রবিবার, জুলাই ২১, ২০২৪
Homeশিক্ষাপীরগাছায় পদ শূন্য না থাকার পরও শিক্ষক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি, অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার...

পীরগাছায় পদ শূন্য না থাকার পরও শিক্ষক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি, অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার পায়তারা

ফজলুর রহমানঃ রংপুরের পীরগাছার পাঠক শিকড় বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক ও সহকারী প্রধান
শিক্ষক পদে পত্রিকায় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের অভিযোগ উঠেছে হাইকোর্ট কর্তৃক
অবৈধ ঘোষিত ম্যানেজিং কমিটির সভাপতির বিরুদ্ধে। এর মধ্যে সহকারী প্রধান
শিক্ষক হিসাবে নাজমা খাতুন নামে এক শিক্ষক ওই বিদ্যালয়ে কর্মরত রয়েছেন। প্রতারণার
মাধ্যমে শিক্ষক নিয়োগের নামে মোটা অংকের অর্থ হাতিয়ে নিতেই এমন বিজ্ঞপ্তি
প্রকাশ করা হয়েছে বলে বিস্ময় ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বিদ্যালয়ের শিক্ষকসহ অভিভাবক ও
এলাকাবাসী।

 

অভিযোগে জানা গেছে, উপজেলার পাঠক শিকড় বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক
বিধান চন্দ্র রায় গত ৫ জুলাই চাকুরি থেকে অবসর গ্রহণ করেন। মাধ্যমিক পর্যায়ের
শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সংক্রান্ত শিক্ষামন্ত্রণালয় ও মাউশির পরিপত্রানুযায়ী প্রধান শিক্ষকের পদ শুন্য
হলে সহকারী প্রধান শিক্ষকই প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব পালন করবেন। ওই
প্রতিষ্ঠানে সহকারী প্রধান শিক্ষক হিসেবে নাজমা খাতুন বিদ্যমান থাকলেও সরকারি
নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করে জুনিয়র একজন সহকারী শিক্ষককে প্রধান শিক্ষকের
দায়িত্ব হস্তান্তরের চেষ্টা চলছে। এর আগে ২০২১ সালের মার্চ মাসে পাঠক শিকড় বালিকা
উচ্চ বিদ্যালয়ে গোপনে ম্যানেজিং কমিটি গঠন করেন তৎকালীন প্রধান শিক্ষক। জুন
মাসের শেষ সপ্তাহে গোপনে কমিটি গঠনের বিষয়টি ফাঁস হয়। এ বিষয়ে একাধিক
দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করলেও সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ কোন ব্যবস্থা গ্রহণ না করায়
ক্ষুব্ধ হন অভিভাবকরা। এক পর্যায়ে ওই কমিটির বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট
পিটিশন দাখিল করেন শিক্ষার্থীর অভিভাবক শহিদুল্লাহ কাওছার রুবেল। চূড়ান্ত শুনানি
শেষে গত বছরের ১৩ ডিসেম্বর ম্যানেজিং কমিটিকে অবৈধ ঘোষণা করে রায় দেন
আদালত। হাইকোর্টের রায়ে ম্যানেজিং কমিটি অবৈধ হওয়ায় পরিপত্র অনুযায়ী সহকারী
প্রধান শিক্ষক নাজমা খাতুন ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব পালন করছেন। এদিকে
হাইকোর্টের রায় অমান্য করে সেই ম্যানেজিং কমিটি বিদ্যালয়ের ছয় নম্বর জুনিয়র
সহকারী শিক্ষক মোশারফ হোসেনকে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব দেন। এর আগে
সিনিয়র চার শিক্ষককে দায়িত্ব গ্রহণে অপারগতা প্রকাশ করে পত্রে স্বাক্ষর করতে বলেন।
তারা এমন পত্রে স্বাক্ষর দিতে অস্বীকৃতি জানালে বিদ্যালয়ে জ্যেষ্ঠ সহকারী শিক্ষক অনিল
চন্দ্র রায়কে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়। অপর তিন সিনিয়র সহকারী শিক্ষকের স্বাক্ষর
জ্বাল করে অনাপত্তি পত্রে স্বাক্ষর দেখানো হয়। বিষয়টি ফাঁস হলে স্বাক্ষর জ্বালের বিষয়টি
ইউএনওসহ সংশ্লিষ্ট একাধিক দপ্তরে অভিযোগ করেন সিনিয়র সহকারী শিক্ষকরা।
বিদ্যালয়সূত্রে জানা গেছে, ১৭ সেপ্টেম্বর রংপুরের একটি দৈনিকে প্রধান শিক্ষক ও
সহকারী প্রধান শিক্ষক পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়। বিজ্ঞপ্তিতে সভাপতি বরাবর
আগ্রহী প্রার্থীদের আবেদনপত্র পাঠাতে বলা হয়েছে।

 

ওই বিদ্যালয়ের বর্তমানে কর্মরত সহকারী প্রধান শিক্ষক নাজমা খাতুন বলেন, ২০০০ সালে
এই বিদ্যালয়ে সহকারী প্রধান শিক্ষক পদে নিয়োগ পেয়ে নিয়মিত পাঠদান করে
আসছি। প্রতারণার উদ্দেশ্যে আমার পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে। এর
আগেও একাধিকবার এমন বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। অভিযোগ উঠেছে, ওই বিদ্যালয়ে
সহকারী প্রধান শিক্ষক পদে শিক্ষক থাকার পরও প্রতারণার উদ্দেশ্যে গোপনে অবৈধভাবে ওই
নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি পত্রিকায় প্রকাশ করা হয়েছে। মূলত শিক্ষক নিয়োগের নামে বিজ্ঞপ্তি
প্রকাশ করে প্রার্থীদের কাছ থেকে প্রতারণার মাধ্যমে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অপচেষ্টা
করছেন অবৈধ কমিটির সভাপতি। এমন বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের ঘটনায় বিস্ময় ও ক্ষোভ প্রকাশ
করেছেন সাধারণ শিক্ষকরাসহ অভিভাবক ও এলাকাবাসী।

 

বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক অনিল চন্দ্র বলেন, জুনিয়র শিক্ষককে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের
দায়িত্ব দিতেই এমন নাটক সাজানো হয়েছে। হাইকোর্ট কর্তৃক অবৈধ ঘোষিত
ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আব্দুল জব্বারের সঙ্গে যোগাযোগের
চেষ্টা করে তাকে পাওয়া যায়নি।

 

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সৈয়দ সুজা মিয়া বলেন, শিক্ষক থাকার পরেও ওই পদে
বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের বিষয়টি আমার জানা নেই। খোঁজ নিয়ে দেখা হবে।

 

পীরগাছা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাজমুল হক সুমন বলেন, বিষয়টি যেহেতু সর্বোচ্চ আদালত পর্যন্ত গেছে, তাই আদালতের নির্দেশনা পেলে আমরা তা বাস্তবায়ন করবো।

 

দিনাজপুর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের বিদ্যালয় পরিদর্শক আবু হেনা মোস্তফা কামাল বলেন, পরিপত্রানুযায়ী সহকারী প্রধান শিক্ষককেই ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব প্রদান করতে হবে। অন্যথায় সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের সুযোগ রয়েছে।

আজকের বাংলাদেশhttps://www.ajkerkagoj.com.bd/
Ajker Bangladesh Online Newspaper, We serve complete truth to our readers, Our hands are not obstructed, we can say & open our eyes. County news, Breaking news, National news, bangladeshi news, International news & reporting. 24 hours update.
RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments