মিজানুর রহমান বুলেট: কলাপাড়ার ধুলাসার ইউনিয়নে ধূলাসার বহুমুখী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এস এস সি) নতুন কেন্দ্র অনুমোদন পেয়েছে। গত ২২ মে বরিশাল মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা র্বোডের এক চিঠির তথ্যানুযায়ী চলতি বছর অনুষ্টিতব্য ১৫ই সেপ্টেম্বর মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এস এস সি)পরীক্ষা পরিচালনার জন্য ধুলাসার (এস এস সি কেন্দ্র -৩৭৫) এ কেন্দ্র অনুমোদন দেয়া হয়। এ কেন্দ্রে ৫টি বিদ্যালয় ছাত্র/ ছাত্রীরা মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এস এস সি) পরীক্ষায় অংশ গ্রহন করবে।

বিদ্যালয় গুলো ধূলাসার বহুমুখী মাধ্যমিক বিদ্যালয়, শিশুপল্লী মাধ্যমিক বিদ্যালয়, মধুখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়, তুলাতলী মাধ্যমিক বিদ্যালয়, লালুয়া এস কে জে বী মাধ্যমিক বিদ্যালয়। ধূলাসার বহুমুখী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে এস এস সি পরিক্ষায় নতুন কেন্দ্রে ৩১৫জন ছাত্র/ ছাত্রী পরিক্ষা অংশ গ্রহন করবে। গত ২২ মে বরিশাল মাধ্যামক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা র্বোডের চেয়ারম্যান সাক্ষরিত এক চিঠির তথ্যানুযায়ী চলতি বছর অনুষ্টিতব্য ১৫ই সেপ্টেম্বর মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এস এস সি) পরীক্ষা পরিচালনার জন্য এ কেন্দ্র অনুমোদন দেয়া হয়।

স্বাক্ষরিত চিঠিতে জানা যায়, ধুলাসার ইউনিয়নে ধূলাসার বহুমুখী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এস এস সি) নতুন কেন্দ্র অনুমোদন পেয়েছে প্রধানমন্ত্রী সদয় সম্মতি প্রদান করেছেন। এ চিঠি কলাপাড়া এসে পৌঁছালে শিক্ষার স্বপ্নপূরণের আশায় এখন আশায় বুক বাঁধছে পিছিয়ে পড়া হাজার হাজার শিক্ষার্থীরা। নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা যায়, প্রধানমন্ত্রীর আন্তরিকতায় কলাপাড়ার ধুলাসার ইউনিয়নে ধূলাসার বহুমুখী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে এস এস সি নতুন কেন্দ্র অনুমোদন পেয়েছে। এতে পিছিয়ে পড়া উপকূলীয় এলাকার ৫টি বিদ্যালয় ছাত্র/ ছাত্রীরা এস এস সি পরীক্ষায় অংশ গ্রহন করবে। কেন্দ্রে ৩১৫ জন ছাত্র/ ছাত্রী পরিক্ষা অংশ গ্রহন করবে। শিক্ষার্থীরা এবার উচ্চ শিক্ষায়ও এগিয়ে যাবে। প্রধানমন্ত্রীর এ ঘোষণায় কলাপাড়া উপজেলার ওই ৫টি বিদ্যালয় ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে এখন চলছে উৎসবের আমেজ। কলাপাড়ার ৫টি বিদ্যালয়ের ছাত্র/ছাত্রীরা শুধুমাত্র আর্থিক সংকটের কারণে শিক্ষার্থীরা অনেক শিক্ষার্থী অষ্টম-নবম শ্রেনিতে ঝড়ে পড়ে টাকা খরচ বেশি হওয়ায় এসএসসি পরীক্ষা দিতে পারে না। গরিব ও অসহায় মানুষের পক্ষে অনেক খরচ ও বাসা/বাড়ী ভাড়া নিয়ে ছেলে মেয়েদের পরীক্ষা দেয়া মোঠেই সম্ভব হতো না। বাড়ী থেকে অনেক দুরত্ব গিয়ে পরীক্ষা দেয়া অনেক পরিবারের পক্ষে সম্ভব ছিল না। এখন বাড়ীর কাছে পরিক্ষার হল হওয়া সবার কাছে এস এস সি পরীক্ষা দেয়া সম্ভব হবে। এক রকম পা হেঁটে পরীক্ষার কেন্দ্র যাওয়া সম্ভব তবে তেমন কোন খরচ নেই। এতে খেটে খাওয়া ও নুন আনতে পান্তা ফুরায় এসব অসহায় গরিব মানুষের মেধাবী ছেলে/ মেয়েরা উচ্চ শিক্ষায়ও এগিয়ে যাবে। পিছিয়ে শিক্ষার্থীদের শিক্ষার আলোতে আলোকিত করতে এই বিদ্যালয়কে চলতি বছর অনুষ্টিতব্য মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এস এস সি) পরীক্ষা পরিচালনার জন্য এ কেন্দ্র অনুমোদন দেয়া সিদ্ধান্ত নিয়ে এলাকার মানুষকে উৎসব করার উপলক্ষ এনে দিয়েছেন।

এজন্য স্কুল কর্তৃপক্ষসহ গোটা কলাপাড়াবাসী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, শিক্ষামন্ত্রী ও স্কুল পরিচালনা পরিষদের সভাপতি স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব অধ্যক্ষ মহিবুুর রহমান এর কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। অভিভাবক শরিফ হাওলাদার জানান, আর্থিক সংকটের কারণে তার ছেলে ভালো ফলাফল করলেও বিগত ক্লাশে কিন্তু আমি মনে করছি অর্থের কারনে আমার ছেলেকে এস এস সি পরিক্ষা দিতে পারবে না। এখন বাড়ীর কাছেই এস এস সি পরীক্ষার কেন্দ্র অনুমোদন হওয়া আমার ছেলে বাড়ী খাওয়্ধাসঢ়; দাওয়া করে বাড়ী থেকে পরীক্ষায় অংশ গ্রহন করতে পারবে ইনশাল্লাহ। একাধিক অভিভাবক জানান, শুধুমাত্র আর্থিক সংকটের কারণে শিক্ষার্থীরা মেধাবী হওয়া সত্বেও অনেক শিক্ষার্থী অষ্টম-নবম শ্রেনিতে ঝড়ে পড়ে টাকা খরচ বেশি হওয়ায় এসএসসি পরীক্ষা দিতে পারে না । এবার এই চলতি বছর অনুষ্টিতব্য এস এস সি পরীক্ষার কেন্দ্র অনুমোদন হওয়া। এ অঞ্চলের এ কেন্দ্রে অনেক গরীব অসহায় ছাত্র/ ছাত্রীরা এস এস সি পরীক্ষায় দিতে পারবে। ধূলাসার বহুমুখী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের এস এস সি পরীক্ষার্থী মারিয়া আক্তার বলেন, আমার কাছে খুবই ভাল লাগলো যে, বাড়ীর কাছে কেন্দ্র হওয়ায় আমি মেয়ে মানুষ আমি বাড়ী থেকে আমার বিদ্যালয় গিয়ে এস এস সি পরিক্ষা দিবো এটা আমার কাছে আনন্দ ব্যাপার। বর্তমান সমাজে মেয়েরা সবচেয়ে অনিরাপদ। আমার বিদ্যালয় এস এস সি পরিক্ষার কেন্দ্র দেয়া জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, শিক্ষামন্ত্রী ও স্কুল পরিচালনা পরিষদের সভাপতি স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব অধ্যক্ষ মহিবুুর রহমান এর কাছে কৃতজ্ঞতা জানাছি। তুলাতলী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. দেলোয়ার হোসেন বলেন, এস এস সি পরিক্ষার কেন্দ্র কাছা কাছি হওয়ায় ছেলে মেয়েদের অনেক সুবিধা হয়েছে। কম খরছে গাড়ী ভাড়া ও বাড়ী খেয়ে পরিক্ষায় অংশ গ্রহন করতে পারবে। ধূলাসার বহুমুখী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও কেন্দ্র হল সচিব মো. ইব্রাহিম বলেন, আমার কেন্দ্র সুষ্ট ও সুন্দর ভাবে এস এস সি পরীক্ষা নেওয়ার চেষ্ট করবো। বর্তমান সরকারের সময়ে পড়াশুনা, সহশিক্ষা কার্যক্রমগুলোতে বরিশাল বিভাগে ভালো কৃতিত্বের সাথে এগিয়ে যাচ্ছে।

এ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকগণ যথাসম্ভব সর্বোচ্চ শিক্ষাদান ও সেবার মাধ্যমে এ পর্যন্ত হাজার হাজার শিক্ষার্থীদের প্রকৃত শিক্ষার জ্ঞানে আলোকিত করেছেন। এজন্য অশেষ কৃতজ্ঞতা। কলাপাড়া উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. মোকলেছুর রহমান বলেন, আমরা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সুন্দর ভাবে পরিক্ষার নেওয়ার ব্যবস্থা করবো। পরিক্ষা নেওয়ার সময় নির্বাহী কর্মকর্তা সভাপতি থাকেন তিনি সুন্দর ভাবে ছাত্র/ছাত্রীরা পরিবেশে পরিক্ষা দিতে পারে তার ব্যবস্থা তিনি করেন। স্থানীয় সংসদ সদস্য পটুয়াখালী-৪, আলহাজ্ব অধ্যক্ষ মহিবুুর রহমান বলেন,ওই এলাকাটা খুবই দুর্গম । ছেলে/ মেয়েরা ঠিকমত পড়া লেখা করতে পারে না। এখন নতুন পরিক্ষার কেন্দ্র হওয়া ওই এলাকার অভিভাবকেরা অনেক অর্থনৈতিক ভাবে লাভবান হবে। তাদের তেমন পরিবহন ও বাসা ভাড়া কোন খরচ হবে না। আমি চাই ছেলে/মেয়েরা কম খরছে লেখা পড়া করে মানুষ হতে পারে সেজন্য আলহাজ্ব জালাল উদ্দিন কলেজ ও ধুলাসার বহুমুখী মাধ্যমিক বিদ্যালয় দু’টি এস এস সি এবং এইচ এস সি পরিক্ষার কেন্দ্র পরিক্ষা দিবে।

Previous articleদেশকে অকার্যকর ও ব্যর্থরাষ্ট্রে পরিণত করার ষড়যন্ত্র হচ্ছে: শামীম ওসমান
Next articleকালিহাতীতে রাস্তা বন্ধ করায় অবরুদ্ধ তিনটি পরিবার
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।