রেজাউল ইসলাম পলাশ: ঝালকাঠির রাজাপুরের চাড়াখালী গ্রামে পৈতৃক জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে ভাড়াটে সন্ত্রাসী দিয়ে তান্ডব চালিয়ে ছ্ধোসঢ়;ট বোনের বসতঘর নিশ্চিহ্ন করে দিয়েছে আপন বড় ভাই। এ সময় ঘরের ছাউনির টিন, বেড়া, খূটিসহ যাবতীয় মালামাল লুট করে নিয়ে যাওয়া হয়। দেখে বোঝার উপায় নেই কয়েকঘণ্টা আগেও ওই বসসভিটায় ঘর ছিল।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার বিকেলে রহিম আকনের জামাতা হুমায়ুনের নেতৃত্বে ৩০-৪০ জন ভাড়াটিয়া লোক পৈতৃক ভিটায় বসবাসকারী ফজিলা বেগমের পরিবারের উপর হামলা করে সবাইকে আটকে রেখে ঘরবাড়ি ভেঙ্গে বসতঘরের অস্তিত্ব নিশ্চিহ্ন করে দেয়। এ ঘটনায় ভূক্তভোগি ফজিলা ঐ দিনই রাজাপুর থানা পুলিশের কাছে অভিযোগ দিলেও গত চার দিনেও কোনো মামলা রেকর্ড করেনি রাজাপুর থানা পুলিশ। এ নিয়ে কথা বলতে প্রতিপক্ষের রহিম আকনের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি। সরজমিনে গেলে প্রতিবেদককে প্রত্যক্ষদর্শী প্রতিবেশী কবির মোল্লা জানান, বিকেলে আমি হঠাৎ বিকট শব্দ ও লোকজনের চেচামেচি শুনে বাসা থেকে বের হয়ে দেখি রহিম আকন ও তার জামাতার নেতৃত্বে বহিরাগত লোক নিয়া ফজিলা বেগমের নাবালিকা মেয়েদের সহ পরিবারের লোকজনকে মারধর করছে। আমি তাৎক্ষণিক ফজিলা বেগম ও তার শিশু মেয়েদের উদ্ধার করে অন্যত্র নিয়ে যাই।

উপজেলার চাড়াখালী গ্রামের আশ্রাফ আলী আকনের মেয়ে অসহায় ফজিলা বেগমের ছোট নাবালিকা মেয়েদের সহ পরিবারের সদস্যদের মারধর করে বসতঘর ভেঙ্গে নিশ্চিহ্ন করার অভিযোগ ফজিলা বেগমের আপন বড় ভাই রহিম আকনের বিরুদ্ধে। ফজিলা বেগম জানান, রহিম আকন আমার পৈতৃক ওয়ারিশ সুত্রে প্রাপ্ত ভোগ দখলীয় সম্পত্তি জোড় পূর্বক ভাবে দখল করিয়া আসতেছিল। এ কারনে জমি বুঝে পেতে বিজ্ঞ আদালত দেং মোং নং -৪০/২০২১ মামলা দায়ের করি। পৈতৃক ভিটায় বসতঘরের পাশে আমি রান্না ঘর নির্মান করার জন্য বিজ্ঞ আদালতে ঐ মামলায় আবেদন করলে আদালত আমার বসত ঘরের পাশে রান্না ঘর নির্মানের আদেশ দান করে। আদালতের আদেশ অনুযায়ী উক্ত জমিতে আমি রান্না ঘর তুলে ছেলেমেয়ে দের নিয়ে বসবাস করে আসছি। হঠাৎ বৃহস্পতিবার আমার ভাইয়ের মেয়ে জামাই হুমায়ুন দলবল নিয়া আমাদের মারধর করে বসত ঘর নিশ্চিহ্ন করে দেয়। ফজিলা বেগম আরো জানান হুমায়ুন এর লাঠিয়াল বাহিনী থেকে রক্ষা পায়নি আমার নাবালিকা দুই কন্যা। আমার ও কন্যাদের সঙ্গে থাকা সামান্য স্বর্নালংকার ছিনিয়ে নিয়া যায় তারা। বর্তমানে আমার বসতঘরের স্থানে খড়ের গাদা নির্মন করেছেন রহিম আকন।

এ ব্যাপারে পুলিশের তদন্ত অফিসার এস আই পলাশ জানায়, অভিযোগে পর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে থানা পুলিশ অভিযোগের সত্যতা পেয়েছে। বিষয়টি স্থানীয় ভাবে মিমাংশার চেষ্টা চলছে।

Previous articleবাউফলে একরাতে দুই বাড়িতে ডাকাতি
Next article৫ সহকর্মীকে গুলি করা হত্যা করলো বিএসএফ সদস্য
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।