শফিকুল ইসলাম: জয়পুরহাটের আক্কেলপুরে পীর দাবিদার এক যুবককে লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে আহত করে তাঁর মাথার চুল ও দাঁড়ি কেটে দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। পুলিশ তাঁকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেছে। এ ঘটনায় থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মঙ্গলবার সকালে পীর দাবিদার ওই যুবকের বাবা বাদি হয়ে এ মামলাটি দায়ের করেন। আক্কেলপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার (ওসি) দায়িত্বে থাকা পরির্দশক (তদন্ত) আব্দুল মালেক মামলা দায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
আহত পীর দাবিদার ওই যুবকের নাম ইউসুফ হোসেন (২৮)। তিনি নওগাঁর বদলগাছী উপজেলার গন্ধর্বপুর উত্তরপাড়া গ্রামের আব্দুল বারী ওরফে দুলালের ছেলে।

মামলার এজাহার, ভুক্তভোগী ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ইউসুফ হোসেন নিজেকে পীর হিসেবে পরিচয় দিতেন। সেই সুবাদে তিনি তাঁর বাড়িতে পীরের আস্তানা গড়ে তোলেন। সেখানে তাঁর মুরিদরা যাতায়াত করতেন। প্রিন্স নামে যুবকের ইউসুফের বাড়ীতে যাতায়াত করতেন। কিছুদিন পর প্রিন্স মানসিক রোগে আক্রান্ত হন। পীর দাবিদার ইউসুফ হোসেন কবিরাজি ওষুধ খাইয়ে প্রিন্সকে মানসিক রোগী বানিয়েছেন বলে প্রিন্সের পরিবারের লোকজনের অভিযোগ। একারণে প্রিন্সের পরিবারের লোকজনেরা পীর দাবিদার ইউসুফের ওপর ক্ষিপ্ত ছিলেন। ঈদের দ্বিতীয় দিন সোমবার পীর দাবিদার ইউসুফের বাড়িতে আত্বীয় স্বজনেরা বেড়াতে আসার কথা ছিল। একারনে ইউসুফ তাঁর ভাগিনা বেলালকে সঙ্গে নিয়ে আক্কেলপুর উপজেলার জামালগঞ্জ বাজারে বাজার করতে আসছিলেন। পথে রুকিন্দীপুরের পুরাতন উপ স্বাস্থ্য কেন্দ্রে কাছে পৌঁছালে প্রিন্সের ভাই অন্তরে নেতৃত্বে ১০-১২ জনের একটি দল তাঁর পথ রোধ করে। তাঁরা পীর দাবিদার ইউসুফকে উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রের পুরাতন ভবনে নিয়ে আটকে রেখে তাঁকে লোহার রড দিয়ে বেধড়ক পেটান । এক পর্যায়ে তাঁরা ইউসুফকে জামালগঞ্জ রেলওয়ে ষ্টেশনের ওপর নিয়ে গিয়ে নাপিত ডেকে মাথার চুল ও মুখের দাড়ি কেটে নেন।

পীর দাবিদার আহত ইউসুফ হোসেন বলেন, আমি দীর্ঘদিন জঙ্গলে সাধনা করে পীর হয়েছি। এরপর বাড়িতে আস্তানা করেছি। আমার প্রায় ৪০০ জনের মতো ভক্ত রয়েছে। বাড়িতে ওরশ হলে অন্তর রাকিবেরা নেশা করতে চায়। আমি তা হতে দেয় না। তাই থেকে তাঁরা বিভিন্ন সময় হুমকি দিচ্ছিল। তাঁরা আমার আস্তানা ভেঙে ফেলতে চেয়েছিল। সেই জের ধরে তাঁরা আমাকে হত্যার উদ্দ্যেশে লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে মাথার চুল ও দাঁড়ি কেটে দিয়েছে। তাঁরা আমাকে দুপুর থেকে টানা বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত নির্যাতন করেছে। আমি বিচার চাই।

আক্কেলপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দায়িত্বে থাকা পরিদর্শক (তদন্ত) আব্দুল মালেক বলেন, ইউসুফ হোসেন নামে ওই যুবক নিজেকে পীর দাবি করে তাঁর বাড়িতে আস্তানা গড়ে তোলেন। সেখানে প্রিন্স নামে এক যুবক যাতায়াত করতেন। কিছুদিন পর প্রিন্স মানসিক রোগে আক্রান্ত হন। প্রিন্সের ভাই অন্তরের নেতৃত্বে ইউসুফকে পিটিয়ে আহত করে করে তাঁর মাথার চুল ও দাঁড়ি কেটে দিয়েছে। এঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। পুলিশ আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চালাচ্ছে।

Previous articleঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে বাস-সিএনজির সংঘর্ষে খালা-ভাগ্নি নিহত
Next articleসুবর্ণচরে বিয়ের প্রলোভনে কিশোরীকে ধর্ষণ, প্রেমিকের মা গ্রেফতার
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।