সোমবার, জুন ২৪, ২০২৪
Homeস্বাস্থ্য সেবাব্যথার রোগীদের রমজান

ব্যথার রোগীদের রমজান

বছর পেরিয়ে আবার এলো পবিত্র মাহে রমজান। অত্যান্ত তাৎপর্যপূর্ন এ মাসে যথাসম্ভব ইবাদত বন্দেগি করে আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনই প্রত্যেকের কাম্য। বেশি বেশি ইবাদত করার জন্য চাই ব্যথা মুক্ত সুস্থ দেহ আর সুস্থ দেহ পাবার অন্যতম শর্ত হচ্ছে নিয়মিত এক্সারসাইজ করা, পর্যাপ্ত পরিমাণে পুষ্টিকর খাদ্য ও পানীয় গ্রহন । তাই শরীরকে সুস্থ রাখতে রমজানের স্বাস্থ্য টিপস নিয়ে আমাদের আজকের আলোচনা। বিভিন্ন গবেষনায় বলা হয়েছে, কোন ধরনের ফিজিক্যাল এক্সারসাইজ ছাড়া রমজানে একটানা ৩০ দিন রোজা রাখার ফলে মাংশপেশীর স্ট্রেন্থ ও ফিজিক্যাল ফিটনেস কমে যায়। সুতরাং রমজান মাসে হেলদি থাকার জন্য রোজা রাখার পাশাপাশি আমাদের প্রত্যেকেরই ফিজিক্যাল এক্সারসাইজ করা প্রয়োজন।

শারীরিক প্রতিবন্ধকতা না থাকলে হাঁটা, সাঁতারকাটা, সাইকেল চালানো ইত্যাদি এক্সারসাইজ করা যেতে পারে। ব্যয়ামের সময় উপযুক্ত কাপড় নির্বাচন করতে হবে ও শ্বাস-প্রশ্বাস স্বাভাবিক রাখতে হবে। যারা নিয়মিত হাঁটেন তারা সকালের দিকেই কিছুক্ষন হাঁটতে পারেন। রোজা রেখে বিকালের দিকে না হাঁটাই ভালো। কারন এ সময় রক্তে শর্করার পরিমান কমে যায়। অধিক বা অতিরিক্ত এক্সারসাইজ করলে শর্করার পরিমাণ আরও কমে যেতেই পারে। সুতরাং এক্সারসাইজ করতে চাইলে হালকা এক্সারসাইজ করা উচিত। যে এক্সারসাইজ গুলো করলে খুব বেশি ঘাম হয় সে গুলো এই গরমে না করাই ভালো। খুব বেশি ভারী ওজন তুলে এক্সারসাইজ করা উচিৎ হবে না। রমজানে অনেকেই দীর্ঘ সময় শুয়ে থাকেন। এক্ষেত্রে কোমরের মাংসপেশী দুর্বল হয়ে যায়। সুতরাং দীর্ঘ বিশ্রাম পরিহার করুন।

রমজানে আপনার প্রতিদিনের গ্রহন করা খাদ্য স্বাস্থ্যসম্মত হচ্ছে কি না বা আপনার দেহের ক্ষয় পূরণের জন্য পর্যাপ্ত কি না; নিশ্চিত হওয়ার

সবচেয়ে ভালো উপায় একটি সুষম খাদ্যের তালিকা তৈরি করা এবং সে তালিকা অনুযায়ী প্রতিদিন খাবার গ্রহন করা। তাই এখনো যারা রমজানের খাদ্য তালিকা তৈরি করবো বলেও তৈরি করেন নি; আশা করা যায় এ ভিডিওটি কিছুটা হলেও সাহায্য করবে। আর যারা ইতিমধ্যে তৈরি করে ফেলেছেন, তারা চাইলে একটু মিলিয়ে দেখতে পারেন।

খাদ্য তালিকায় যা রাখতে পারেনঃ প্রচুর পরিমাণে পানি খেতে হবে। এর কোনো বিকল্প নেই। একজন পূর্ণবয়স্ক মানুষের প্রতিদিন দুই থেকে আড়াই লিটার পানি পান করা উচিত। যা এ রমজানের মধ্যে ইফতার থেকে সেহরি পর্যন্ত সময়টাতে পান করা প্রয়োজন। বাজার এখন নানান মৌসুমী ফলে ভরপুর। যত বেশী সম্ভব আমরা ফল খেতে পারি। ফল একদিকে শরীরের পানির চাহিদা মেটাবে, অন্যদিকে এর প্রয়োজনীয় অনেক পুষ্টিগুনও রয়েছে। ১. উচ্চ প্রোটিনযুক্ত খাবার বেশী পরিমানে গ্রহণ করা ভালো। ২. কার্বোহাইড্রেটযুক্ত খাবার খাদ্য তালিকা থেকে একেবারে বাদ না দিয়ে প্রতিদিন স্বল্প পরিমাণে গ্রহণ করা দরকার। ৩. এ সময় বেশী বেশী পটাসিয়ামযুক্ত খাবার গ্রহণ দেহের জন্য অপরিহার্য। দুধে অ্যালার্জি বা হজমের সমস্যা না হলে প্রতিদিন পরিমিত পরিমাণে পান করা যেতে পারে। দুধ স্বাস্থ্যের জন্য অত্যাধিক উপকারী। ৪.ফাইবার বা আঁশ জাতীয় খাবার যেমন ইসবগুল, তকমা, সালাদ এ সময়টাতে বেশি বেশি গ্রহণ করা দরকার। যে খাদ্য বা অভ্যাসসমূহ স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতির কারণ হতে পারেঃ * ভাজাপোড়া খাবার সম্পূর্ন ভাবে বর্জন করাই শ্রেয়। ফাস্টফুড সম্পূর্ণভাবে এড়িয়ে যাওয়া ভালো।

* এ সময়টাতে বা যে কোনো সময়ে বাইরের কেনা খাবার না খাওয়াই স্বাস্থ্যসম্মত। * ইফতার, রাতের খাবার বা সেহেরী সাধারণ সময়ের চেয়ে বেশি খেয়ে হাসফাস না করে, স্বাভাবিক পরিমাণে খাওয়াটাই উত্তম। * কোল্ড ড্রিংকস, প্যাকেটজাত জুসের পরিবর্তে বাড়িতে তৈরি তাজা ফলের শরবত খাওয়া বুদ্ধিমানের কাজ হবে। * এ সময়টাতে চা, কফি না খাওয়াই ভালো। তবে একান্তই খেলে তা ইফতার এবং রাতের খাবারের মাঝে খেতে হবে, কেননা চা, কফি শরীর থেকে পানি বের করে দিয়ে পানি শূন্যতা তৈরি করে।

মনে রাখবেন, এক্সারসাইজ অনেক প্রকার অসুস্থতার কষ্ট থেকে সুস্থ থাকতে সাহায্য করে। এক্সারসাইজ ইজ মেডিসিন ফর টুডে এন্ড টুমোরো। এক্সারসাইজ শরীরের রক্ত সঞ্চালন বাড়ায়, জয়েন্ট সম্পর্কীয় বিভিন্ন ব্যথা দূর করে, দুশ্চিন্তা বা ডিপ্রেশন কমিয়ে মানসিক প্রশান্তি এনে দেয়। ব্যথামুক্ত জীবণ যাপন করুন এবং রমজানে সুস্থ থাকুন।

প্রফেসর ডা. আলতাফ সরকার মাস্কুলোস্কেলিটাল ডিজঅর্ডারস বিশেষজ্ঞ লেজার ফিজিওথেরাপি সেন্টার ৪৪/৮, পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা। ০১৭৬৫ ৬৬৮৮৪৬

আজকের বাংলাদেশhttps://www.ajkerbangladesh.com.bd/
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।
RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments