রফিক সুলায়মান: কবিতার সঙ্গীতরূপের শ্রেষ্ঠতম উদাহরণ নজরুলের ‘বিদ্রোহী।’ অসাধ্য সাধন করেছিলেন গিরিণ চক্রবর্তী। এরপর নাম নিতে পারি অনুপ ঘোষালের, যিনি জীবনানন্দ দাশের ‘বনলতা সেন’ এবং ‘হায় চিল’ কবিতার সঙ্গীতরূপ উপহার দিয়েছিলেন। দেবব্রত বিশ্বাস গীতাঞ্জলি’র ভূমিকা ‘প্রথম যুগের উদয় দিগঙ্গনে’তে সুর বসিয়েছিলেন। পঙ্কজ কুমার মল্লিক সুর বসিয়েছেন ‘এমন দিনে তারে বলা যায়’ এবং ‘তুমি কী কেবলই ছবি’তে, গেয়েছেন হেমন্ত মুখোপাধ্যায়। হয়তো এরকম উদাহরণ আরো আছে।

এ-ধারার নবতর সংযোজন সৈয়দ শামসুল হকের ‘আমার পরিচয়’, শামসুর রাহমানের ‘স্বাধীনতা তুমি’ এবং নির্মলেন্দু গুণের ‘স্বাধীনতা এই শব্দটি কীভাবে আমাদের হলো।’ তিনটি কবিতাই বহুল প্রচলিত, জনপ্রিয় এবং পাঠক নন্দিত। এর মধ্যে ‘স্বাধীনতা তুমি’ কাজী সব্যসাচীর কণ্ঠে লংপ্লে আকারেও বের হয়েছিলো। আর নির্মলেন্দু গুণের কবিতাটি আসাদুজ্জামান নূরের কণ্ঠে বাংলার আকাশ-বাতাস প্রকম্পিত করেছে মুজিব শতবর্ষে। এবার কবিতাত্রয়ীর সঙ্গীতরূপ নিয়ে এসেছেন শিল্পী কামাল আহমেদ।

তিনটি কবিতার মূল এসেন্স মাতৃভূমি, স্বাধীনতা এবং বঙ্গবন্ধু। আমরা যে বাংলাদেশকে চোখের তারায় রাখি – কবিতা তিনটি সেই দেশকে ঘিরেই আবর্তিত। কামাল আহমেদ বাংলা সাহিত্যের একজন একনিষ্ঠ পাঠক বলেই তাঁর নির্বাচন হয়েছে অভূতপূর্ব। তিনটি কবিতা মিলে একটি সম্পূর্ণ প্যাকেজ। মুজিববর্ষের অনন্য উপহার।

গানগুলো শুনতে Music of Bengal ইউটিউব চ্যানেল অথবা Kamal Ahmed Singer চ্যানেল সার্চ করুন। মুজিববর্ষে কবিতাত্রয়ীর সঙ্গীতরূপ উপহার দিয়ে কামাল আহমেদ একটি জাতীয় দায়িত্ব পালন করেছেন বলে আমার বিশ্বাস।

Previous articleশ্রীলঙ্কার বিপক্ষে এশিয়া কাপে ‘ডু অর ডাই’ ম্যাচে টসে হেরে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ
Next articleপাঁচবিবিতে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল খালেকের দাফন সম্পন্ন
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।