উর রহমান শরীফ জানান, চরের জমিতে ভালো ফসল হয়। ফসলী জমিতে যেমন ইটভাটা স্থাপনা করা অন্যায়, তেমনি চরের ফসলি জমি থেকে মাটি কাটাও অন্যায়। সরকারী দায়িত্বরত কর্মকর্তারা যদি একটু নজর দেন, তাহলে মনে হয় আবাদি জমিগুলো রা পায়। এ ব্যাপারে তিনি প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন।

ঈশ্বরদী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) পি এম ইমরুল কায়েস জানান, অবৈধ ইটভাটা বন্ধে প্রশাসন অভিযানে নেমেছে। অবৈধ ইটভাটার মালিক সমিতিকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে, ইট তৈরী বন্ধ হলে মাটি আসাও বন্ধ হবে। অবৈধভাবে মাটি কাটার জন্য আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

Previous articleউল্লাপাড়ায় চুক্তিতে একজন মজুরের আয় ৭০০ টাকা
Next articleশার্শা সীমান্তে হাত বাড়ালেই মিলছে গাঁজা-ফেনসিডিল, গত দেড় মাসে আটক ৩৩
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।