মুখলেসুর রাহমান সুইট: কুষ্টিয়ার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়(ইবি) ক্যাম্পাসের ক্রিকেট মাঠে খেলাকে কেন্দ্র করে বাকতিবণ্ডার জেরে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) এক ছাত্রকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে বহিরাগতদের বিরুদ্ধে। ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী উৎস আল ফিকহ এন্ড লিগ্যাল স্টাডিজ বিভাগের প্রথম বর্ষের ছাত্র।

শুক্রবার (০৬ নভেম্বর) সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু হল পকেট গেট সংলগ্ন রাস্তায় এই ঘটনা ঘটে। এতে ভুক্তভোগী ছাত্রের শরীরের কয়েক জায়গায় মারধরের চিহ্ন পাওয়া গেছে।

জানা গেছে, ক্যাম্পাসের কেন্দ্রীয় ক্রিকেট মাঠের পার্শ্বে নিয়মিত ফুটবল খেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। শুক্রবার বিকেলে যথারীতি তারা ফুটবল খেলতে যায়। এসময় ১০/১২ জন বহিরাগতও একই স্থানে ক্রিকেট খেলতে থাকে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা তাদের অন্য স্থানে খেলার জন্য অনুরোধ করে। পরে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে বহিরাগত কয়েকজনের বাকবিতণ্ডার সৃষ্টি হয়। পরে সেদিন সন্ধ্যায় এ ঘটনার জের ধরে বিশ্ববিদ্যালয়ের উৎস নামের ওই ছাত্রকে বেধড়ক মারধর করে ১০/১২ জন বহিরাগত। এতে ভুক্তভোগীর শরীরের তিন জায়গায় মারধরের ক্ষত দেখা গেছে। এমনকি রাত একটায় বহিরাগত এক যুবক ইমনের ইন্ধনে বিশ্ববিদ্যালয় পাশ্ববর্তী ভাই ভাই মেসে গিয়ে ওই শিক্ষার্থীকে তারা হুমকি দিয়েছে বলে অভিযোগ করেছে ভুক্তভোগী ওই ছাত্র৷ইমনের বিরুদ্ধে এর আগেও অনেক শিক্ষার্থীর সঙ্গে খারাপ ব্যবহারের অভিযোগ রয়েছে। এ ঘটনায় নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে ভুক্তভোগী ওই ছাত্র।
এদিকে এই ঘটনা জানাজানির পর শিক্ষার্থীদের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। বহিরাগতা ক্যাম্পাসের ক্রিকেট ও ফুটবল মাঠে এসে হরহামেশাই শিক্ষার্থীদের সঙ্গে ঝামেলা করে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনার বিচার চেয়ে বিবৃতি দিয়েছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন। একই সঙ্গে ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তপূর্বক জড়িতদের বিচার দাবি করেছে সংগঠনটি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সহকারী প্রক্টর ড. শফিকুল ইসলাম বলেন, একজনের মাধ্যমে কিছু সময় আগে ঘটনাটি শুনেছি। তাছাড়া এই বিষয়ে আমার কাছে কেউ কোনো অভিযোগ করেনি।

Previous articleনোয়াখালীতে ফুটওভার ব্রিজ নির্মাণের দাবিতে মানববন্ধন
Next articleরাতে মারধর করল স্বামী, সকালে ফাঁস দিল গৃহবধূ
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।