আজকের কাগজ: পুলিশি অভিযানে বিএনপির মনোনয়নপ্রত্যাশী পাঁচ নেতা আটক হয়েছেন জানিয়ে তাঁদের পরিচয় নির্বাচন কমিশনে (ইসি) পাঠিয়েছে বিএনপি।

এ-সংক্রান্ত একটি চিঠি আজ বুধবার বাহকের মাধ্যমে ইসিতে পাঠায় বিএনপি। চিঠিতে সই করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

ইসিতে পাঠানো বিএনপির চিঠি অনুযায়ী, আটক হওয়া পাঁচ নেতা হলেন ইব্রাহীম হোসেন (বাগেরহাট-৪), আনিসুজ্জামান খান (গাইবান্ধা-২), আনোয়ারুল হক (নেত্রকোনা-২), শেখ রবিউল আলম (ঢাকা-১০) ও আবু বক্কর (যশোর-৬)।

বিএনপির পক্ষ থেকে আটক নেতা-কর্মীদের অবিলম্বে ছেড়ে দিতে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য ইসির প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে।

আগে বিএনপির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিল, ৮ নভেম্বর তফসিল ঘোষণার পর একাধিক মামলায় দলটির ৫২৯ জন নেতা-কর্মীকে আটক করা হয়েছে। তাঁদের মধ্যে অনেকেই মনোনয়নপ্রত্যাশী। এই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়ে আটক, নেতা-কর্মীদের তালিকা সরবরাহ করার অনুরোধ জানান। এরপর বিএনপি আটক নেতা-কর্মীদের একটি তালিকা ইসিতে জমা দেয়। তারই ধারাবাহিকতায় আজ বিএনপির পক্ষ থেকে মনোনয়নপ্রত্যাশী আটক পাঁচ নেতার পরিচয় জানিয়ে ইসিতে চিঠি দেওয়া হলো।

চিঠিতে সিইসির উদ্দেশে মির্জা ফখরুল বলেন, গায়েবি মামলায় গ্রেপ্তার হওয়া বিএনপির নেতা-কর্মীদের নামের তালিকা এর আগে দুবার ইসিতে পাঠানো হয়েছে। কিন্তু ইসি এখনো এ বিষয়ে কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। বরং পুলিশ বিএনপির নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত রেখেছে। আটকের পর তাঁদের আদালতে হাজির করা হচ্ছে। কাউকে আবার আটকের পর গুম করে রেখেছে।

বিএনপির নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তার অভিযান অবিলম্বে বন্ধের ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানিয়েছেন মির্জা ফখরুল। তিনি বলেছেন, বাড়িতে গিয়ে, রাস্তায় চলাচলরত অবস্থায় এবং ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হানা দিয়ে নেতা-কর্মীদের আটক করা হচ্ছে। তফসিল ঘোষণার পর আটক নেতাদের তালিকা ইসিতে দুবার সরবরাহ করা সত্ত্বেও তারা কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। এ অবস্থায় ইসি আদৌ সুষ্ঠু নির্বাচন করতে পারবে কি না, তা নিয়ে জনমনে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।