আবরার ফাহাদ হত্যায় অভিযোগ গঠনের আদেশের দিন ধার্য

বাংলাদেশ প্রতিবেদক: বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যা ঘটনার মামলায় ২৫ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের শুনানি শেষ করেছেন রাষ্ট্র ও আসামিপক্ষ। শুনানি শেষে ১৫ সেপ্টেম্বর অভিযোগ গঠনের আদেশের জন্য দিন ধার্য করেছে আদালত।

বুধবার (৯ সেপ্টেম্বর) ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক মো. কামরুজ্জামানের আদালতে রাষ্ট্র ও আসামিপক্ষের আইনজীবীরা অভিযোগ গঠনের শুনানি করেন। পরে আদালত ১৫ সেপ্টেম্বর অভিযোগ গঠনের আদেশের জন্য দিন ধার্য করেন।

বুয়েটের শেরেবাংলা হলে গত বছরের ৬ অক্টোবর দিবাগত রাতে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয় তড়িৎ ও ইলেকট্রনিক্স বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী আবরারকে। এ ঘটনায় আবরারের বাবা চকবাজার থানায় মামলা করেন।

২৫ আসামির বিরুদ্ধে গত ১৩ নভেম্বর আদালতে চার্জশিট দেয় পুলিশ। চলতি বছরের ২৫ জানুয়ারি আদালত চার্জশিট গ্রহণ করেন। আবরারের পরিবারের আবেদনে সাড়া দিয়ে ১২ এপ্রিল মামলাটি দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে স্থানান্তর করে সরকার।

ইতোমধ্যে মামলাটি পরিচালনার জন্য ৩ জন প্রসিকিউটর নিয়োগ দিয়েছে আইন মন্ত্রণালয়।

মামলার অভিযোগপত্রে বলা হয়, আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে ক্রিকেট স্ট্যাম্প, চাপাতি আর মোটা দড়ি দিয়ে আবরারকে নির্মমভাবে নির্যাতন করে হত্যা করে।

গ্রেফতারকৃত ২২ জন হলেন: মেহেদী হাসান রাসেল, মো. অনিক সরকার, ইফতি মোশাররফ সকাল, মো. মেহেদী হাসান রবিন, মো. মেফতাহুল ইসলাম জিওন, মুনতাসির আলম জেমি, খন্দকার তাবাখখারুল ইসলাম তানভির, মো. মুজাহিদুর রহমান, মুহতাসিম ফুয়াদ, মো. মনিরুজ্জামান মনির, মো. আকাশ হোসেন, হোসেন মোহাম্মদ তোহা, মাজেদুর রহমান, শামীম বিল্লাহ, মোয়াজ আবু হুরায়রা, এ এস এম নাজমুস সাদাত, ইসতিয়াক আহম্মেদ মুন্না, অমিত সাহা, মো. মিজানুর রহমান ওরফে মিজান, শামসুল আরেফিন রাফাত, আসামি মোর্শেদ অমত্য ইসলাম ও এস এম মাহমুদ সেতু।

মামলার তিন আসামি এখনও পলাতক। তারা হলেন- মোর্শেদুজ্জামান জিসান, এহতেশামুল রাব্বি তানিম ও মোস্তবা রাফিদ। তাদের মধ্যে প্রথম দুজন এজাহারভুক্ত ও শেষের জন এজাহারবহির্ভূত আসামি।