রাবিতে আমরন অনশনের তৃতীয় দিনে অসুস্থ ৩৫ শিক্ষার্থী

বাংলাদেশ প্রতিবেদক: বিভাগের নাম পরিবর্তনের দাবিতে টানা তৃতীয় দিনের মতো ‘আমরণ অনশন’ চালিয়ে চাচ্ছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) পপুলেশন সায়েন্স অ্যান্ড হিউম্যান রিসোর্স ডেভেলপমেন্ট বিভাগের শিক্ষার্থীরা।
বুধবার সকাল ১০টা থেকে শুক্রবার পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের স্যার জগদীশ চন্দ্র বসু একাডেমিক ভবনের সামনে ফলিত পরিসংখ্যান বিভাগ নামে নামকরণের দাবিতে আমরণ অনশন করে আসছে তারা। এতে প্রায় ৩৫ শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়েছে।
অসুস্থরা রাবির মেডিকেল সেন্টারে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ৪১ ও ৪২ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
অসুস্থ শিক্ষার্থীরা হলেন- তপশ্রী শারনাল, সোহাগ, নিশি খাতুন, মোবাশশির উল্লাহ, আবির হাসান, আয়নাল, সাগর নাঈম, ফারজানা ইয়াসমিন লিজা, অর্পিতা পূজা, শুলেখা খাতুনসহ ৩৫ জন। এদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে।
দেখা গেছে, সমস্যায় জর্জরিত বিভাগের নামের, সময় এসেছে পরিবর্তনের এমন ব্যানার ঝুলিয়ে তার সামনে শুয়ে অবস্থান করছেন শিক্ষার্থীরা। এদের মধ্যে অনেকের শরীরে স্যালাইন ঝুলানো রয়েছে। আবার অনেকেই কাতরাতে কাতরাতে বিভাগের নাম পরিবর্তন চাই, পরিবর্তন চাই এমন শ্লোগান দিচ্ছেন। জীবন শেষ হয়ে গেলেও বিভাগের নাম পরিবর্তন না হওয়া পর্যন্ত অনশন কর্মসূচি থেকে ফিরে আসবেন না বলে জানিয়েছেন শিক্ষার্থীরা।
বিভাগের তৃতীয়বর্ষের শিক্ষার্থী ইয়াকুব আলী সজিব যুগান্তরকে জানান, অনেক আশ্বাস দেয়া হয়েছে তবে বাস্তবে প্রতিফলন ঘটেনি। এমন পরিস্থিতির জন্য বিভাগের শিক্ষকদের অবহেলাকে দায়ী করেন তিনি।
তিনি বলেন, এখন আমাদের দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে, কোনো আশ্বাস শুনতে চাই না, বাস্তবায়ন চাই, নাম পরিবর্তন না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাব। আরও বলেন আগামী দুই মার্চ বসার কথা রয়েছে। সেখানে সমাধান না হলে কর্মসূচি চলতেই থাকবে বলে জানান।
এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র উপদেষ্টা প্রফেসর ড. লায়লা আরজুমান বানু ও প্রক্টর প্রফেসর ড. লুৎফর রহমান অনশনরত শিক্ষার্থীদের সার্বক্ষণিক খোঁজ খবর নিলেও বিভাগের শিক্ষকরা কোনো খোঁজ খবর নিচ্ছেন না বলে অভিযোগ করেছেন শিক্ষার্থীরা। এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন শিক্ষার্থীরা।
বৃহস্পতিবার দুপুর ১টায় ঘটনাস্থলে হাজির হন বিশ্ববিদ্যালয় ভিসি প্রফেসর ড. এম আবদুস সোবহান।
সেখানে শিক্ষার্থীদের দাবিগুলো শুনেন। আগামী দুই মার্চ বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ও বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের সঙ্গে বসে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে আশ্বস্থ করেন। এরপরও শিক্ষার্থীরা ভিসির প্রস্তাবকে প্রত্যাখান করে পুনরায় অনশন শুরু করেন। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত এ অনশন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন।
প্রসঙ্গত, গত ১৯ জানুয়ারি থেকে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে মানববন্ধন, অবস্থানসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে আসছে বিভাগটির শিক্ষার্থীরা।

Previous articleমোদিকে কোনোভাবেই বাংলাদেশে ঢুকতে দেয়া হবে না: কাসেমী
Next articleদিল্লিতে অন্তঃসত্ত্বার পেটে উপর্যুপরি লাথি, জন্ম নিলো ‘মিরাকল শিশু’
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।