বাংলাদেশ ডেস্ক: ভারতের মুর্শিদাবাদে শ্যালিকাকে ধর্ষণ চেষ্টায় বাধা পেয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে বড় মেয়ের জামাইয়ের বিরুদ্ধে। মুর্শিদাবাদ জেলার সামসেরগঞ্জ থানার দোগাছি গ্রাম পঞ্চায়েতের লস্করপুর গ্রামে বুধবার (১৩ জানুয়ারি) রাতে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। অভিযুক্তের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছে গ্রামবাসী।

দেশটির বাংলা দৈনিক আনন্দবাজার পত্রিকা জানায়, বুধবার মাতাল অবস্থায় শ্বশুর বাড়িতে আসেন বড় মেয়ের জামাই জাকির হোসেন। রাতে শ্যালিকা রাশেদা খাতুন যখন ঘুমিয়ে ‍ছিলেন তখন তার কক্ষে প্রবেশ করে তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন তিনি। এ সময় রাশেদা বাধা দেয়। বাধা পেয়ে মাতাল অবস্থায় ক্ষিপ্ত জাকির ধারালো অস্ত্র দিয়ে রাশেদাকে আঘাত করে। এতেই মৃত্যু হয় তার। ঘটনার পর থেকেই অভিযুক্ত পলাতক রয়েছে।

পরিবারের সদস্যদের বরাত দিয়ে প্রতিবেদনে বলা হয়, বুধবার রাতে রাশেদার চিৎকার শুনে রক্তাক্ত অবস্থায় দেহ পড়ে থাকতে দেখেন পরিবারের সদস্যরা। এরপরই মারা যান তিনি। পরে, থানায় খবর দেওয়া হলে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য জঙ্গিপুর মহকুমা হাসপাতালে পাঠিয়েছে।

জঙ্গিপুর জেলা পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। পলাতক জাকির হোসেন ওরফে বিশুকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

Previous articleকল্যাণকর কাজকে প্রশ্নবিদ্ধ করাই বিএনপির স্বভাব: কাদের
Next articleমানুষের আস্থা-বিশ্বাস আছে বলেই ক্ষমতায় থাকতে পারছি: প্রধানমন্ত্রী
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।