আব্দুল লতিফ তালুকদার: তেল নিয়ে তেলেসমাতি যেন শেষ হচ্ছে না। এবার বাজার থেকে উধাও বোতলজাত সয়াবিন! টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে চাহিদামত মিলছেনা বোতলজাত সয়াবিন তেল। যে সব দোকানে পাওয়া যাচ্ছে তাতে লিটার প্রতি দাম নেয়া হচ্ছে ২০০ টাকা।

তেল নিয়ে এমন কারসাজিতে বোতলজাত সয়াবিন তেল উৎপাদনকারী কোম্পানির বিক্রয় প্রতিনিধি ও ডিলারদের দোষছেন খুচরা বিক্রেতারা। সরেজমিনে গেল দুইদিন উপজেলার বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা গেছে, মুদি দোকান গুলোতে নেই বোতলজাত সয়াবিন, কিছু দোকানে অল্প কিছু বোতল দেখা গেলেও চাহিদামত পাচ্ছে না ক্রেতারা। দোকানিরা জানিয়েছেন, বোতলজাত সয়াবিনের চেয়ে খোলা সয়াবিনের দাম বেশি থাকায় অনেকে কারসাজি করে বোতল থেকে বের করে খোলা হিসেবে বিক্রি করছে। এতে প্রতি কেজিতে প্রায় ২৫ টাকা বেশি দরে বিক্রি করতে পারছে তারা। ভূঞাপুর উপজেলার গোবিন্দাসী বাজারের মুদি দোকানি আল আমিন ও আব্দুল হালিম বলেন, রোজা ও ঈদকে সামনে রেখে বিভিন্ন তেল কোম্পানি গুলোর কারসাজিতে কৃত্রিম সংকট তৈরি করে দাম বাড়িয়েছে। তারা আরও বলেন, আমরা তেল কোম্পানির ডিলারদের কাছে তেলের অর্ডার দিলে বিভিন্ন শর্ত জুড়ে দেন। এক কাটুন তেলের সাথে ৫ কেজি ওজনের ১ প্যাকেট আটা, ৩ ডজন ধনিয়া, ৩ ডজন গুড়া মসলা, সরিষার তেল ইত্যাদি নিলেই কেবল ১ কাটুন তেল মিলবে। আরেক ব্যবসায়ী রফিকুল জানান, ১০ কাটুন সয়াবিন চাইলে ১ কাটুন পাওয়া যায়। এতে ক্রেতাদের দাহিদা পূরণ করা সম্ভব হচ্ছে না। তেল কিনতে আসা গোবিন্দাসী পোস্ট অফিসের পোস্ট মাস্টার আব্দুল মান্নান বলেন, হঠাৎ বাজারে সয়াবিন তেল নেই। এর আগে ১৮০ টাকা করে কিনেছিলাম। আজ ২০০ টাকা করে কিনলাম। আমাদের মতো নিম্ন আয়ের মানুষের পক্ষে এতো দাম দিয়ে তেল কেনা সম্ভব নয়।

আব্দুল মান্নানের মতো একই অভিযোগ শাহজাহান, জাহাঙ্গীর শফিকসহ আরো অনেকের। তারা বলেন, দোকানগুলোতে বোতলজাত সয়াবিন তেল নেই। যে সমস্ত দোকানে পাওয়া যাচ্ছে তা বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে। এবিষয়ে টাঙ্গাইল ভোক্তা সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারি পরিচালক সৈয়দা তামান্না তাসনীম বলেন, বিষয়টি ডিসি অফিসকে অবগত করেন। তারপরও আমি দেখছি কেন এমন হচ্ছে।

Previous articleভালো কাজ একা করা যায় না, সবাইকে সঙ্গে নেন: প্রধানমন্ত্রীকে জাফরুল্লাহ
Next articleএসএসসি পরীক্ষার রুটিন প্রকাশ, শুরু ১৯ জুন
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।