দফায় দফায় রকেট হামলায় রক্তাক্ত কাবুল, নিহত ৮

বাংলাদেশ ডেস্ক: আফগানিস্তানে সিরিজ বোমা হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮ জনে। রাজধানী কাবুলের একাধিক জায়গায় রকেট বিস্ফোরণ ঘটে।

আফগান স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানায়, শক্তিশালী বিস্ফোরণে অন্তত ৩১ জন আহত হয়েছেন। কয়েকজনের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় নিহতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে।

কাবুলের পুলিশ জানিয়েছে, স্থানীয় সময় শনিবার (২১ নভেম্বর) একাধিক শক্তিশালী রকেট বিস্ফোরণ ঘটে। একে ‘ম্যাগনেটিক’ বিস্ফোরণ বলছেন অনেকে। এখন পর্যন্ত ১৪টি রকেট হামলার খবর জানা গেছে।

বিভিন্ন রাস্তা-ঘাট রক্তে ছেয়ে গেছে। সেসব স্থানে হামলা হয়েছে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে ধ্বংসস্তূপের চিত্র। শহরজুড়ে চুলচেরা অভিযান শুরু করেছে বিশেষ বাহিনী। যোগ দিয়েছে সেনা সদস্যরাও।

এদিকে খায়ের খানা এলাকায় প্রকট বিস্ফোরণের শব্দে শিক্ষার্থীরা আতঙ্কে রাস্তায় ছোটাছুটি করতে থাকে। সিরিজ বোমা হামলার দায়ভার এখনো কোন গোষ্ঠী স্বীকার করেনি।

ভারতীয় গণমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস বলছে, কাবুলের বেশ কয়েকটি জায়গায় রকেট হামলা হয়েছে। বিশেষ করে কূটনৈতিক এলাকা গ্রিন জোনের কাছে রকেট বিস্ফোরণ ঘটে। গ্রিন জোনে মার্কিন দূতাবাসসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থার গুরুত্বপূর্ণ কার্যালয় রয়েছে।

কাবুল পুলিশের মুখপাত্র ফেরদৌউস ফারামার্জ নিশ্চিত করেছেন যে একাধিক রকেট বিস্ফোরণ হয়েছে। এতে বেশ কিছু ভবন এবং গুরুত্বপূর্ণ সড়ক ক্ষতিগ্রস্ত হয়। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে জানায়, হামলায় একটি পুলিশের গাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ঘটনাস্থলেই এক পুলিশ কর্মকর্তা প্রাণ হারান।

গেল ছয় মাসে আফগানিস্তানের সশস্ত্র তালেবান গোষ্ঠী ৫৩টি আত্মঘাতী হামলা এবং ১২৫০টি বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে। এতে নিহত হয়েছেন ১২১০ বেসামরিক নাগরিক, আহত হন আড়াই হাজারের বেশি। আফগানিস্তানে শান্তি ফিরিয়ে আনার আলোচনার মধ্যেই দেশজুড়ে বিভিন্ন স্থানে হামলা ঘটনা বেড়েছে।

এমন পরিস্থিতির মধ্যেই দেশটি থেকে আড়াই হাজার মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। যদিও তার এই ঘোষণার বিরোধিতা করেছেন ন্যাটো জোটের মহাসচিব জেন্স স্টোলটেনবার্গ। আফগানিস্তান থেকে সেনা প্রত্যাহার করা হলেও ন্যাটোকে এর খেসারত দিতে হবে বলে ট্রাম্পকে সতর্কবার্তা দেন তিনি।