মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২৪
Homeসারাবাংলাসিলেটে অবিরাম বর্ষণে এবারো বন্যার আশঙ্কা

সিলেটে অবিরাম বর্ষণে এবারো বন্যার আশঙ্কা

বাংলাদেশ প্রতিবেদক: গত বছরের ভয়াবহ বন্যার ধকল যেতে না যেতেই সিলেটে আবারো বন্যার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। গত তিন দিন ধরে টানা বৃষ্টি হচ্ছে সিলেটে। এই বৃষ্টি আরো ১৫ দিন অব্যাহত থাকবে বলে জানা গেছে।

এছাড়া, ব্যাপক বৃষ্টি হচ্ছে সিলেটের উজানে ভারতের মেঘালয় রাজ্যে। ফলে ঢল নামছে। ঢল আর বৃষ্টিতে সিলেটের নদনদীর পানি বেড়েই চলছে।

পানি বিপদসীমা ছুঁইছুঁই করছে। ঢল আর বৃষ্টি অব্যাহত থাকলে চলতি সপ্তাহেই মাঝারি ধরনের বন্যা হতে পারে বলে আশংকা করা হচ্ছে।

তাই সম্ভাব্য বন্যা মোকাবেলায় প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে জেলা প্রশাসন।

এদিকে ঢলে ইতোমধ্যে সিলেটের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত এবং বিভিন্ন হাওরে পানি ঢুকতে শুরু করেছে। এছাড়া বাড়ছে নদীর পানিও।

শুক্রবার (১৬ জুন) সন্ধ্যায় সিলেট পানি উন্নয়ন বোর্ড সুরমা ও কুশিয়ারা নদীতে পানি বেড়েছে বলে জানিয়েছে।

বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আশিফ আহমেদ জানান, নদীর পানি বিপৎসীমার কাছাকাছি অবস্থান করছে। সামান্য বাড়লেই তা অতিক্রম করবে।

তিনি আরো জানান, একইসাথে হাওর ও নিম্নাঞ্চলে পানি প্রবেশ করছে।

সুরমা নদীর কানাইঘাট পয়েন্টে বিপৎসীমার ১২.৭৫ সেন্টিমিটারের মধ্যে ১২.৬৮ এবং সুরমা নদীর পয়েন্টে ১০.৮ সেন্টিমিটার বিপৎসীমার মধ্যে ৯.৩৮ সেন্টিমিটার উচ্চতায় পানি প্রবাহিত হচ্ছে। একই অবস্থা এ দুই নদীর অন্যান্য পয়েন্টেও।

শুক্রবার সিলেটে ১৩৫ মিলিমিটার এবং এর আগের ২৪ ঘণ্টায় ২২১ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। ভারী বর্ষণে নগরীতে জলাবদ্ধতাও দেখা দিচ্ছে।

এছাড়া শনিবার সকাল থেকে থেমে বৃষ্টিপাত হচ্ছে।

এর আগে গতবছর সিলেটে স্মরণকালের সবচেয়ে ভয়াবহ বন্যা হয়। এতে তলিয়ে গিয়েছিল সিলেটের ৭০ শতাংশ এলাকা। ক্ষতিগ্রস্ত হয় জেলার প্রায় সব মানুষ।

বন্যায় ভেঙে যায় প্রায় ১০ হাজার ঘরবাড়ি। গতবারের বন্যার ধকল এখনো কাটিয়ে উঠতে পারেনি ক্ষতিগ্রস্তরা।

আবহাওয়া অধিদফতরের সিলেট কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, গত বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা থেকে শুক্রবার সকাল ৬টা পর্যন্ত ১৩৫ দশমিক ৪ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। আর সকাল ৬টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত বৃষ্টি হয়েছে ৭৫ মিলিমিটার। এর আগে বুধবার সকাল ৬টা থেকে বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা পর্যন্ত ২৭১ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়।

সিলেটের সহকারী আবহাওয়াবিদ শাহ মো: সজীব হোসাইন বলেন, আগামী ৪৮ ঘণ্টা সিলেটে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। এজন্য সবাইকে সতর্ক থাকা প্রয়োজন। বিশেষ করে সীমান্তবর্তী এলাকাগুলোতে পাহাড়ি ঢল নামতে পারে।

বর্ষণ ও পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকলে বন্যার আশঙ্কা থেকে বৃহস্পতিবার সিলেটের জেলা প্রশাসন জরুরি সভা করে আগাম বন্যার প্রাথমিক প্রস্তুতিও নিয়েছে।

এছাড়া ত্রাণ ও আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত রাখতে নির্দেশ দিয়েছেন জেলা প্রশাসক মো: মজিবর রহমান।

এদিকে, সিলেটের গোয়াইনঘাটে পাহাড়ি ঢলে প্লাবিত হয়েছে নিম্নাঞ্চল। গেল বছর এই দিনে গোয়াইনঘাট আক্রান্ত হয়েছিল স্মরণকালের ভয়াবহ বন্যায়।

ঠিক একই দিন, একই তারিখে এবারো পাহাড়ি ঢলে আক্রান্ত হলো গোয়াইনঘাটের নিম্নাঞ্চল।

গত ১৩ জুন রাত থেকে ভারী বর্ষণ শুরু হলে পাহাড়ি ঢলে ভরে যায় নদ-নদী। শুক্রবার নিমজ্জিত হয় হাওর এলাকা। হাওরবাসী রয়েছেন পানিবন্দী। নেই মহিষ চরানোর জায়গা।

পাহাড়ি ঢলে বিচ্ছিন্ন রয়েছে পিরিজপুর-সোনারহাট সড়ক যোগাযোগ।

অন্যদিকে, উনাই ব্রিজ নির্মাণে ধীর গতির কারণে শুরু হয়েছে শিক্ষার্থীসহ লাখ মানুষের দুর্ভোগ। ব্রিজটিতে খেয়া পারাপার হয়ে আসতে হচ্ছে গোয়াইনঘাট সদরে। ফলে অন্তহীন ভোগান্তিতে পড়েছেন মানুষ।

ভারী বর্ষণ অব্যাহত থাকায় গত বছরের মতো মহাদুর্যোগের শঙ্কা করছেন সিলেটবাসী।

আজকের বাংলাদেশhttps://www.ajkerbangladesh.com.bd/
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।
RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments