বাংলাদেশ ডেস্ক: দেশের ইতিহাসে অন্যতম জনপ্রিয় ও সফল অভিনেত্রী ববিতা। অস্কারজয়ী কিংবদন্তি চলচ্চিত্রকার সত্যজিৎ রায়ের মতো পরিচালকের সিনেমায় কাজ করেছেন তিনি। আজ ৩০ জুলাই ৬৮ বছরে পা রাখলেন এ অভিনেত্রী। করোনার যাঁতাকলে পড়ে গত জন্মদিন ঘরবন্দি হয়েই কাটিয়েছিলেন। কানাডায় অবস্থিত একমাত্র ছেলের সঙ্গে দেখাও হয়নি তার।

এবার জন্মদিন সামনে রেখে আগভাগেই প্রস্তুতি নিয়ে চলে গেলেন কানাডায়। সেখান থেকেই মোবাইল ফোনে জানালেন, করোনায় বিশ্ব যখন বিপর্যস্ত, তখন নিজের জন্মদিন নিয়ে কোনো উচ্ছ্বাস নেই। তবে এতদিন পর মুক্ত হয়েছেন। ছেলেকে কাছে পেয়েছেন। কানাডার কিচেনার শহরে আছেন। প্রতিদিনই হাঁটতে বের হচ্ছেন। মুক্ত আকাশে স্বস্তির নিঃশ্বাস নিচ্ছেন। এটিই অনেক কিছু তার জন্য।

জন্মদিন উপলক্ষ্যে এক গণমাধ্যমকর্মী শেষ প্রশ্ন করেন, কারও সঙ্গে ভালোবাসার সম্পর্ক তৈরি হয়েছিল কি? জবাবে অকপটেই প্রয়াত অভিনেতা জাফর ইকবালের নাম বলেন ববিতা। সুখস্মৃতিচারণও করলেন।

তিনি বলেন, ‘জাফর ইকবালকে ভীষণ পছন্দ করতাম। খুবই স্মার্ট, গুড লুকিং ছিল সে। আমি তাকে ভালোবাসতাম, সেও আমাকে ভালোবাসত। শুটিংয়ের অবসরে অথবা নানা আড্ডায় আমাকে গান শেখাত। আমরা দুজন গিটার বাজিয়ে ইংরেজি গানের চর্চা করতাম। ওর মতো পরিপূর্ণ কোনো নায়ক আমাদের চলচ্চিত্রে আসেনি।’

সত্তরের দশকে বাংলা সিনেমায় সাড়াজাগানো নায়ক ছিলেন জাফর ইকবাল। সে সময় দর্শকদের মনে আলাদাভাবে জায়গা করে নিয়েছিলেন তিনি। সেই সময় জাফার ইকবাল-ববিতার প্রেম ছিল ঢালিউডের হট টপিক। প্রায় ১৫০টি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন জাফর ইকবাল।

এর মধ্যে ববিতার সঙ্গে জুটি বেঁধেছেন ৩০টিতে। এদের মধ্যে ‘অবুঝ হৃদয়’, ‘নয়নের আলো’, ‘আশীর্বাদ’, ‘অপমান’, ‘এক মুঠো ভাত’, ‘ওগো বিদেশিনী’, ‘প্রেমিক’, ‘সন্ধি’, ‘বন্ধু আমার’ অন্যতম।

১৯৯২ সালের আজ ৮ জানুয়ারি নায়ক জাফর ইকবাল মারা যান।

Previous articleমিথ্যাচার-অপপ্রচারের অভিযোগে হেলেনাকে গ্রেফতার দেখাল র‍্যাব
Next articleআক্কেলপুরে স্ত্রীকে গলাকেটে হত্যার পর স্বামীর আত্মহত্যার চেষ্টা
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।