কেন্দ্রে ডেকে ঢাবির সান্ধ্যকালীন এমবিএ ভর্তি পরীক্ষা বাতিল

বাংলাদেশ প্রতিবেদক: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিতর্কিত সান্ধ্যকালীন এমবিএ কোর্সের ভর্তি পরীক্ষার জন্য কেন্দ্রে ডেকে খুদেবার্তা দিয়ে আবার সেই পরীক্ষা বাতিল করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

শুক্রবার (২০ নভেম্বর) সকাল ১১ থেকে ১২টা পর্যন্ত রাজধানীর আজিমপুর গভর্নমেন্ট গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজে এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। ভর্তি পরীক্ষার বিষয়ে উপাচার্য অবগত নন বলে দাবি করেন উপাচার্য ড. আখতারুজ্জামান।

মহামারি পরিস্থিতিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের সব বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাস এবং একাডেমিক পরীক্ষা স্থগিত রয়েছে। বাতিল হয়েছে সব ধরনের পাবলিক পরীক্ষাও। সেখানে অত্যন্ত গোপনীয়তার সঙ্গে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিতর্কিত সান্ধ্যকালীন এমবিএ কোর্সে গোপনীয়তার সঙ্গে ভর্তি পরীক্ষা নেওয়ার বিজ্ঞপ্তি দেয় ব্যবসা প্রশাসন অনুষদ।

সান্ধ্যকালীন এমবিএ ৪৫তম ব্যাচের এই ভর্তি পরীক্ষার জন্য রাজধানীর আজিমপুর গভর্নমেন্ট গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজে কেন্দ্রও নির্ধারণ করা হয়। সেই অনুযায়ী শুক্রবার সকালে ১১টায় এক ঘণ্টাব্যাপী ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিতে হাজারের বেশি শিক্ষার্থী কেন্দ্রে পৌঁছায়। তবে গণমাধ্যমে খবরটা প্রকাশ পেলে পরীক্ষা শুরুর আধা ঘণ্টা আগে খুদেবার্তা দিয়ে পরীক্ষা বাতিল করা হয়।

এক শিক্ষার্থী বলেন, ‘ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সন্ধাকালীন একটা কোর্স ছিল। হঠাৎ করে ১০ দিন আগে এসএমএস করে জানানো হয়েছিল যে পরীক্ষা হবে। কিন্তু হলে যখন পরীক্ষা দিতে আসলাম তখন ঠিক আধা ঘণ্টা আগে জানতে পারলাম পরীক্ষা বাতিল করা হয়েছে।’

অন্য আরেকজন শিক্ষার্থী বলেন, এই পরীক্ষা মার্চ মাসে হওয়ার কথা থাকলেও কিন্তু এই পরীক্ষা আজকে (শুক্রবার) ১১টায় হওয়ার কথা ছিল, ১১টা ২৬ মিনিটে তারা একটা এসএমএস দেয়। এসএমএসটি হচ্ছে, দুঃখিত অনিবার্য কারণবশত আজকের ইভিনিং এমবিএ ভর্তি পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে।

একজন শিক্ষার্থীর অভিভাবক বলেন, হঠাৎ করে যে পরীক্ষা বাতিল করা হলো, যারা গ্রাম থেকে আসছে বা বিভিন্ন জেলা থেকে আসছে তাদের অবস্থা কী হবে? এই বাতিলটা তারা একদিন আগে কেন করল না।

অন্য আরেকজন শিক্ষার্থীর অভিভাবক বলেন, ‘আমি আমার মেয়েকে নিয়ে কুষ্টিয়া থেকে আসছি। যদি এই বাতিলের মেসেজটা আগে দিত তাহলে আমি এই হয়রানির শিকার হতাম না। সারারাত জেগে আমরা এখানে আসছি। কেন এভাবে ডেকে তারা আমাদের ভোগান্তি বাড়াল।’

এ বিষয়ে বিশ্বদ্যালয়ের উপাচার্য ড. আখতারুজ্জামান টেলিফোনে সময় সংবাদকে জানান, এ বিষয়ে এখনো তিনি বিস্তারিত জানেন না।

ফোনে ঢাকা বিশ্বদ্যালয়ের উপাচার্য ড. আখতারুজ্জামান বলেন, ‘যারা পরীক্ষা আয়োজন করছে তারাই বিস্তারিত বলতে পারবে। আমি কালকে রাতে এটা জানলাম। আমার কাছে পুরো তথ্য ছিল না, সকালে পুরো তথ্য পাওয়ার পরে সিদ্ধান্ত হয়েছে; নীতিমালার আলোকে এ পরীক্ষা নেওয়া যাবে এর আগে এ পরীক্ষা নেওয়া যাবে না।’

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫২তম সমাবর্তনে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ সান্ধ্য কোর্সের ব্যাপক সমালোচনা করেছিলেন। এরপরই বিশ্ববিদ্যালয়ের মঞ্জুরি কমিশন সান্ধ্য কোর্সের বিষয়ে কঠোর হয় এবং কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয় সান্ধ্য কোর্স বন্ধের কথা জানায়।

এরপর সংসদ অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও রাষ্ট্রপতির বক্তব্যকে সমর্থন দেন। তিনি সান্ধ্য কোর্সের ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ও ইউজিসিকে কঠোর হতে বলেন। এ ছাড়া করোনা মহামারি পরিস্থিতিতে যেখানে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষা কার্যক্রম স্থগিত রয়েছে সেখানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদ কোনও রকম নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করে এই ভর্তি পরীক্ষা নেওয়ার চেষ্টা চালায়।