উন্নয়ন বৈষম্যের কারণে রংপুরে শিল্পায়ন হচ্ছে না

জয়নাল আবেদীন:রংপুর বিভাগের ধারাবাহিক শিল্প উন্নয়ন কার্যক্রম প্রণয়ন এবং বাস্তবায়ন করার লক্ষ্যে মত বিনিময় রংপুর বিভাগের ব্যবসায়ী ও শিল্পোদ্যোক্তারা বলেছেন উন্নয়ন বৈষম্যের কারণে রংপুর অঞ্চলে শিল্পায়ন হচ্ছে না। ফলে কর্মসংস্থান সৃষ্টি না হওয়ায় রংপুর বিভাগে দিন দিন দারিদ্র্যের হার বাড়ছে। তাই রংপুর বিভাগের দারিদ্রের হার হ্রাসে প্রয়োজন দ্রুত শিল্পায়ন। শনিবার রংপুর চেম্বার ভবনের আরসিসিআই অডিটরিয়ামে দিনব্যাপী বাংলাদেশ চেম্বার অব ইন্ডাষ্ট্রিজ (বিসিআই) উদ্যোগে এই সভা অনুষ্টিত হয়। রংপুর চেম্বার অব কমার্স এ্যান্ড ইন্ডাষ্ট্রি’র সভাপতি মোস্তফা সোহরাব চৌধুরী টিটুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মত বিনিময় সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ চেম্বার অব ইন্ডাষ্ট্রিজ বিসিআইর সভাপতি ও বিজিএমইএ এর সাবেক সভাপতি ইভেন্স গ্রুপের চেয়ারম্যান আনোয়ার-উল আলম চৌধুরী (পারভেজ)। সভায় বক্তব্য রাখেন এফবিসিসিআই‘র সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট ও বিসিআই এর সাবেক সভাপতি মোস্তফা আজাদ চৌধুরী বাবু, বিসিআই এর ভাইস প্রেসিডেন্ট ও ইউনির্ভাসেল মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল এর চেয়ারম্যান প্রীতি চক্রবর্তী, বিসিআই এর পরিচালক ও সেমিনার ও সিম্পোজিয়াম স্ট্যান্ডিং কমিটির চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন রাজা, বিসিআই এর পরিচালক আবুল কালাম ভূইয়া, দিনাজপুর চেম্বারের সভাপতি সুজাউর রব চৌধুরী, নীলফামারী চেম্বারের সিনিয়র সহ-সভাপতি ফারহানুল হক, রংপুর মেট্রোপলিটন চেম্বারের সিনিয়র সহ সভাপতি মোঃ গোলাম জাকারিয়া পিন্টু, পঞ্চগড় চেম্বারের পরিচালক মোঃ খলিলুর রহমান, ঠাকুরগাঁও চেম্বারের পরিচালক মামুনুর রশিদ, রংপুর উইমেন চেম্বারের সিনিয়র সহ সভাপতি মিসেস শাহনাজ পারভীন,গাইবান্ধা চেম্বারের সভাপতি আলহাজ¦ শাহজাদা আনোয়ারুল কাদির, কুড়িগ্রাম চেম্বারের সহ-সভাপতি অলক সরকার, লালমনিরহাট চেম্বারের সিনিয়র সহ-সভাপতি কাজী নজরুল ইসলাম তপন

বক্তারা বলেন, গ্যাস সরবরাহ না করা হলে কোনভাবেই এ অঞ্চলে শিল্পায়ন সম্ভব নয়। কেননা এ অঞ্চলে গ্যাস সরবরাহ নিশ্চিত হলে এসব জেলা থেকে ভারত, নেপাল ও ভুটানের সঙ্গে বাণিজ্য বাড়ার ব্যাপক সম্ভাবনা রয়েছে। তাই বক্তারা রংপুর বিভাগে দেশি-বিদেশী বিনিয়োগ আকৃষ্ট করার লক্ষ্যে অবকাঠামোগত উন্নয়নের পাশাপাশি এ অঞ্চলের জন্য আলাদা শিল্প ও ঋণনীতি, ভ্যাট ও কর নীতি প্রণয়ন, আইসিটি শিল্পের উন্নয়নে রংপুরে প্রস্তাবিত হাইটেক পার্ক দ্রæত স্থাপন, ওয়ান স্টপ সার্ভিস চালু, অঞ্চল ও জেলা ভিত্তিক শিল্পায়নের উদ্যোগ গ্রহণ, দক্ষ শ্রমিক তৈরিতে কারিগরি বিশ^বিদ্যালয় ও সার কারখানা স্থাপনসহ ট্যাক্স হলিডের মেয়াদ বৃদ্ধির আহŸান জানান। এছাড়া বক্তারা অভিমত ব্যক্ত করে বলেন দেশের অন্যান্য বিভাগের মতো ব্যাংক ঋণের সুদের হার বহাল রাখা হলে কোন অবস্থাতেই রংপুর বিভাগে ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রসার ঘটবে না। তাছাড়া বর্তমান সরকারের বাস্তবায়নাধীন মেগা প্রকল্পগুলোর দিকে দৃষ্টি দিলে দেখা যায়, বেশির ভাগ ঢাকা ও দক্ষিণাঞ্চল কেন্দ্রিক। অন্যান্য বিভাগে দু'একটি থাকলেও একটিও মেঘা প্রকল্পের বরাদ্দ নেই রংপুর বিভাগে। সে কারণে বাংলাদেশ চেম্বার অব ইন্ডাষ্ট্রিজ (বিসিআই)-কে এগিয়ে এসে অর্থনৈতিকভাবে পিছিয়ে পড়া এ অঞ্চলের শিল্পায়নের গতি ত্বরান্বিত করতে ব্যবসায়ীক বিভিন্ন সমস্যা নিরসন ও অবকাঠামোগত উন্নয়নে নীতি-সহায়তা প্রদানের দাবি জানান ব্যবসায়ীরা নেতারা।

মত বিনিময় সভায় উদ্যোক্তারা জানান, এ অঞ্চলে কৃষিভিত্তিক এবং তৈরি পোশাকশিল্প স্থাপনের বিপুল সম্ভাবনা রয়েছে। এছাড়াও প্রতি জেলায় স্ব স্ব পণ্যের ওপর ভিত্তি করে শিল্প গড়ে তোলার ওপরও তারা গুরুত্বারোপ করেন। নারী উদ্যোক্তাগণ এসএমই প্রতিষ্ঠায় সরকার প্রদত্ত ঋণ প্রদান নীতিমালা যথাযথভাবে পরিপালন এবং হয়রানি ও জামানত- গ্যারান্টি ছাড়া ঋণ প্রদান নিশ্চিত করার জন্য বিশেষ দাবি জানান।