বাংলাদেশ ডেস্ক: বিতর্কিত বক্তব্য দিয়ে বরাবরই ফিলিপাইনের প্রেসিডেন্ট রড্রিগো দুতের্তে আলোচনায় থাকেন। বিশেষ করে যৌনতাবাদী ও নারীবিদ্বেষী বক্তব্যে তার জুড়ি মেলা ভার। সম্প্রতি তিনি ‘দেশ শাসন করা নারীদের কাজ নয়’ এমন নারীবিদ্বেষী মন্তব্য করে ফের সমালোচনায় এসেছেন।

এক ভাষণে ফিলিপাইনের প্রেসিডেন্ট নারীদের মনস্তাত্ত্বিক পার্থক্যের কারণে দেশ শাসনে অযোগ্য বলে ঘোষণা করেন। তিনি বলেন, ‘এটা (দেশ শাসন) নারীদের জন্য নয়। আপনি জানেন, নারী-পুরুষের মানসিকতা পুরো আলাদা। আপনি (নারী) এখানে এলে বোকা হয়ে যাবেন। সুতরাং… ওটাই দুঃখের গল্প।’

এমনকি তিনি নিজের মেয়েকেও আগামী নির্বাচনে প্রেসিডেন্ট পদে লড়ার অনুমতি দেননি।

দুতের্তে বলেন, ‘আমার মেয়ে (নির্বাচনে) লড়বে না। আমি ইন্দেকে (প্রেসিডেন্টের মেয়ে সারা দুতের্তের ডাকনাম) নিষেধ করেছি। কারণ, আমি (প্রেসিডেন্ট হয়ে) যার মধ্য দিয়ে যাচ্ছি, সেটা তাকেও যেতে হবে ভেবে তার প্রতি আমার করুণা হয়।’

সারা দুতের্তে অবশ্য দাভো শহরের মেয়র হয়ে ইতোমধ্যেই নিজের নেতৃত্বগুণ প্রমাণ করেছেন। ২০২২ সালে অনুষ্ঠিতব্য জাতীয় নির্বাচনে তাকে অনেকেই সম্ভাব্য প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হিসেবে দেখছেন। এ বিষয়ে সাম্প্রতিক এক জরিপে পছন্দের শীর্ষে নাম এসেছিল সারার। এরপরও তাকে প্রেসিডেন্ট পদে লড়ার অযোগ্য বলে ভাবছেন বাবা রড্রিগো দুতের্তে।

যদিও ফিলিপিনো প্রেসিডেন্টের কার্যালয় তার এসব বক্তব্যকে নিরীহ কৌতুক বলে উড়িয়ে দিয়েছে। তাছাড়া, ফিলিপাইনের নারী ভোটারদের মধ্যেও বেশ জনপ্রিয়তা রয়েছে দুতের্তের।

সূত্র: সিএনএন।

Previous articleছুটি বাড়ল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে
Next articleঅনেকে লুটপাট করে পিঠ বাঁচাতে নৌকায় উঠতে চায়: তথ্যমন্ত্রী
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।