শফিকুল ইসলাম: জয়পুরহাটের পৌর এলাকার জনগুরুত্বপূর্ণ স্থানে প্রশাসনের চোখ এড়িয়ে বন্ধু পুণর্মিলনী অনুষ্ঠানের আড়ালে চলছিল হাউজি খেলা। বিষয়টি জানার পর খেলা পন্ড করে হাউজি খেলার সরঞ্জামাদি জব্দ করেছে পুলিশ। তবে এ ঘটনায় কাউকে গ্রেফতার ও কারোও বিরুদ্ধে এখনও কোন মামলা হয়নি।
শুক্রবার রাতে শহরের ষ্টেশন এলাকায় স্বপ্নছায়া ছায়া কমিউনিটি সেন্টারে এ ঘটনা ঘটে।

সরেজমিন জানা যায়, স্বপ্নছায়া কমিউনিটি সেন্টার এর বাহিরে বন্ধু পূণৃর্মিলনী অনুষ্ঠান-২২ ব্যাচ ১৯৮০ সালের ছাত্রের একটি ব্যানার ব্যবহার করে চলছিল হাউজি খেলা। কমিউনিটি সেন্টার এর ভিতরে শুক্রবার দুপুর ২ টা থেকে শুরু হয়ে রাত ৮ টা পর্যন্ত প্রায় ১ হাজার লোকের উপস্থিতিতে চলছিল হাউজি খেলা। হাউজি শীটের উল্টো পিষ্টে স্বপ্নছায়া কমিউনিটি সেন্টারের নাম সম্বলিত সীল। জয়পুরহাটের বিভিন্ন উপজেলাসহ বাহিরের জেলার মানুষদের ব্যবহূত মোটরসাইকেল,কার,মাইক্রোবাসসহ রাস্তায় বিভিন্ন গাড়ীর উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মত। অনুমোদনের বিষয়টি জানতে চাইলে হাউজি খেলা পরিচালনা কমিটির প্রশাসনের অনুমোদনের কোন প্রকার কাগজপত্র দেখাতে পারেননি। বরং সংবাদকর্মীদের ম্যানেজ করার চেষ্টা করে হাউজি খেলা পরিচালনা কমিটি।

নাম প্রকাশে অনেচ্ছুক এলাকাবাসীরা জানান, ষ্টেশন,কলেজসহ এমন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে প্রশাসনের চোখকে ফাঁকি দিয়ে অনুমোদন ছাড়ায় কিভাবে হাউজি চলছিল তা আমাদের বোধগম্য নয়। পরবর্তীতে এই ধরনের ঘটনা যাতে আর না ঘটে এজন্য প্রশাসনকে আরও সতর্ক থাকার পরামর্শ দেন এলাকাবাসী।

বগুড়ার শিবগঞ্জ থেকে ছাত্তার হোসেন,রংপুর মিঠাপুকুর থেকে রুবেল মিয়া, দিনাজপুর নবাবগঞ্জের শিপন হোসেন একাধিক ব্যক্তিরা জানান, আমরা কেউই ১৯৮০ ব্যাচের ছাত্র না। প্রশাসনের অনুমতি আছে বলে আমাদের এখানে নিয়ে আসা হয়েছে। পরে আমরা পুলিশের তাড়া খেয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে তড়িঘড়ি করে বের হয়েছি। এতে আমাদের ক্ষতিও হতে পারত। স্বপ্নছায়া কমিউনিটি সেন্টার এর স্বত্বাধিকারী তরিকুল ইসলাম বলেন, ১৯৮০ সালের ব্যাচেরা কমিউনিটি সেন্টার ভাড়া নিয়ে তারা আনন্দ-উল্লাস করছিল। এরই অংশ হিসাবে হাউজি খেলার আয়োজন করতে পারা তারা।

জয়পুরহাট জেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক আ স ম মোক্তাদির তিতাস বলেন, দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতির সময়ে হাউজি খেলার আয়োজন যারা করেছে অবশ্যই এটা ঠিক করেনি। মানুষ এমনিতেই কষ্ট আছে। স্বাধীনতা দিবস পালনের জন্য প্রশাসন যখন ব্যস্ত তখন সেই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে একটি স্বার্ধানেষী মহল এই ঘৃন্য কাজ করেছে। প্রশাসন সঠিক সময়ে প্রদক্ষেপ নিয়েছে এজন্য প্রশাসনকে ধন্যবাদ জানাই।

জয়পুরহাট সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ কে এম আলমগীর জাহান জানান, ঘটনাটি জানার পর সঙ্গে সঙ্গে ফোর্স পাঠিয়ে হাউজি খেলা পন্ডসহ সরঞ্জামাদি জব্দ করা হয়েছে। তবে খেলা পরিচালনাকারীরা জেলার বাহিরের হওয়ায় কাউকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। তবে বিষয়টি তদন্ত শেষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

 

Previous articleকুলাউড়ার ভাটেরা টিলা ধসে মাটিচাপায় একসঙ্গে ৩ শিশুর মৃত্যু
Next articleকলমাকান্দায় বিএনপির স্বাধীনতা র‍্যালিতে আ’লীগের হামলা, আহত ১৫
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।