এস কে রঞ্জন: পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় ২০ টি ঘুঘু, ১ টি শালিক ও ২ টি টিয়া পাখি উদ্ধার করে অবমুক্ত করা হয়েছে। শনিবার দুপুর ২ টায় উপজেলার চাকামাইয়া ইউনিয়নের নেওয়াপাড়া গ্রাম থেকে এসব পাখি উদ্ধার করে এনিমেল লাভার অফ কলাপাড়া শাখার সদস্যরা।পাখি শিকারী রাহাতুল ও জাহিদুল ইসলামের বাড়ি থেকে এসময় পাখি ধরার তিনটি ফাঁদও উদ্ধার করা হয়। পরে উপজেলা বন বিভাগের কাছে পাখিগুলো এবং ওই দুই শিকারীকে হস্তান্তর করেন তারা।

দুপুর তিনটার দিকে উপজেলা বন কর্মকর্তা আবুদস সালাম এসব পাখির প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে অবমুক্ত করেন। পাখি অবমুক্তকালে উপস্থিত ছিলেন এনিমেল লাভার অফ কলাপাড়া শাখার সদস্য নজরুল,রাকায়েত, হাসান ও রাতুলসহ বন বিভাগের কর্মকর্তারা। এনিমেল লাভার অফ কলাপাড়া শাখার সদস্যরা জানান, বেশ কয়েকদিন ধরে রাহাতুল ও জাহিদুল ফাঁদ পেতে পাখি শিকার করে আসছে। পরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ওই এলাকার স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে অভিযান চালিয়ে এসব পাখি উদ্ধার করা হয়। ২০ টি ঘুঘুর মধ্যে ৪ টি বাচ্চা ঘুঘু বন কর্মকর্তার জিম্মায় রয়েছে। এছাড়া ৬ টি দল ঘুঘু, ১০ টি দেশি জাতের ঘুঘু, ১ টি শালিক ও ২ টি টিয়া পাখি জনসম্মুখ্যে অবমুক্ত করা হয়েছে।

এনিমেল লাভার অফ কলাপাড়া শাখার সদস্য নজরুল মিয়া জানান,এর আগে আমরা একটি বানর পায়রা বন্দর এলাকা থেকে উদ্ধার করে বন বিভাগের কাছে হস্তান্তর করেছি। আমদের কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। কলাপাড়া উপজেলা বর্ন কর্মকর্তা আবদুস সালাম জানান, এনিমেল লাভার অব কলাপাড়া শাখার সদস্যরা প্রশংসনীয় কাজ করেছে। আমরা তাদের স্বাসুবাদ জানাই। আমরা সবাইকে পাখি শিকার বন্ধে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি। পাখি শিকার ও খাচায় পালা শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

Previous articleটেস্টে দশমবার এক ইনিংসে ৫ উইকেট পেলেন তাইজুল
Next articleশিবগঞ্জে ককটেল বিস্ফোরণে ১০ জন আহত
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।