রবিবার, জুন ২৩, ২০২৪
Homeঅপরাধসাবেক সেনাপ্রধান আজিজের ২ ভাইয়ের জালিয়াতি: ইসি-পাসপোর্ট দপ্তরে দুদকের চিঠি

সাবেক সেনাপ্রধান আজিজের ২ ভাইয়ের জালিয়াতি: ইসি-পাসপোর্ট দপ্তরে দুদকের চিঠি

বাংলাদেশ প্রতিবেদক: সাবেক সেনাপ্রধান জেনারেল (অব.) আজিজ আহমেদের দুই ভাই হারিস আহমেদ ও তোফায়েল আহমেদ জোসেফের জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) ও ই-পাসপোর্ট জালিয়াতির তথ্য চেয়ে নির্বাচন কমিশন (ইসি) এবং ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরে চিঠি দিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

সোমবার রিপোর্টার্স এগেইনস্ট করাপশনের (র‌্যাক) সঙ্গে এক মতবিনিয়ম অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি দুদক চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মঈনউদ্দীন আবদুল্লাহ এসব কথা বলেন। রাজধানীর সেগুনবাগিচায় দুদকের প্রধান কার্যালয়ে এ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় দুদক কমিশনার মো. জহুরুল হক, মোছা. আছিয়া খাতুন, দুদক সচিব খোরশেদা ইয়াসমীন, প্রিন্ট, অনলাইন ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

দুদক চেয়ারম্যান আরও বলেন, সাবেক সেনাপ্রধান আজিজ আহমেদের বিরুদ্ধে তাঁর দুই ভাইয়ের এনআইডি ও ই-পাসপোর্ট করার ক্ষেত্রে প্রভাবিত করার একটি অভিযোগের প্রাথমিক অনুসন্ধান করা হচ্ছে। তারই অংশ হিসেবে সরকারের ওই দুই প্রতিষ্ঠানে চিঠি পাঠিয়ে তথ্য চাওয়া হয়েছে।

চেয়ারম্যান পুলিশের সাবেক মহাপরিদর্শক বেনজীর আহমেদ, তাঁর স্ত্রী ও দুই মেয়ে সময় চেয়ে আবেদন করেছেন। তাদের আবেদন বিবেচনা করে অনুসন্ধান টিম তাদেরকে সময় দিয়েছে। অভিযোগ সংশ্লিষ্ট কোনো ব্যক্তি এই পর্যায়ে সময় চাইলে আইন ও বিধি অনুযায়ী তাদেরকে সময় সময় দেওয়া হয়। এই ক্ষেত্রে তাই হয়েছে।

গত মাসের শেষ দিকে আজিজ আহমেদের বিরুদ্ধে দুর্নীতির একটি অভিযোগ কমিশন পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেছে। এর পর সেটি দুদকের যাচাই-বাছাই কমিটিতে (যাবাক) পাঠানো হয়। যাবাকের যাচাইয়ের পর তাঁর দুই ভাইয়ের এনআইডি ও ই-পাসপোর্ট সম্পর্কিত তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে।

সাবেক ওই সেনাপ্রধানের বিরুদ্ধে অভিযোগগুলোর মধ্যে রয়েছে, মিথ্যা তথ্য দিয়ে ২০১৪ সালে মোহাম্মদ হাসান নামে সাবেক সেনাপ্রধানের এক ভাই হারিছ আহমেদ এনআইডি নিয়েছিলেন। ২০১৯ সালে তিনি এনআইডিতে নিজের ছবি পরিবর্তন করেন। আর ওই ছবি পরিবর্তনের জন্য সুপারিশ করেছিলেন সাবেক সেনাপ্রধান আজিজ আহমেদ।

আজিজ আহমেদের আরেক ভাই তোফায়েল আহমেদ জোসেফ দু’টি এনআইডি নিয়েছেন। এর একটি মিথ্যা তথ্য দিয়ে, তানভির আহমেদ তানজীল নামে। অন্যটি নিয়েছিলেন তোফায়েল আহমেদ জোসেফ নামে। মিথ্যা তথ্য দিয়ে এনআইডি গ্রহণ করা ও একাধিক এনআইডি নেওয়া আইন অনুযায়ী শাস্তিযোগ্য অপরাধ। এরপরও ওই দুই সহোদরের বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশন কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। এছাড়া আজিজ আহমেদ ও তাঁর পরিবারের অন্য সদস্যদের বিরুদ্ধে অন্যান্য অনিয়ম, দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে।

আজকের বাংলাদেশhttps://www.ajkerbangladesh.com.bd/
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।
RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments