সোমবার, মার্চ ৪, ২০২৪
Homeসারাবাংলারংপুরে ৬টি আসনে আ'লীগ ও জাতীয় পার্টির মনোনয়ন প্রত্যাশীদের দৌড় ঝাঁপ শুরু

রংপুরে ৬টি আসনে আ’লীগ ও জাতীয় পার্টির মনোনয়ন প্রত্যাশীদের দৌড় ঝাঁপ শুরু

জয়নাল আবেদীন: দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে রংপুর জেলার ৮টি উপজেলার ৬ আসনে আওয়ামীলীগ ও জাতীয় পার্টির মনোনয়ন প্রত্যাশীদের দৌড় ঝাঁপ শুরু হয়েছে। বিএনপি-জামাতসহ কিছু দলের নির্বাচনী কর্মসূচী প্রকাশ্যে দেখা না গেলেও তারাও গোপনে গোপনে প্রচার প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে । আর নানা কর্মসূচীর মধ্য দিয়ে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা জানান দিচ্ছেন তারা মাঠেই আছেন এবং ব্যস্ত সময় পার করছেন নির্বাচন নিয়ে।

আওয়ামী মনোনয়ন প্রত্যাশীগণ সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ড তুলে ধরছেন নানা ভাবে। কেন্দ্রীয় নেতাদের সাথে যোগাযোগ বাড়িয়ে জনগণের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন। সারা দেশের ন্যায় রংপুরের ৬টি আসনের সংসদ সদস্যরা আওয়ামী দলীয় মনোনয়ন হারাতে পারেন বলে আলোচনা চলছে কেন্দ্রে, যার সংকেত ইতিমধ্যে হাইকমান্ড থেকে দেয়া হয়েছে। এ সব আসনের দৌড় ঝাঁপ অনেক বেশী রংপুরও পিছিয়ে নেই। এবার রংপুরের ৬টি আসনে ৩০/৩৫ জনের নাম শোনা যাচ্ছে তবে কার ভাগ্যে দলীয় মনোনয়ন জুটবে তা নিশ্চিত করে কেউ বলতে পারছেন না ।

৬টি আসনের বর্তমান সংসদ সদস্যরা হলেন আসন-১ (গঙ্গাচড়া ও আংশিক রংপুর সিটি কর্পোরেশন) জাপা নেতা ও বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ মশিউর রহমান রাঙ্গা। আসন-২ (বদরগঞ্জ ও তারাগঞ্জ) আওয়ামী যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আবুল মোঃ আহসানুল হক চৌধুরী ডিউক। আসন-৩ (সদর ও রংপুর সিটি কর্পোরেশনের একাংশের মূল অংশ) এরশাদ পুত্র জাতীয় পার্টির রাহগীর আল মাহী সাদ এরশাদ। আসন-৪ পীরগাছা-কাউনিয়া) বাংলাদেশ সরকারের বাণিজ্য মন্ত্রী টিপু মুনশি। আসন-৫ (মিঠাপুকুর) আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির কোষাধ্যক্ষ এইচএন আশিকুর রহমান। আসন-৬ (পীরগঞ্জ) জাতীয় সংসদের স্পীকার ড. শিরিন শারমিন চৌধূরী। বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা প্রায় ২/৩ বছর আগে থেকেই জানান দিচ্ছেন। সরকার ১৫ বছর ক্ষমতায় তাই মনোনয়ন প্রত্যাশীরা ১৫ বছরে দেশের উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরছেন। উন্নয়ন কর্মকান্ড তুলে ধরে সভা-সমাবেশ, শোভাযাত্রা, পথসভা করে যাচ্ছেন।

এ ছাড়াও মসজিদ, মন্দির, গির্জাসহ উপাসনালয়গুলোতে গণসংযোগ করা। কেন্দ্রীয় নেতাদের সাথে যোগাযোগ করে যাচ্ছেন মনোনয়নের জন্য। রংপুর আসন-১ গঙ্গচড়ায় দেখা যাচ্ছে জাতীয় পার্টির নেতা বর্তমান সংসদ সদস্য মশিউর রহমান রাঙ্গা ছাড়াও রয়েছেন জাতীয় পার্টির অপর নেতা এরশাদের ভাতিজা শাহরিয়ার আসিফ। আওয়ামীলীগ থেকে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী রংপুর জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এড. রেজাউল করীম রাজু, গঙ্গাচড়া উপজেলা চেয়ারম্যান রুহুল আমীন, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান বাবলু, কেন্দ্রী যুবলীগের সদস্য রবিউল ইসলাম রেজভির নামও শোনা যাচ্ছে।

রংপুর আসন-২ বদরগঞ্জ-তারাগঞ্জে সংসদ সদস্য আবুল কালাম মোঃ আহসানুল হক চৌধুরী ডিউক ছাড়াও রয়েছে কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় যুগ্ন সম্পাদক ও বদরগঞ্জ উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান কৃষিবীদ বিশ^নাথ সরকার বিটু, বদরগঞ্জ পৌরসভার সাবেক মেয়র উত্তম কুমার সাহা, আওয়ামীলীগ নেত্রী সুমনা আক্তার লিলি। এ আসনের জাসদ (ইনু) থেকে মনোনয়ন চাইবেন ইউপি চেয়ারম্যান কুমারেশ রায়। বিএনপি‘র প্রার্থী সাবেক সাংসদ পরিতোষ চক্রবর্তী । রংপুর আসন-৩ বর্তমান সংসদ সদস্য জাতীয় পার্টির এরশাদ পুত্র রাহগীর আল মাহী সাদ এরশাদ। জাপার শীর্ষ সুত্রে জানা গেছে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের নিজেই এ আসনে নির্বাচন করবেন ।

আওয়ামীলীগ হতে মনোনয়ন প্রত্যাশী তুষার কান্তি মন্ডল, মমতাজ উদ্দিন আহমেদ,শফিয়ার রহমানসহ অনেকে থাকলেও একমাত্র জাপার সাথে প্রতিদ্বিতা করার যোগ্যতা রাখে সদর উপজেলা তিন বারের নির্বাচিত চেয়ারম্যান নাছিমা জামান ববি । বিএনপির আছেন সামু, নাজু, হাবিবুন্নবী খান সোহেল, কাওছার জামান বাবলা। রংপুর আসন-৪ ( কাউনিয়া-পীরগাছা) সংসদ সদস্য বর্তমান বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। তিনি ছাড়াও কাউনিয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শিল্পপতি আনোয়ারুণ ইসলাম মায়া,যুবলীগের কেন্দ্রীয় সহ-সম্পাদক আনোয়ারুল ইসলাম মাসুদ, ব্যারিষ্টার আনোয়ার হোসেন, জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ন আহবায়ক মাজেদ আলী বাবুল, রংপুর জজকোটের আইনজীবী পিপি রফিক হাসনাইন দলীয় মনোনয়ন চাইবেন। আর যদি বিএনপি নির্বাচনে অংশ নেয় তাহলে এই আসনে শক্তিশালী এক প্রার্থী আছেন তিনি হলেন এমদাদুল হক ভরসা ।

রংপুর আসন-৫ (মিঠাপুকুর) সংসদ সদস্য আওয়ামীলীগের এইচএন আশিকুর রহমান ( তিনি এবার প্রার্থী হবেন না) তার ছেলে উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ন আহবায়ক রাশেক রহমান, উপজেলা চেয়ারম্যান জাকির হোসেন সরকার ও জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক যুগ্ন সম্পাদক মোতাহার হোসেন মন্ডল মওলা । জাতীয় পার্টির প্রার্থী মো: জাহাঙ্গির বিএনপি‘র তেমন কোন প্রার্থী নেই তবে জামাতের এক নেতা রয়েছেন

রংপুর আসন-৬ (পীরগঞ্জ) সংসদ সদস্য জাতীয় সংসদের স্পীকার ড. শিরীন শারমীন চৌধুরী । এবারও তাঁর এই আসন থেকে নির্বাচন করার কথা রয়েছে । তবে তিনি নির্বাচন না করলে একমাত্র গ্রহণ যোগ্য প্রার্থী হচ্ছেন পীরগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান নুর মোহাম্মদ মন্ডল। বিএনপি প্রার্থী দলের জেলা আহবায়ক সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম । দ্বাদশ সংসদ নির্বাচন যতই ঘনিয়ে আসছে ততই অন্যান্য দলের দেখা না মিললেও আওয়ামীলীগ ও জাতীয় পার্টির নেতাকর্মিদের মাঝে বেশ নির্বাচনী উৎসাহ বিরাজ করছে। উল্লেখ্য জাপার দুর্গ বলে খ্যাত এরশাদের রংপুরে আগের সেই জাপার ইমেজ নেই । নেই মানুষের লাঙ্গল প্রীতি । এরশাদের জীবদ্দশায় এ অঞ্চলের মানুষের যে টান

ছিলো এরশাদের মৃত্যুর পর এখন আর সেই টান নেই । তবে কেউ কেউ ব্যক্তি ইমেজে জাপাকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন । যার উদকৃষ্ট উদাহরণ হলেন রংপুর সিটি মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা । লাঙ্গলের চেয়ে তার ব্যক্তি ইমেজ অনেক বেশি ।

আজকের বাংলাদেশhttps://www.ajkerbangladesh.com.bd/
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।
RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments