কাগজ ডেস্ক: আফ্রিকার দেশ সুদানের রাষ্ট্রক্ষমতা দখল করেছে সেনাবাহিনী। ক্ষমতা দখলের পর দুই বছরের শাসন জারি করা হয়েছে। গ্রেফতার করা হয়েছে সুদানের প্রেসিডেন্ট ওমর আল বশিরকে। ক্ষমতা দখলে নেতৃত্ব দিয়েছেন দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী আওয়াদ ইবনে ইউসুফ।

তিনি বৃহস্পতিবার টেলিভিশনে দুই বছরের শাসন জারির বিষয়ে ঘোষণা দেন। নাইরেজিয়ার আবুজাভিত্তিক অনলাইন পত্রিকা প্রিমিয়াম টাইমস এ খবর দিয়েছে।

রয়টার্স ও বিবিসির খবরে জানা গেছে, উত্তর দারফুরের উৎপাদন ও অর্থনীতিমন্ত্রী আদেল মাহজুব হুসেইন দুবাইভিত্তিক আল হাদাত টেলিভিশনকে বলেছেন, প্রেসিডেন্ট বাশারকে সরানোর পর ক্ষমতা অর্পণের জন্য একটি সামরিক পরিষদ গঠনের বিষয়ে আলোচনা চলছে।
রয়টার্স জানিয়েছে, সুদানের সূত্রগুলো আল হাদাতের প্রতিবেদনকে সঠিক বলে নিশ্চিত করেছেন। বশির কড়া পাহারার মধ্যে প্রেসিডেন্টের বাসভবনে আছেন বলে জানিয়েছেন তারা।

সামরিক বাহিনী শিগগিরই একটি ঘোষণা দেবে বলে জানিয়েছে রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন। রাজধানীর খার্তুমে সেনা মোতায়েন করা হয়েছে। রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনের ঘোষণায় বিস্তারিত কিছু না জানিয়ে শুধু বলা হয়, অল্পক্ষণের মধ্যেই সশস্ত্র বাহিনী গুরুত্বপূর্ণ একটি বিবৃতি দেবে। এর জন্য প্রস্তুত থাকুন। রয়টার্সের এক প্রত্যক্ষদর্শী সংবাদিক জানিয়েছেন, প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সামনে হাজার হাজার লোক জড়ো হয়ে সরকারবিরোধী বিক্ষোভ করতে থাকায় সেনাবাহিনী ও নিরাপত্তা বাহিনী মন্ত্রণালয়টির চারদিকে এবং প্রধান সড়ক ও সেতুগুলোয় সেনা মোতায়েন করেছে। খার্তুমের হাজার হাজার বাসিন্দা রাজধানীর কেন্দ্রস্থলে জড়ো হয়ে নেচে-গেয়ে বশিরের বিরুদ্ধে স্লোগান দিচ্ছে।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সামনে জড়ো হওয়া প্রতিবাদকারীরা, ‘সরকারের পতন হয়েছে, আমরা জিতেছি’ বলে স্লোগান দিচ্ছে। সেনা সদর দফতরের পাশে অবস্থান নেয়া এক বিক্ষোভকারী বলেছেন, ‘আমরা বড় খবরের অপেক্ষায় আছি। সেটি কী না জানা পর্যন্ত আমরা এখান থেকে নড়ব না। তবে বশিরকে সরতে হবে এটি আমরা জানি।’

এদিকে রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন ও রেডিওতে দেশাত্মবোধক সঙ্গীত সম্প্রচার করা হচ্ছে। ১৯৮৯ সাল থেকে ৩০ বছর ধরে প্রেসিডেন্ট হিসেবে দেশটিকে নেতৃত্ব দিয়ে আসছিলেন ওমর আল বশির। কিন্তু কয়েক মাস ধরে সরকারবিরোধী বিক্ষোভ তীব্র হয়ে উঠছিল।

তিন দশকের ক্ষমতার মেয়াদে প্রেসিডেন্ট বশির এই প্রথম বড় ধরনের চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েন।

চলতি সপ্তাহের প্রথমদিকে সৈন্যরা গোয়েন্দা সংস্থা ও নিরাপত্তা বাহিনীর উর্দি পরা সদস্যদের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়েছিল। নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা রাজধানী খার্তুমে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সামনে জড়ো হওয়া কয়েক হাজার সরকারবিরোধী বিক্ষোভকারীকে ছত্রভঙ্গ করে দেয়ার চেষ্টাকালে সেনা সদস্যরা তাদের বাধা দেয়। মঙ্গলবারের ওই সংঘর্ষে অন্তত ১১ জন নিহত হন, যাদের মধ্যে সশস্ত্র বাহিনীর সদস্য ছয়জন।

Previous article২০০০ লোক নিয়োগ দেবে বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড
Next articleচট্টগ্রাম মোংলা ও পায়রা বন্দর ব্যবহারে সুযোগ পাচ্ছে ভুটান
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।