বাংলাদেশ ডেস্ক: প্রেমের টান উপেক্ষা করা বড়ই কঠিন। সে প্রমাণ আগেই দিয়েছেন ভারতের হাওড়ার নিশ্চিন্দার আনন্দনগরের দুই গৃহবধূ। বাড়িতে কাজ করতে আসা রাজমিস্ত্রির হাত ধরে ভিন রাজ্যে পাড়ি দিয়েছিলেন দুই জা। তবে তাতেও শেষরক্ষা হল না। কারণ, মুম্বাই থেকে এ রাজ্যে ফেরার পথে আসানসোল স্টেশন থেকে উদ্ধার দু’জনে।

মাস ছয়েক আগে একতলা বাড়ি সংস্কারের কাজ করতে এসেছিলেন দুই রাজমিস্ত্রি। তাদের দু’জনকে প্রথম দেখাতেই ভালো লেগে যায় নিশ্চিন্দা আনন্দ নগরের দুই গৃহবধূ রিয়া এবং অনন্যা কর্মকারের।

দুই রাজমিস্ত্রি সুভাষ ও শেখরকে তাদের পছন্দ হয়ে যায়। প্রথমে আলাপ। তারপর মোবাইল নম্বর বিনিময় হয়। ওই দুই রাজমিস্ত্রি যখন বাড়িতে কাজ করছিলেন তখনই প্রথমে দুপুরবেলা বাড়ির কর্তাদের অনুপস্থিতিতে চলত খুনসুটি, প্রেমালাপ। দুই গৃহবধূর দুই রাজমিস্ত্রির সাথে সেই প্রেমালাপই গত ৬ মাসে গভীর হয়। অবশেষে দুই গৃহবধূ দুই রাজমিস্ত্রির সাথে ঘর ছেড়ে পালানোর সিদ্ধান্ত নেন।

তদন্তে নেমে পুলিশ দেখে, গত ১৫ ডিসেম্বর দুই গৃহবধূর একজনের মোবাইলে একটি ফোন আসে। সেই ফোন কলেই বাড়ি থেকে বেরিয়ে মুর্শিদাবাদ চলে যাওয়ার কথা বলা হয়। কারা গৃহবধূর মোবাইলে ফোন করে তা খুঁজতে গিয়েই পুলিশ দুই রাজমিস্ত্রির খোঁজ পান।

বিভিন্ন সূত্রের মাধ্যমে পুলিশ জানতে পারে, ওই দুই রাজমিস্ত্রি দুই গৃহবধূকে নিয়ে চলে যান। পুলিশের ধারণা, প্রথমে শ্রীরামপুরে সাক্ষাৎ করে সেখান থেকে মুর্শিদাবাদ চলে যান। এরপর সেখান থেকে চলে যান মুম্বাই। তবে কোথায় তারা ছিল, তা খোঁজ করছিল পুলিশ।

গোপন সূত্রে পাওয়া খবরের ভিত্তিতে পুলিশ জানতে পারে, ওই দুই গৃহবধূ তাদের প্রেমিকের সাথে ভোরবেলায় আসানসোল স্টেশনে আসবে। সেখান থেকে ট্রেন পরিবর্তন করবে তারা। রিয়ার সাথে সন্তানও থাকতে পারে বলেই জানতে পারে পুলিশ। সেই অনুযায়ী পুলিশ আসানসোল স্টেশন থেকে পাঁচজনকে আটক করে। এরপর তাদের হাওড়ার নিশ্চিন্দা থানার হাতে তুলে দেয়া হয়।

Previous articleচাঁপাইনবাবগঞ্জে ডা. মুরাদসহ দুইজনের বিরুদ্ধে মামলার আবেদন
Next article‘পর্যটন শ্রীভূমি’ সিলেট
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।