জি.এম.মিন্টু: যশোরের কেশবপুরে প্রতিবেশির ধানের জমিতে হাঁস-মুরগী যাওয়াকে কেন্দ্র করে এক রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ হয়েছে। এতে নারী-পুরুষসহ ৩ জন আহত হয়েছে। আহতদেরকে কেশবপুর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় কেশবপুর থানায় ৯ জনকে আসামী করে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

অভিযোগে জানাগেছে, সোমবার সন্ধ্যায় উপজেলার বরণডালি গ্রামের আশরাফুল কাজীর ধানের জমিতে প্রতিবেশি তবিবুর রহমানের হাঁস-মুরগী প্রবেশ করে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে মুনছুর হোসেনের পুত্র রাজু, সিরাজুল কাজীর পুত্র অসিম কাজী, শেখ শাহাদাত হোসেনের পুত্র পিয়ারুন শেখ, শেখ আকবার হোসেনের পুত্র টুটুল, মৃত খুদে কাজীর পুত্র মকফুর ও আশরাফুল এবং আশরাফুল কাজীর পুত্র শাকিব কাজী, কামালের পুত্র জাবের, আব্দুর সাত্তারের পুত্র মান্নান তবিবুর রহমানের বাড়ীতে প্রথমে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। এতে প্রতিবাদ করলে ওই প্রতিবেশিরা লোহার রড,বাঁশের লাঠি, সাবল ও গাছি দাঁ দিয়ে এলোপাতাড়ি ভাবে মারধর ও কোপাতে থাকে। এতে ঘটনাস্থলে তবিবুরের স্ত্রী রাশিদা খাতুন(৪০) হাতের আংগুল কেটে যায়। মেয়ে তামান্না খাতুন(১৬) ও স্বামী তবিবুর রহমান (৪৫) মারাত্বক জখম হয়। এ সময় গ্রামের লোকজন এসে তাঁদেরকে উদ্ধার করে কেশবপুর হাসপাতালে ভর্তি করে। তাঁদের অবস্থা আশংকাজনক।

এঘটনায় তবিবুর রহমান বাদী হয়ে ৯ জনকে আসামী করে গতকাল মঙ্গলবার কেশবপুর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। কেশবপুর থানার ওসি বলেন, অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Previous articleতেলের বোতলের দাম মুছতে ঘষা, ৫০ হাজার টাকা জরিমানা
Next articleপাঁচবিবিতে র‌্যাবের অভিযানে ফেনসিডিলসহ মাদক কারবারী আটক
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।