বাংলাদেশ প্রতিবেদক: ছাত্রলীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় বিভিন্ন মেয়াদে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) ১২ শিক্ষার্থীকে সাময়িকভাবে বহিষ্কার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। সিসিটিভি ফুটেজ ও গোয়েন্দা তথ্য যাচাই করে এই সিদ্ধান্ত হয়েছে জানান প্রক্টর।

বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রক্টর ড. রবিউল হাসান ভূঁইয়া রোববার রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘বোর্ড অব রেসিডেন্স হেলথ অ্যান্ড ডিসিপ্লিনারি’ কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত হওয়ার কথা জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘গত কয়েক দিনের সংঘর্ষের ঘটনায় দুই পক্ষের অভিযোগ, সিসিটিভি ফুটেজ ও গোয়েন্দা তথ্য যাচাই-বাছাই করে ১২ জন শিক্ষার্থীকে সাময়িক বহিষ্কার করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। তাদের মধ্যে দুই শিক্ষার্থীকে এক বছর এবং বাকিদের ছয় মাসের জন্য বহিষ্কার করা হয়েছে ।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের বহিষ্কৃতরা হলেন ভাষাবিজ্ঞান বিভাগের ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের মো: নাঈম, একই শিক্ষাবর্ষের বাংলা বিভাগের সাইফুল ইসলাম, রসায়ন বিভাগের ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের আশরাফুল আলম নায়েম, একই শিক্ষাবর্ষের পরিসংখ্যান বিভাগের আকিব জাভেদ, ইতিহাস বিভাগের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের জুনায়েদ হোসেন জয় ও অর্থনীতি বিভাগের ২০১১-১২ শিক্ষাবর্ষের ফরহাদ।

আইন বিভাগের ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের মির্জা খবির সাদাফ, একই বিভাগের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের খালেদ মাসুদ, লোকপ্রশাসন বিভাগের ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের অহিদুজ্জামান সরকার, সমাজতত্ত্ব বিভাগের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের আরিফুল ইসলাম, কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের তানজিল হোসেন ও আরবি বিভাগের ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের তৌহিদ ইসলাম।

বহিষ্কৃতদের মধ্যে সাদাফ খান খবির ও আশরাফুল আলম নায়েমকে এক বছর এবং বাকি সবাইকে ছয় মাসের জন্য বহিষ্কার করা হয়েছে। সোমবার থেকেই তারা আর অ্যাকাডেমিক কার্যক্রমে অংশ নিতে পারবে না বলে জানিয়েছেন প্রক্টর ড. রবিউল হাসান ভূঁইয়া।

Previous articleরংপুর ও ফেনীর এসপিসহ ৭ কর্মকর্তাকে বদলি
Next articleবিচারপতি মানিককে প্রধান করে ইভ্যালি পরিচালনা কমিটি গঠন
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।