বাংলাদেশ প্রতিবেদক: করোনাভাইরাস মহামারি বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ার পর এর অনেকগুলো ভ্যারিয়েন্ট সৃষ্টি হয়। এর মধ্যে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট অন্যতম। ভারতে প্রথম শনাক্ত হওয়া করোনাভাইরাসের এ ভ্যারিয়েন্ট এখন পর্যন্ত প্রায় একশ দেশে সংক্রমণ ছড়িয়েছে জানিয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা সতর্ক করে বলেছে, আগামী মাসগুলোতে করোনার অতিসংক্রামক এই ধরন বিশ্বজুড়ে আধিপত্য বিস্তার করবে।

সাপ্তাহিক হালনাগাদ তথ্যে ডব্লিউএইচও জানিয়েছে, ‘গত ২৯ পর্যন্ত বিশ্বের ৯৬টি দেশে ডেল্টা ধরনে আক্রান্ত ব্যক্তি শনাক্ত হয়েছে। তবে নতুন ধরন শনাক্তে সিকোয়েন্সিং ব্যবস্থার সীমাবদ্ধতার কারণে হয়তো অনেক দেশে ছড়ালেও তা জানা যায়নি।’

করোনার নতুন এই ধরনটি যেসব দেশে শনাক্ত হয়েছে সেসব দেশে ভাইরাসটির সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি দেখা দিয়েছে জানিয়ে সংস্থাটি আরও বলেছে, এতে করে এসব দেশে করোনায় আক্রান্ত-মৃত্যুর সঙ্গে বেড়েছে হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যা। ডেল্টা ধরনের অতিমাত্রায় সংক্রমিত করার সক্ষমতার বিষয়টির কথা জানিয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা সতর্ক করে বলেছে, ধারণা করা হচ্ছে এই ধরন তার বৈশিষ্টের কারণে অন্য ধরনগুলোকে ছাড়িয়ে যাবে এবং আগামী মাসগুলোয় আধিপত্য বিস্তার করবে বিশ্বে।’

সংস্থাটি বলছে, ব্যক্তি ও কমিউনিটি স্তরের জনস্বাস্থ্য ও সামাজিক পদক্ষেপ, সংক্রমণ রোধ ও নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থার বিরুদ্ধে লড়াইয়ের যে উপায়গুলো আজ বিদ্যমান তা ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টসহ করোনার উদ্বেগজনক ধরনগুলোর (ভিওসি) বিরুদ্ধেও কার্যকর। সংস্থাটি আরও বলেছে, ‘ভিওসি’র অতিসংক্রামক পরিস্থিতির অর্থ বিদ্যমান নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থায় বিশেষ করে স্বল্পহারে টিকা দিয়ে এর প্রকোপ ঠেকাতে হলে অনেক সময় লাগবে। এক্ষেত্রে এসব পদক্ষেপ আমাদের আরও জোরদার করতে হবে।’

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালক তেদ্রোস আধানম গেব্রেয়াসুস সম্প্রতি বলেছেন, ‘ডেল্টা এখন পর্যন্ত শনাক্ত করোনাভাইরাসের সবচেয়ে সংক্রামক ধরন। যেসব জায়গায় টিকা দেওয়ার হার কম, সেখানে করোনার নতুন এই ধরনটি দ্রুত ছড়াচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘আমি জানি বর্তমানে ডেল্টা ধরন নিয়ে বিশ্ব অনেক উদ্বিগ্ন। আমরাও এটা নিয়ে উদ্বিগ্ন। ডেল্টা এখন পর্যন্ত চিহ্নিত ধরনগুলোর মধ্যে সবচেয়ে সংক্রামক। করোনার টিকা না নেওয়া ব্যক্তিরা এই ধরনটিতে সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত হচ্ছেন।’

ডব্লিউএইচও বলছে, আলফা (প্রথম শনাক্ত হয় ব্রিটেনে) ধরন ১৭২টি দেশে, বেটা (প্রথম শনাক্ত হয় দক্ষিণ আফ্রিকায়) ১২০টি দেশে, ডেল্টা (প্রথম শনাক্ত হয় ভারতে) ৯৬টি দেশে এবং গামা (প্রথম শনাক্ত হয় ব্রাজিলে) ধরন ৭২ দেশে সংক্রমণ ছড়িয়েছে।

Previous articleআমলা বনাম রাজনীতিক বিতর্ক: সচিব সভা স্থগিত
Next articleলকডাউন: রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে ৫ শতাধিক আটক
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।